• Home
  • »
  • News
  • »
  • international
  • »
  • কম পয়সায় নেশা করতে হ্যান্ড স্যানিটাইজার পান, মৃত্যু ৭ জনের, কোমায় ২!

কম পয়সায় নেশা করতে হ্যান্ড স্যানিটাইজার পান, মৃত্যু ৭ জনের, কোমায় ২!

Representational Image

Representational Image

মদের বদলে স্যানিটাইজার খেয়ে মৃত্যু হল সাত জনের। কোমায় রয়েছেন আরও দু'জন।

  • Share this:

#মস্কো: করোনার জেরে আজকাল সবার ঘরে ঘরে স্যানিটাইজার। হাত জীবাণুমুক্ত করতে সকলেই প্রায় এটি ব্যবহার করেন। স্যানিটাইজারে অ্যালকোহলের মাত্রা কতটা থাকে তা দেখেই এটি কেনা হয়। কিন্তু অ্যালকোহল মিশ্রিত স্যানিটাইজার কি খাওয়ার যোগ্য? বিশেষজ্ঞদের কথায়, একেবারেই নয়। স্যানিটাইজার খেলে মৃত্যু পর্যন্ত হতে পারে। আর এ বার এমনই হল রাশিয়ার একটি গ্রামে। মদের বদলে স্যানিটাইজার খেয়ে মৃত্যু হল সাত জনের। কোমায় রয়েছেন আরও দু'জন।

পূর্ব রাশিয়ার ইয়াকুতিয়া অঞ্চলের একটি গ্রামে এক বাড়িতে কয়েকদিন আগে একটি পার্টির আয়োজন করা হয়েছিল। যেখানে মদের বদলে পান করার জন্য স্যানিটাইজার আনা হয়। একটি লেবেল ছাড়া বোতলে রাখা হয়েছিল হ্যান্ড স্যানিটাইজার। পার্টি চলাকালীন সেটিকে মদ হিসেবে পান করে ওই ন'জন। বিষক্রিয়ায় ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয় একজনের। বাকিদের দ্রুত হাসপাতালে নিয়ে গেলেও শেষরক্ষা হয় না। হাসপাতালে মৃত্যু হয় আরও ছ'জনের। দু'জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক। রয়েছেন কোমায়। তাঁদের বাঁচানোর চেষ্টা চালাচ্ছেন চিকিৎসকরা। দেওয়া হয়েছে ভেন্টিলেশনেও। চিকিৎসকরা জানাচ্ছেন, এই দু'জনকে বাঁচানোই এখন বড় চ্যালেঞ্জ।

এ বিষয়ে রাশিয়ার তদন্তকারী সংস্থার তরফে জানানো হয়েছে, নিটকবর্তী একটি দোকান থেকেই তাঁরা পাঁচ লিটারের স্যানিটাইজারের বোতলটি কিনেছিলেন। যা ওই বাড়িতে পাওয়া যায় পরে। তাতে থাকা অ্যালকোহল পরীক্ষা করে দেখা যায়, ৬৯ শতাংশ মিথানল রয়েছে। যা শরীরের জন্য অত্যন্ত ক্ষতিকর। মিথানল খেলে মৃত্যু অনিবার্য।

মিথানল বা কম দামের অ্যালকোহল খাওয়া থেকে বিরত থাকতে প্রচার চালানো হলেও রাশিয়ার গ্রামে গ্রামে এই ধরনের ঘটনা ঘটে। গরিব এলাকাগুলিতে নেশার জন্য মানুষজন কম দামে অ্যালকোহল বা বর্তমানে হ্যান্ড স্যানিটাইজার পান করেন। তাই এই ঘটনা এই এলাকায় প্রথম নয়। প্রসঙ্গত, ২০১৬ সালে সাইবেরিয়ার ইরকুতস্কে বাথ লোশন খেয়ে বিষক্রিয়ায় মৃত্যু হয়েছিল ৭৮ জনের। ওই বাথ লোশনেও মিথানল ছিল বলে জানা যায়। তবে, এই ঘটনার পর রবিবার রাশিয়ার বেশ কয়েকটি জায়গায় মিথানলযুক্ত স্যানিটাইজার বিক্রি বন্ধ করেছে প্রশাসন। পাশাপাশি ইয়াকুতিয়ায় এক সপ্তাহ কোনও রকম অ্যালকোহল বিক্রি নিষিদ্ধ করেছে সেখানকার প্রশাসন। এ বিষয়ে তদন্ত চলছে। কোথায় তৈরি হচ্ছে এই ধরনের স্যানিটাইজার, কারাই বা বিক্রি করছে- তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। পাশাপাশি সচেতনতামূলক প্রচার চলছে ওই এলাকায়।

Published by:Siddhartha Sarkar
First published: