৮-বি বাসস্ট্যান্ডে ২ ছাত্রীকে হেনস্থা, কান ধরে ক্ষমা চাওয়ার নিদান

৮-বি বাসস্ট্যান্ডে ২ ছাত্রীকে হেনস্থা, কান ধরে ক্ষমা চাওয়ার নিদান
Photo- Video Grab

যাদবপুর এইট-বি বাসস্ট্যান্ডে দুই ছাত্রীকে হেনস্থার অভিযোগ উঠল।

  • Share this:

#কলকাতা: এইট বি বাসস্ট্যান্ডের এটিএম গিয়েছিলেন টাকা তোলার জন্য। এটিএম থেকে বেরিয়ে ভয়াবহ অভিজ্ঞতার শিকার। এখনও আতঙ্কে যাদবপুরের ছাত্রী ও তার বন্ধু। মন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয়কে নাকি তাঁরাই আটকে রেখেছেন। এই অভিযোগে দুই ছাত্রীকে মারধর, কান ধরে ক্ষমা চাওয়া। চরম হেনস্থার শিকার হন তাঁরা। হেনস্থাপর্বের ভিডিও তুলে রাখা হয়েছে। ছাত্রীদের অভিযোগ এবিভিপি কর্মীদের বিরুদ্ধে।

বৃহস্পতিবার সন্ধে, বাবুল সুপ্রিয়কে ঘিরে অগ্নিগর্ভ হয়ে ওঠে যাদবপুর ক্যাম্পাস। বিশ্ববিদ্যালয়ের বাইরেও জমায়েত। এই ঘটনার মাঝে যাদবপুর এইট-বি বাসস্ট্যান্ডে দুই ছাত্রীকে হেনস্থার অভিযোগ উঠল।

টাকা তোলার জন্য এইট-বি বাসস্ট্যান্ডের এটিএমে যান যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের সোশিয়োলজি বিভাগের এক ছাত্রী ও তার বন্ধু।

এটিএম থেকে বেরোতেই দুই ছাত্রীকে ঘিরে ধরে একদল মহিলা-পুরুষ। যাদবপুরের ছাত্রীকে মারধর করে মহিলারা। শুরু হয় অশ্রাব্য গালিগালাজ। একই সঙ্গে চলে জয় শ্রীরাম স্লোগান। যাদবপুরে বাবুল বিরোধী আন্দোলনে নাকি এরা ছিলেন। কান ধরে ক্ষমা চাইতে বলা হয় দুই ছাত্রীকে।

আরও পড়ুন - খেতের মধ্যে টানতে টানতে নিয়ে গেল নাবালিকাকে, সেখানেই তিনজন মিলে রেপ করল...

Loading...

মনেপ্রাণে বিজেপি বিরোধী হলেও, ওইদিনের আন্দোলনে ছিলেন না তিনি। সেই সময় বাড়িতেই ছিলেন দুজন। কে শোনে কার কথা? কোনও কথাতেই থামেনি হেনস্থা।হেনস্থার ছবি ভিডিও করে রাখা হয়।

বন্ধু পড়েন লরেটো কলেজে। যাদবপুরের সঙ্গে তাঁর কোনও সম্পর্ক নেই। সত্যিটা বলা সত্বেও ছাড় পেলেন না। তাঁকেও মারধরের চেষ্টা করা হয়।অভিযোগ অস্বীকার বিজেপির ছাত্র সংগঠনের।দুজনের অভিভাবকরা বাইরে থাকেন। নিরাপত্তার কথা ভেবেই যাদবপুর থানায় অভিযোগ দায়ের করেন। পুলিশের তরফে মিলেছে সাহায্যের আশ্বাসও। চোখ বুজলেই অচেনা, অজানা, উন্মত্ত মুখের সারি ভিড় করছে। কানে ভাসছে জয় শ্রীরাম স্লোগান।

আরও দেখুন

First published: 12:04:55 PM Sep 23, 2019
পুরো খবর পড়ুন
Loading...
अगली ख़बर