Afghan girl dancing on airport tarmac: নতুন দেশে পা দিয়ে বিমানবন্দরেই নাচ আফগান বালিকার, গোটা বিশ্বের মন জিতেছে এই ছবি

বেলজিয়াম বিমানবন্দরে সেই ছোট্ট মেয়েটি (Photo-Johana Geron/Reuters)৷

অধিকাংশেরই আশা, বেলজিয়ামে হয়তো একটা ভাল ভবিষ্যৎ অপেক্ষা করে আছে ওই আফগান শিশুটির জন্য ()৷

  • Share this:

    #ব্রাসেলস: বাবা মায়ের হাত ধরে বিমানবন্দরের দিকে ছুটছে কেউ৷ চারপাশের পরিবেশ দেখে ওরাও বুঝতে পারছিল, খুব খারাপ কিছু একটা ঘটছে৷ গত কয়েকদিনে ঘর, বাড়ি, প্রিয়জনকে ছেড়ে অনিশ্চিত ভবিষ্যতের দিকে পা বাড়ানো অগুনতি আফগান শিশুদের মুখ দেখে মন খারাপ হয়ে গিয়েছে গোটা বিশ্বের৷ তার মধ্যেই বেলজিয়াম থেকে উঠে এল ব্যতিক্রমী একটি ছবি৷ যে ছবিতে দেখা যাচ্ছে, নিরাপদ আশ্রয়ে পৌঁছে প্রাণখোলা হাসি নিয়ে বিমানবন্দরের টারম্যাকেই মনের আনন্দে লাফাচ্ছে এক আফগান বালিকা৷ যুদ্ধবিধ্বস্ত দেশ থেকে বাবা-মায়ের সঙ্গে পালিয়ে ওই আফগান বালিকার উচ্ছ্বাস সোশ্যাল মিডিয়ায় রীতিমতো ভাইরাল৷

    আফগানিস্তান থেকে সব দেশই নিজেদের নাগরিকদের ফিরিয়ে নিচ্ছে৷ মানবিকতার খাতিরে এর মধ্যে অনেক দেশই আফগানদেরও আশ্রয় দিচ্ছে৷ সেরকমই একটি আফগান পরিবার দেশ ছেড়ে বেলজিয়ামে পৌঁছেয়৷ ভাইরাল হওয়া ছবিটিতে দেখা যাচ্ছে সম্ভবত নিজের বাবা-মায়ের সঙ্গেই ওই আফগান বালিকা বেলজিয়ামের মেলসব্রোয়েক সামরিক বিমানবন্দরে পৌঁছেছে৷ নিরাপদ আশ্রয়ে পৌঁছনোর আনন্দেই বোধহয় বিমান থেকে নেমে হেঁটে যাওয়ার সময়ই লাফাতে শুরু করে সে৷ রয়টার্সের চিত্রগ্রাহক জোহানা জেরন এই মুহূর্তটি ক্যামেরাবন্দি করেন৷ তার পর দ্রুত সেই ছবি ছড়িয়ে পড়ে ইন্টারনেটে৷ এমন কি, বেলজিয়ামের প্রধানমন্ত্রী গাই ভেরোফস্ট্যাডট নিজেও ওই ছবিটি ট্যুইটারে শেয়ার করে লেখেন, 'শরণার্থীদের আশ্রয় দিতে পারলে এটাই হয়...ছোট্ট মেয়েটিকে বেলজিয়ামে স্বাগত৷' কেউ কেউ আবার বলছেন, এটাই বছরের শ্রেষ্ট ছবি৷

    ছোট্ট আফগান মেয়েটির এই ছবি ইন্টারনেটে বহু মানুষ শেয়ার করেছেন৷ তাঁদের অধিকাংশেরই আশা, বেলজিয়ামে হয়তো একটা ভাল ভবিষ্যৎ অপেক্ষা করে আছে ওই আফগান শিশুটির জন্য৷

    দেশ ছেড়ে নতুন দেশে আশ্রয় পাওয়া মেয়েটি বা তার বাবা-মাও হয়তো জানেন না, ভবিষ্যতে তাঁরা আর কোনওদিন আফগানিস্তানে ফিরতে পারবেন কি না৷ তবু প্রাণে বাঁচতে পারাটাই যেন এখন আফগানদের কাছে এখন সবকিছুর ঊর্ধ্বে৷ ছোট্ট শিশুটিও বোধ হয় সেটা বুঝতে পেরেছে৷ তালিবান শাসনে গত কয়েকদিনে ভয়ে কাঁটা হয়ে থাকা ছোট্ট মনটা নতুন দেশে পা দেওয়ার পর মুক্তির স্বাদ পেয়েই হয়তো আনন্দে নেচে উঠেছে৷ আফগানিস্তানের সব শিশুর মুখেই এই নাম না জানা আফগান মেয়েটির মতো হাসি দেখতে চায় বিশ্ববাসী৷ সময়ই বলবে, তা আদৌ সম্ভব কি না৷

    Published by:Debamoy Ghosh
    First published: