IPL 2021: অক্সিজেনের হাহাকার চারপাশে, দেশের জন্য সাত কোটির অনুদান আইপিএল দলের

IPL 2021: অক্সিজেনের হাহাকার চারপাশে, দেশের জন্য সাত কোটির অনুদান আইপিএল দলের

আইপিএলের একটি দল অন্তত এবার করোনা যুদ্ধে শামিল হল।

আইপিএলের একটি দল অন্তত এবার করোনা যুদ্ধে শামিল হল।

  • Share this:

    #নয়াদিল্লি:

    দেশের করোনা পরিস্থিতি ভয়ঙ্কর আকার ধারণ করেছে। এমন মারাত্মক মহামারীর সময় আইপিএল আয়োজন নিয়ে অনেকেই প্রশ্ন তুলেছিলেন। এমনকী বিশ্ব ক্রিকেটের অনেক প্রাক্তন ও বর্তমান তারকাও ভারতে এই মহামারী পরিস্থিতিতে আইপিএল আয়োজন নিয়ে সমালোচনা করেছেন। কিন্তু তাতে আইপিএলে কোনও প্রভাব পড়েনি। বিসিসিআইয়ের তরফে বারবার জানানো হচ্ছে, আইপিএলে সমস্ত ক্রিকেটার সুরক্ষিত। কারণ তাঁরা বিশ্বের সেরা বায়ো বাবলে রয়েছেন। তবে প্রশ্নটা শুধু ক্রিকেটারদের সুরক্ষা নিয়ে নয়। এমন মহামারী পরিস্থিতিতে ক্রিকেট নিয়ে উন্মাদনা দৃষ্টিকটু। তাছাড়া এই সময়ে আইপিএল আয়োজনের খরচ কমিয়ে তা স্বাস্থ্য খাতে ব্যবহার করার আহ্বান জানিয়েছিলেন অনেকেই।

    শেষ পর্যন্ত আইপিএলের একটি দল অন্তত এবার করোনা যুদ্ধে শামিল হল। করোনা পরিস্থিতির মাঝে অক্সিজেনের হাহাকার চারপাশে। এমনকী বহু জায়গায় ভ্যাকসিনের অভাব রয়েছে বলেও অভিযোগ উঠেছে। এই পরিস্থিতিতে রাজস্থান রয়্যলস ব্রিটিশ এশিয়ান ট্রাস্টের সঙ্গে জুটি বেঁধে ভারতীয় মুদ্রায় প্রায় সাত কোটি টাকা দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। রাজস্থান রয়্যালসের তরফে জানানো হয়েছে, দলের ক্রিকেটার, সাপোর্ট স্টাফ, কর্ণধার প্রত্যেকেই এই অনুদানে অবদান রেখেছেন। সকলের মিলিত প্রচেষ্টাতেই ভারতে ভয়ঙ্কর করোনা পরিস্থিতির মাঝে এই আর্থিক সাহায্যের উদ্যোগ নিয়েছে রাজস্থান।

    এর আগে কেকেআরের তারকা পেসার প্যাট কামিন্স ভারতের প্রধানমন্ত্রীর তহবিলে ৫০ হাজার মার্কিন ডলার দেওয়ার ঘোষণা করেছিলেন। তারপর অস্ট্রেলিয়ার প্রাক্তন পেসার ব্রেট লি এই পরিস্থিতিতে ভারতকে আর্থিক অনুদান দিয়েছিলেন। তিনি জানিয়েছিলেন, ভারত তাঁর দ্বিতীয় বাড়ি। তাই ভারতে এমন সংকটের সময়ে তিনি চুপ করে বসে থাকতে পারেন না। বাংলার ক্রিকেটের শ্রীবৎস গোস্বামী অক্সিজেনের ঘাটতির এই খারাপ সময়ে ৯০ হাজার টাকা অনুদান দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। এখনও পর্যন্ত সানরাইজার্স হায়দরাবাদের হয়ে একটিও ম্যাচ খেলেননি গোস্বামী। তবে তাঁর এই উদ্যোগ ইতিমধ্যে প্রশংসা কুড়িয়েছে অনেকের।

    Published by:Suman Majumder
    First published:

    লেটেস্ট খবর