শুধু ট্রেনের দৈর্ঘ্যই ছিল ২৫ ফুট, যুবরানি ডায়ানার সেই বিয়ের পোশাক আসতে চলেছে লোকচক্ষুর সামনে!

শুধু ট্রেনের দৈর্ঘ্যই ছিল ২৫ ফুট, যুবরানি ডায়ানার সেই বিয়ের পোশাক আসতে চলেছে লোকচক্ষুর সামনে!

শুধু ট্রেনের দৈর্ঘ্যই ছিল ২৫ ফুট, যুবরানি ডায়ানার সেই বিয়ের পোশাক আসতে চলেছে লোকচক্ষুর সামনে!

ডায়ানা আজ পর্যন্ত যে যে পোশাক পরেছেন তার মধ্যে বহুচর্চিত হল তাঁর তাফেতা বিয়ের পোশাক বা গাউন। আজ পর্যন্ত রাজপরিবারে যে ক'টা বিয়ে হয়েছে, তার মধ্যে সব চেয়ে লম্বা ছিল ডায়ানার গাউনের ট্রেন।

  • Share this:

#ইংল্যান্ড: এই পৃথিবীতে কিছু মানুষ আছেন, যাঁরা মৃত্যুর পরেও মানুষের মনে এবং মননে দীর্ঘ দিন থেকে যান। যাঁদের মধ্যে অন্যতম হলেন যুবরানি ডায়ানা (Princess Diana)। রাজবধূ হয়েও প্রাসাদের গণ্ডি ছেড়ে বেরিয়ে এসেছিলেন তিনি। মিশে গিয়েছিলেন জনসাধারণের সঙ্গে। তাঁর সেবামূলক কাজ এবং মিষ্টি ব্যবহার মন জয় করে নিয়েছিল আপামর ইংল্যান্ডবাসীর। ডায়ানাকে মানুষ মনে রেখেছে একজন ফ্যাশন আইকন হিসেবেও। রাজপরিবারের মহিলা সদস্যরা মূলত একই রকমের বা একই ধাঁচের পোশাক পরতেন। ডায়ানা সেই প্রথা ভেঙে দিয়ে নিজস্ব ফ্যাশন আইডেন্টিটি গড়ে তোলেন। বিশ্বের তাবড় ফ্যাশন ডিজাইনাররা আজও স্বীকার করেন যে যুবরানি সব অর্থেই একজন প্রকৃত ডিভা ছিলেন। ডায়ানা আজ পর্যন্ত যে যে পোশাক পরেছেন তার মধ্যে বহুচর্চিত হল তাঁর তাফেতা বিয়ের পোশাক বা গাউন।

এই গাউন ডিজাইন করেছিলেন ব্রিটিশ ডিজাইনার ডেভিড ও এলিজাবেথ ইমানুয়েল। ১৯৮১ সালে প্রিন্স অফ ওয়েলস অর্থাৎ রাজকুমার চার্লসের (Prince Charles) সঙ্গে বিয়ের সময় এই পোশাক পরেছিলেন ডায়ানা। অপূর্ব এই গাউন তাঁর ডিজাইন ও লুকের জন্য সেই সময় খবরের শিরোনামে এসেছিল। এই গাউনের অন্যতম বৈশিষ্ট্য ছিল এর পিছনের অংশ বা ট্রেন। এটি এতটাই দীর্ঘ ছিল যে বলা হয়, আজ পর্যন্ত রাজপরিবারে যে ক'টা বিয়ে হয়েছে, তার মধ্যে সব চেয়ে লম্বা ছিল ডায়ানার গাউনের ট্রেন।

ইংল্যান্ডের কেনিংস্টন প্যালেসে কিছু দিনের মধ্যেই এই গাউন সর্বসাধারণের জন্য প্রদর্শিত হবে। এর আগে ১৯৯৫ সালে একই জায়গায় এই গাউন প্রথমবার রাখা হয়েছিল পাবলিক ডিসপ্লের জন্য। ২৫ বছর পর আবার সেই গাউন প্রদর্শিত হতে চলেছে।

এই প্রদর্শনীর মাধ্যমে ইংল্যান্ডের জনতা দেখতে পাবে সেই ঐতিহাসিক গাউনটি যেটি যুবরানি তাঁর বিয়ের দিন পরেছিলেন। তার সঙ্গে থাকবে সিকুইন বসানো দীর্ঘ ট্রেন যা ওই গাউনের সঙ্গে যুক্ত ছিল। শোনা যায় সেন্ট পল ক্যাথিড্রালে যখন ডায়না হেঁটেছিলেন তখন তাঁর গাউনের পিছনে ট্রেনের দৈর্ঘ্য ছিল ২৫ ফুট।

এই মুহূর্তে গাউনটির দুই উত্তরাধিকারী হলেন প্রিন্স উইলিয়াম (Prince William) ও প্রিন্স হ্যারি (Prince Harry)। বিশ্বের রাজকীয় বিয়ের ইতিহাসে এই গাউন যে অন্যতম সম্পদ সেই বিষয়ে সন্দেহ নেই। এই গাউনে যুক্ত করা ছিল প্রাচীন ক্যারিকম্যাক্রস লেস, যা রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথের দিদিমা মেরির ছিল। অর্থাৎ সব দিক থেকেই এই গাউন নিঃসন্দেহে ঐতিহাসিক!

Published by:Simli Raha
First published:

লেটেস্ট খবর