ফের সমাবর্তন ঘিরে বিতর্ক, আমন্ত্রণ না পাওয়ায় ক্ষোভ উগড়ে দিলেন ধনখড়

ফের সমাবর্তন ঘিরে বিতর্ক, আমন্ত্রণ না পাওয়ায় ক্ষোভ উগড়ে দিলেন ধনখড়

আমন্ত্রণপত্রও আসেনি রাজভবনে। জানানোই হয়নি সমাবর্তন হচ্ছে।

  • Share this:

#কোচবিহার: ফের সমাবর্তন ঘিরে বিতর্ক। এবার কোচবিহারের পঞ্চানন বর্মা বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাবর্তন ঘিরে রাজ্য-রাজ্যপাল সংঘাত। অনুষ্ঠানের কার্ডে নাম নেই। টুইটে ক্ষোভ জগদীপ ধনখড়ের। উপাচার্যের পালটা দাবি, সমাবর্তনে আসার জন্য চিঠি পাঠানো হয় রাজভবনে।  উত্তর আসেনি।

ফের সমাবর্তন ঘিরে বিতর্ক, আমন্ত্রণপত্রে নাম থাকা নিয়ে বিতর্ক!আবারও সম্মুখ সমরে রাজ্য -রাজ্যপাল। যাদবপুর-কলকাতা বিশ্ববিদ্যায়ের পর এবার কোচবিহারের পঞ্চানন বর্মা বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাবর্তন ঘিরে চড়ছে পারদ।  ১৪-ই ফেব্রুয়ারি সমাবর্তন অনুষ্ঠানে তাঁকে আমন্ত্রণ-ই জানানো হয়নি।  টুইটে অভিযোগ রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়ের।  যদিও এই অভিযোগ অস্বীকার করেছেন উপাচার্য দেবকুমার মুখোপাধ্যায়। তাঁর দাবি, সরকারি বিধি মেনেই চিঠি গেছে রাজভবনে।  বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার জানান, তাঁরা এখনও রাজ্যপালের আসার অপেক্ষায় আছেন।

বিশ্ববিদ্যালয় সূত্রে খবর

-২ সপ্তাহ আগেই আচার্যকে চিঠি পাঠানো হয় -উচ্চশিক্ষা দফতরের মাধ্যমেই চিঠি যায় রাজভবনে -আচার্যের আসার সম্ভাবনায় জেলা প্রশাসনকে চিঠি দিয়ে পুলিশি নিরাপত্তার আবেদনও করা হয়েছে -উৎসব অডিটোরিয়ামের বাইরের পাঁচিল কাপড় দিয়ে ঢেকে দেওয়া হয়েছে

--মঞ্চে আচার্যকে শুভেচ্ছা ও স্বাগত জানাতে তৈরি স্মারকও

এর আগে যাদবপুর ও কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাবর্তনে যোগ দিতে গিয়ে CAA-NRC ইস্যুতে পড়ুয়াদের বিক্ষোভের মুখে শেষপর্যন্ত উৎসবে যোগ না দিয়েই ফিরতে হয় জগদীর ধনখড়কে।  কিন্তু এই দুই ক্ষেত্রেই রাজ্যপালকে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছিল। রাজভবন সূত্রে খবর,

রাজ্য়পাল চিঠি যাচ্ছে কোচবিহার বি, কারণ দর্শাতে বলে চিঠি উপাচাীর্যের কাছে

আমন্ত্রণপত্রও আসেনি রাজভবনে। জানানোই হয়নি সমাবর্তন হচ্ছে।আবারও বিশ্ববিদ্যালয়ের সঙ্গে আচার্য তথা রাজ্যপালের সংঘাত। এবার কোচবিহারের পঞ্চানন বর্মা বিশ্ববিদ্যালয়। সমাবর্তনে চার মন্ত্রী আমন্ত্রিত। অনুষ্ঠানে ডাক না পাওয়ায় ক্ষোভ ধনখড়ের। আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে। কেন পাননি খোঁজ নিয়ে দেখার আশ্বাস উপাচার্যের।

First published: February 12, 2020, 3:04 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर