• Home
  • »
  • News
  • »
  • kolkata
  • »
  • রাজ্য সরকারের নয়া নিয়ম, থাকছে না শিক্ষকদের বেতনের ফারাক

রাজ্য সরকারের নয়া নিয়ম, থাকছে না শিক্ষকদের বেতনের ফারাক

File Photo

File Photo

শিক্ষক নিয়োগ নিয়ে বিধানসভায় পাশ হওয়া নয়া বিলে দ্রুতই মিটতে চলেছে শিক্ষকদের বেতন বৈষম্য ৷ নয়া আইন অনুযায়ী শিক্ষকদের মধ্যে বেতনের কোনও ফারাক থাকবে না ৷

  • Pradesh18
  • Last Updated :
  • Share this:

    #কলকাতা: শিক্ষক নিয়োগ নিয়ে বিধানসভায় পাশ হওয়া নয়া বিলে দ্রুতই মিটতে চলেছে শিক্ষকদের বেতন বৈষম্য ৷ নয়া আইন অনুযায়ী শিক্ষকদের মধ্যে বেতনের কোনও ফারাক থাকবে না ৷

    শিক্ষক নিয়োগ নিয়ে জট কাটাতে অবশেষে ন্যাশনাল কাউন্সিল ফর টিচারস এডুকেশন অর্থাৎ NCTE -এর নিয়ম মেনে নিল সরকার ৷ এই লক্ষ্যে বিধানসভায় বৃহস্পতিবার একটি সংশোধনী বিল পাশ করা হয় ৷ এর ফলে প্রায় ১.৫ লক্ষ শিক্ষক নিয়োগ বাধা মুক্ত হবে বলে আশা প্রকাশ করেন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় ৷

    NCTE -এর নিয়ম অনুযায়ী একই পদে কর্মরত শিক্ষকদের মধ্যে শিক্ষাগত যোগ্যতার বিভেদে বেতনে কোনও ফারাক রাখা যাবে না ৷ অর্থাৎ উচ্চ শিক্ষাগত যোগ্যতা থাকলেও একই পদে কর্মরত শিক্ষকরা সমান বেতন পাবেন ৷ এতদিন এ রাজ্যে শিক্ষকেরা উচ্চ শিক্ষাগত যোগ্যতার ভিত্তিতে বাড়তি বেতন পেতেন ৷ অর্থাৎ অনার্স গ্র্যাজুয়েট পাশ যোগ্যতার একজন শিক্ষকের তুলনায় একই পদে কর্মরত স্নাতকোত্তর ডিগ্রিপ্রাপ্ত একজন শিক্ষক কিঞ্চিৎ বাড়তি বেতন পেতেন ৷ এবার থেকে নয়া নিয়োগ প্রক্রিয়ায় নিযুক্ত শিক্ষকেরা এই আইন অনুযায়ী সমান স্যালারি পাবেন ৷

    প্রথমে NCTE -এর এই নিয়মের বিরোধিতা করেছিল রাজ্য সরকার কিন্তু অবশেষে শিক্ষক নিয়োগে জট কাটাতে ন্যাশনাল কাউন্সিল ফর টিচারস এডুকেশন গাইডলাইন মেনে অর্ডিন্যান্স আনে শিক্ষা দফতর ৷

    আরও পড়ুন

    বিধানসভায় পাশ নয়া বিল, ১.৫ লক্ষ শিক্ষক নিয়োগে বাধা কাটল

    রাজ্যে বহুদিন ধরে বিভিন্ন মামলার জটে আটকে রয়েছে শিক্ষক নিয়োগ ৷ শিক্ষকের অভাবে রাজ্যের শিক্ষা ব্যবস্থা প্রায় ভেঙে পড়ার উপক্রম ৷ মামলার জটে প্রাথমিক থেকে উচ্চ প্রাথমিক, নবম-দশম থেকে একাদশ-দ্বাদশ বিভাগে শূন্যপদে শিক্ষক নিয়োগ প্রক্রিয়া ক্রমশ বিলম্বিত হচ্ছে ৷ এর ফলে রাজ্যে ৭২ থেকে ৭৫ হাজার শিক্ষকের শূন্য পদের সংখ্যা ক্রমশ বেড়ে চলেছে ৷ অবিলম্বে শিক্ষক নিয়োগ না হলে শিক্ষা ব্যবস্থা সম্পূর্ণ ভেঙে পড়বে ৷ এই আশঙ্কায় সরকার আগেই NCTE-র নিয়ম মেনে শিক্ষক নিয়োগ করার জন্য অর্ডিন্যান্স আনে ৷ বিধানসভায় শীতকালীন অধিবেশন শুরু হতেই সেই সংশোধনী বিল আকারে পেশ করা হয় ৷ মামলার জট থেকে শিক্ষক নিয়োগ প্রক্রিয়াকে মুক্ত করতে এই পদক্ষেপ জরুরি বলে বিধানসভায় জানান শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় ৷

    যদিও বিরোধীরা এই সংশোধনের তীব্র বিরোধীতা করে বলে, এর ফলে যোগ্য শিক্ষক হারাবে রাজ্য সরকার ৷ উচ্চ শিক্ষাগত যোগ্যতা অনুযায়ী বেতন না পেলে যোগ্য চাকরিপ্রার্থীরা শিক্ষকপদে আগ্রহী হবেন না ৷ ফলে শিক্ষাব্যবস্থার গুণমান ক্ষুণ্ন হবে কিন্তু বিরোধীদের আপত্তি সত্ত্বেও পরে ভোটাভুটিতে সংখ্যাগরিষ্ঠতায় পাশ হয়ে যায় এই বিল ৷ তবে নয়া নিযুক্ত শিক্ষকরাই এই সংশোধনীর সুবিধা পাবেন ৷ ইতিমধ্যেই যাঁরা কর্মরত তাঁদের উপর এই নিয়ম লাগু হবে না ৷

    First published: