• Home
  • »
  • News
  • »
  • international
  • »
  • TALIBAN TERROR VIRAL VIDEO TV ANCHOR FORCED TO PRAISE TALIBAN WITH ARMED MEN BEHIND WATCH SANJ

Viral Video | Taliban Terror : পিঠে ঠেকানো তালিবানের বন্দুক! 'কোনও ভয় নেই', কাঁপতে কাঁপতে আস্বস্ত করছেন সঞ্চালক...

তালিবানি ত্রাসে টেলিভিশন চ্যানেলের কার্যালয়

Viral Video | Taliban Terror : কথায় বলে, একটা ছবি হাজার কথা বলে দেয়। আর এই ছবিটা সে কথা যেন ফের প্রমাণ করল।

  • Share this:

    #কাবুল : তালিবানি তাণ্ডব অব্যাহত আফগানিস্তানে (Afghanistan)। এবার টেলিভিশনের সঞ্চালককে গান পয়েন্টে রেখে নিজেদের স্তূতিমূলক খবর পাঠ করাল জঙ্গিরা। দৃঢ়কণ্ঠে সঞ্চালককেও দেশবাসীর উদ্দেশে বলতে হল – তালিবানকে ভয় পাবেন না। কাবুলের এক নিউজ চ্যানেলের অফিসে ঢুকে জঙ্গিদের এই দাপটের ভিডিও নিমেষে ভাইরাল (Viral Video)সোশ্যাল মিডিয়ায়। যতই প্রশস্তিবাক্য থাকুক, ভিডিও দেখেই শিউড়ে উঠছেন সে দেশের মানুষ।

    কথায় বলে, একটা ছবি হাজার কথা বলে দেয়। আর এই ছবিটা সে কথা যেন ফের প্রমাণ করল। ছবিতে দেখলে তিনি যা বলছেন সেগুলো যে বলতে কার্যত বাধ্য হয়েছেন, সে কথা আলাদা করার অপেক্ষা রাখে না। কারও পিছনে অস্ত্র হাতে দুই ব্যক্তি দাঁড়িয়ে থাকলে তারা যা চাইবে সে কথা তো বলতেই হবে। তাই তিনিও প্রশংসা করলেন। আর উপায় বা কী?

    মাসিহ অলিনেজাদ নামের এক ইরানিয়ান সাংবাদিক ভিডিওটি শেয়ার করেছেন ট্যুইটারে। লিখেছেন, একেই কী বলবে নির্ভয় আর নিরাপত্তার পাঠ? তালিবান আসলে সন্ত্রাসের আরেক নাম। এই ভিডিও তার প্রমাণ।দেখুন সেই ভিডিও...

    আফগানিস্তানের ক্ষমতার মসনদে বসার পর তালিবান (Taliban) কথা দিয়েছিল, সংবাদমাধ্যমের স্বাধীনতা অক্ষুণ্ণ থাকবে। কিন্তু অন্যান্য নানা প্রতিশ্রুতির মতো এটাও বাস্তবায়িত করেনি। বরং একের পর এক ঘটে গিয়েছে সাংবাদিকদের উপর হামলার ঘটনা। হুমকি, হামলার পর এবার সরাসরি নিউজ চ্যানেলের অফিসে ঢুকে নিজেদের ভয়াবহ রূপ তুলে ধরল জঙ্গি বাহিনী। ভাইরাল হওয়া ভিডিওটিতে দেখা যাচ্ছে, বন্দুক নিয়ে স্টুডিওয় ঢুকে পড়েছে তালিবান। তারপর সঞ্চালকের চেয়ারের পিছনে দাঁড়িয়ে তাঁর মাথায় বন্দুক তাক করে খবর পড়াচ্ছে। তাদের নির্দেশ – দেশবাসীকে বলতে হবে যে তালিবানকে ভয় পাওয়ার কিছু নেই।

    কিন্তু দেশবাসীকে কী আশ্বস্ত করবেন, গান পয়েন্টে বসে সঞ্চালককে দেখা যাচ্ছে নিস্পৃহ গলায় তালিবানি বার্তা পৌঁছে দিচ্ছেন দেশবাসীর কাছে। এই ভিডিও ভাইরাল হওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই উঠেছে হাজারও প্রশ্ন। এই কি তবে তালিবান বর্ণিত সংবাদমাধ্যমের স্বাধীনতা? যদি সংবাদমাধ্যমকে কাজ করতে এতটাই ছাড় দেওয়া হয়, তবে কেন সঞ্চালকের মাথায় বন্দুক ঠেকিয়ে খবর পড়াতে হল? কেনই বা বিভিন্ন জায়গায় আক্রান্ত হচ্ছেন সাংবাদিকরা। দিন কয়েক আগেই টোলো নিউজের এক সাংবাদিক এবং তাঁর চিত্র সাংবাদিকের উপর হামলা চালায় জঙ্গিরা।

    তার আগে ভারতীয় সাংবাদিক দানিশ সিদ্দিকীর নৃশংস হত্যাকাণ্ডের কথা তো এখনও টাটকা সকলের মনে। কাবুলে তালিবান তাণ্ডবের খবর করতে গিয়ে যিনি সংঘর্ষের মাঝে পড়ে নিহত হন। তাকে জঙ্গিরাই খুন করে বলে অভিযোগ ওঠে। এছাড়া গত কয়েকদিনে শুধু তাই নয়, সাংবাদিকদের বাড়িতে গিয়ে হামলা চালানো হয়েছে। তাঁদের না পেয়ে তাঁদের আত্মীয়কে মারধর করা হয়েছে বলেও অভিযোগ উঠেছে স্থানীয় সংবাদ মাধ্যমগুলিতে। তাই জঙ্গিদের মুখের কথা আর কাজে তো বিস্তর অমিল চোখে পড়ছে সে কথা বলাই বাহুল্য।

    Published by:Sanjukta Sarkar
    First published: