শহরে করোনা সন্দেহে ভর্তি ১৪ জনের মধ্যে ৬ জনের দেহে পাওয়া গেল না ভাইরাসের নমুনা

শহরে করোনা সন্দেহে ভর্তি ১৪ জনের মধ্যে ৬ জনের দেহে পাওয়া গেল না ভাইরাসের নমুনা

দেশজুড়ে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা প্রতিদিনই বেড়েই চলেছে।

  • Share this:

#কলকাতা: দেশজুড়ে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা প্রতিদিনই বেড়েই চলেছে। গোটা দেশে এখন করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ১১০ জন। বহু রাজ্যের মানুষই করোনা আক্রান্ত। তবে সৌভাগ্যের কথা পশ্চিমবঙ্গের এখনও পর্যন্ত কেউ করোনা আক্রান্ত হয়নি। বেলেঘাটা আইডি হাসপাতালের সোমবার দুপুর পর্যন্ত ১৫ জন আক্রান্ত সন্দেহে চিকিৎসাধীন রয়েছে যদিও এদের মধ্যে ৬ জনের সোয়াব বা লালা রসের নমুনা পরীক্ষার রিপোর্ট নেগেটিভ এসেছে। অর্থাৎ, এরা কেউই করোনা আক্রান্ত নন। এছাড়াও বেশ কয়েকজনকে পর্যবেক্ষণের জন্য রাখা হয়েছে।

সোমবার বেলা বারোটা নাগাদ কলকাতার পিকনিক গার্ডেনের বাসিন্দা ২৪ বছর বয়সী এক তরুণীকে বেলেঘাটা আইডি হাসপাতালে আনা হয়। উচ্চশিক্ষার জন্য মুম্বাইতে পড়তে যাওয়া এই তরুণী সেখানেই জ্বর সর্দি-কাশি শ্বাসকষ্টে আক্রান্ত হন। পরিবারের লোকজন দ্রুত তাঁকে বাড়ি ফিরতে বলেন। রবিবার রাতে বাড়ি ফেরার পরই সোমবার সকালে তাঁকে বাইপাসের পাশে রুবি হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানকার চিকিৎসকরা তার উপসর্গ দেখে তাঁকে বেলেঘাটা আইডি হাসপাতালে পাঠিয়ে দেয়। সেখানকার জরুরী বিভাগের চিকিৎসকরাও তরুণীকে পর্যবেক্ষণ করে দ্রুত তাঁকে আইসোলেশন ওয়ার্ডে ভর্তি করে আজই তার লালা আলাদা রসে নমুনা পরীক্ষার জন্য পাঠান হবে বেলেঘাটা নাইসেডে। যেহেতু দেশের মধ্যে মহারাষ্ট্রে সবথেকে বেশি করোনা আক্রান্তের সংখ্যা তার ফলে বিশেষ করে নজর রাখা হচ্ছে এই তরুণীকে।

এখন বেলেঘাটা নাইসেডে যে ক'জন ভর্তি রয়েছেন করোনা আক্রান্ত সন্দেহে, তাঁদের মধ্যে সৌদি আরবের মক্কা ফেরত কলকাতার বেনিয়াপুকুরের বাসিন্দা এক বৃদ্ধার প্রতিও বিশেষ পর্যবেক্ষণের  সিদ্ধান্ত নিয়েছেন চিকিৎসকরা। এই বৃদ্ধারও জ্বর, শ্বাসকষ্ট রয়েছে। তবে ইতালি থেকে আসা বালিগঞ্জের বাসিন্দা এক যুবককে নিয়ে যথেষ্টই উদ্বিগ্ন ছিলেন চিকিৎসকরা। তবে তার রিপোর্ট নেগেটিভ আশায় হাঁফ ছেড়ে বেঁচেছেন  প্রত্যেকে।

 রাজ্য সরকারের তরফ থেকে সমস্ত রকম সতর্কতামূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হচ্ছে। করোনা ভাইরাস নিয়ে সচেতনতামূলক বার্তা দেওয়া হচ্ছে মানুষের প্রতি। রাজ্যের স্বাস্থ্য অধিকর্তা অজয় চক্রবর্তী জানিয়েছেন এ রাজ্যে এখনও কেউ করোনা আক্রান্ত হননি, তবে তা নিয়ে আত্মতুষ্টির কোন জায়গা নেই। স্বাস্থ্য দপ্তর এর প্রত্যেকে সতর্ক এবং সচেতন আছে। মানুষ যেন অযথা আতঙ্কিত না হয়ে সতর্ক থাকে তার বার্তাও দিয়েছেন তিনি।

Avijit Chanda

First published: March 16, 2020, 5:50 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर