SRH vs DC: পৃথ্বী, পন্থের ব্যাটে ১৫৯ তুলল দিল্লি

SRH vs DC: পৃথ্বী, পন্থের ব্যাটে ১৫৯ তুলল দিল্লি

দুরন্ত ওপেনিং পার্টনারশিপ পৃথ্বী এবং ধাওয়ানের

৮১ রানের পার্টনারশিপ গড়লেন দুজনে। রশিদ খানের বলে ধাওয়ান বোল্ড হলেন ২৮ করে। কিন্তু অন্যদিকে নিজের অর্ধশতরান পূর্ণ করলেন পৃথ্বী

  • Share this:

    #চেন্নাই: টস জিতে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন দিল্লির অধিনায়ক ঋষভ পন্থ। সিদ্ধান্ত যে একেবারে সঠিক প্রমাণ করে দিচ্ছিলেন দুই ওপেনার শিখর ধাওয়ান এবং পৃথ্বী শ। ৮১ রানের পার্টনারশিপ গড়লেন দুজনে। রশিদ খানের বলে ধাওয়ান বোল্ড হলেন ২৮ করে। কিন্তু অন্যদিকে নিজের অর্ধশতরান পূর্ণ করলেন পৃথ্বী। এই নিয়ে টুর্নামেন্টের দ্বিতীয় অর্ধশত রান পেলেন তিনি। ভয়ঙ্কর হয়ে উঠেছিলেন মুম্বইয়ের এই ব্যাটসম্যান। ৫৩ করে রান আউট' হলেন অধিনায়কের সঙ্গে ভুল বোঝাবুঝিতে। কিন্তু যতক্ষণ ছিলেন দুর্দান্ত কিছু শট খেললেন। সাতটি বাউন্ডারি এবং একটি ওভার বাউন্ডারি মারলেন।

    এরপর পন্থ এবং স্মিথ মিলে দলের রান বাড়ানোর চেষ্টা করলেন। সানরাইজার্স দলের সিদ্ধার্ত কল এবং বিজয় শঙ্কর বুদ্ধি করে বল করলেন। বলের গতি কমিয়ে ব্যাটসম্যানদের কাজ কঠিন করে দিলেন। কিন্তু ঋষভ যতক্ষন উইকেটে থাকবেন, রান তোলার গতি বাড়াবেন সেটাই স্বাভাবিক। সেই চেষ্টা জারি রাখলেন তিনি। তবে সূচিতে র বলে সহজ স্টাম্পিং মিস করেন জনি বেয়ারস্টো। না হলে আরও আগেই ফিরে যেতে হত দিল্লি অধিনায়ককে।

    সাধারণত চেন্নাই পিচে মন্থর বল করলে ব্যাটিং করা দলের পক্ষে বড় শট খেলা কঠিন হয়ে পড়ে। যেভাবে শুরু করেছিল দিল্লি, মাঝের ওভারে সানরাইজার্স বোলাররা গতি কমে দেওয়ায় কাজটা কঠিন হয়ে গেল পন্থ এবং স্মিথের। সানরাইজার্স এদিন ভুবনেশ্বর কুমার ছাড়াই খেলতে নেমেছে। বাঁহাতি স্পিনার সূচিত চেষ্টা করলেন নিজের প্রথম ম্যাচে সেরাটা দেওয়ার। সেরকমই দিল্লি এদিন অক্ষর প্যাটেলকে দলে নিয়েছে। কলের বলে ৩৭ করে মারতে গিয়ে সূচিতের হাতে ধরা পড়লেন ঋষভ।

    হেটমায়ার ফিরে গেলেন ১ রান করে। উইকেট পেলেন সেই সিদ্ধার্ত কল। শেষ ওভারে খলিল আহমেদ বুদ্ধি করে বল করলেন। স্টিভ স্মিথ এবং মার্কাস স্টোইনিসের মত ব্যাটসম্যান উইকেটে থাকলেও বড় শট খেলতে পারলেন না। তবুও দেড়শো পেরিয়ে গেল দিল্লি স্মিথের জন্য। ম্যাচ জিততে হলে শুরুতেই এবং ডেভিড ওয়ার্নারের মধ্যে একজনকে ফিরিয়ে দিতে হবে। না হলে বিপদ আছে।

    Published by:Rohan Chowdhury
    First published: