#IranvsUS: ইরানের মিসাইলের আঘাতেই ভেঙে পড়ে ইউক্রেনের প্লেন? কানাডার কাছে তথ্য চাইল তেহরান

#IranvsUS: ইরানের মিসাইলের আঘাতেই ভেঙে পড়ে ইউক্রেনের প্লেন? কানাডার কাছে তথ্য চাইল তেহরান

উপসাগরে যুদ্ধের আবহ তারমধ্যেই অভিযোগ নিয়ে মুখ খুলল ইরান , জানাল বিশ্ববিখ্যাত মার্কিন বিমান প্রস্তুতকারী সংস্থা বোয়িং ৭৩৭ কে দিয়েও বিষয়টির তদন্ত করাতে রাজি তারা

  • Share this:

#তেহরান : যেদিন ইরাকে অবস্থিত মার্কিন সেনা ক্যাম্পে মিসাইল হানা চালিয়েছিল ইরান সে সময়ের পরপরেই ইরানের সীমান্তে ভেঙে পড়ে ইউক্রেনিয়ান বিমান ৷ দুর্ঘটনা নয়, বিমানে হামলা!তেহরানে বিমান দুর্ঘটনায় দু'দিনের মধ্যে এমনই চাঞ্চল্যকর তথ্য নিয়ে উত্তাল গোটা বিশ্ব ৷

ইউক্রেনের বিমানে হামলা চালায় ইরান ৷ এমনটাই দাবি করেছেন কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো ৷ আর এরপরেই তেহরান এই বিষয়ে বিস্তারিত তথ্য দেওয়ার জন্য কানাডাকে অনুরোধ করেছে তেহরান ৷বুধবার তেহরানে বিমান ভেঙে মৃত ক্রু সহ  ১৮০ জন বিমানযাত্রীর মৃত্যু হয় ৷ প্রাথমিকভাবে এটিকে দুর্ঘটনাই মনে করা হয়েছিল ৷ তবে তারইমধ্যে বিভিন্ন জায়গা থেকে উষ্মা প্রকাশ করা হচ্ছিল উপসাগরীয় এলাকায় যুদ্ধ পরিস্থিতির জেরেই এই ঘটনা হয়নি তো ৷   ইউক্রেনের বিমানে ইরানের মিসাইল হানা আর ইরানের মিসাইল হানাতেই বিমান ভাঙার দাবি ৷  কানাডার প্রধানমন্ত্রীর দাবিকে চ্যালেঞ্জ জানিয়েছে ইরান ৷ কানাডার কাছে প্রমাণ চেয়েছে ইরান ৷ বিমান ভাঙার তদন্তে থাকতে রাজি আমেরিকা ৷

ইউক্রেনের যে বিমানটি ভেঙে পড়ে তার ১৭৬ যাত্রীর মধ্যে ৬৩ জন ছিলেন কানাডার নাগরিক ৷ এরপরেই কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো জানিয়েছেন একাধিক ইন্টলিজেন্স সূত্রের মতে তেহরান থেকে বিমানটি ওড়ার পরেই ইরান মিসাইল হেনে বিমানটিকে নামায় ৷

ইরানের বিদেশমন্ত্রক জানিয়েছে মার্কিন বিমান প্রস্তুতকারী সংস্থা বোয়িংয়কে তদন্তে অংশ নিতে দিতে তাদের কোনও আপত্তি নেই ৷ কানাড নিজের এই প্রশ্ন তোলার পরেই পাশ্চাত্যের একাধিক দেশ থেকে তাদের দিকে সমর্থন বাড়তে শুরু করে ৷ ব্রিটিশ প্রধামনন্ত্রী বরিস জনসন জানান একাধিক প্রমাণ রয়েছে বিমানে ইরানিয়ান মিসাইল হানার , তবে তিনি এও বলেছেন এটা অবশ্য অনিচ্ছাকৃত হতে পারে ৷

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ইঙ্গিত দিয়েছেন কিয়েভে অভিমুখী বোয়িং ৭৩৭- এ দু একটি মিসাইলের ধাক্কা লেগেছিল যা ঠিক তেহরানের বাইরেই ফেটে যায় ৷ বুধবার কাকভোরে তেহরান বিমানবন্দর থেকে টেক অফ করার কিছুক্ষণের মধ্যেই ফ্লাইট পিএস ৭৫২ ভেঙে পড়ে ৷ এদিনই কিছু আগে ইরানের একাধিক ব্যালাস্টিক মিসাইল ইরাকে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সামরিক বেসক্যাম্পে আঘাত হানে ৷ ইরানিয়ান সেনাপ্রধানকে এয়ারস্ট্রাইকে হত্যা করার বদলা হিসেবেই ছিল এই প্রত্যাঘ্যাত৷ এই বিমানে যাত্রীদের মধ্যে ৮২ জন ইরানের, ১১ জন ইউক্রেনের, ১০জন সুইডেনের ও ৪ জন আফগানিস্তানের, ৩ জন জার্মানির, ৩ জন ব্রিটেনের ও ৬৩ জন কানাডার নাগরিক ছিলেন ৷

First published: January 10, 2020, 10:04 AM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर