বিদেশ

corona virus btn
corona virus btn
Loading

সমুদ্রে প্রায়ই ভেসে আসছে সোনা-রুপোর গয়না! রহস্যে মোড়া গ্রামের গল্পে তোলপাড় বিশ্ব

সমুদ্রে প্রায়ই ভেসে আসছে সোনা-রুপোর গয়না! রহস্যে মোড়া গ্রামের গল্পে তোলপাড় বিশ্ব
Photo Source: Twitter

ভেনেজুয়েলার অর্থনৈতিক হাল এমনিতেই অত্যন্ত করুণ৷ তার ওপর করোনায় প্রায় ধসে গিয়েছে অনাহার ও অর্থকষ্টে কাটা দেশটি৷ ক্যারিবিয়ান সমুদ্র উপকূলে এই সোনা-রূপা ভেসে আসার ঘটনাকে ওখানকার মানুষ ঈশ্বরের আশীর্বাদ মনে করছেন৷

  • Share this:

#কারাকাস: সালটা ২০২০৷ চেয়েও ভোলা যাবে না বছরটাকে৷ শুধুই করোনা মহামারীর জন্য 'বিষ' সাল মনে থেকে যাবে না৷ বেশ কিছু অদ্ভুত ও রহস্যজনক ঘটনা এই একটা বছরেই দেখে নিচ্ছে বিশ্ব৷ তেমনই এক বিচিত্র ঘটনার সাক্ষী লাতিন আমেরিকার ছোট্ট দেশ ভেনেজুয়েলা ৷ সেখানকার ছোট্ট মৎসজীবী গ্রাম গুয়াকার সমুদ্রতটে প্রায়ই ভেসে আসছে সোনা-রূপার গয়না এবং ছোট ছোট সোনার তাল৷ গত সেপ্টেম্বর থেকেই গুয়াকার গ্রামবাসীরা এই ঘটনা প্রত্যক্ষ করে আসছে ৷ এমনটাই রিপোর্ট দ্য ডেইলি মেলের ৷

ভেনেজুয়েলার অর্থনৈতিক হাল এমনিতেই অত্যন্ত করুণ৷ তার ওপর করোনায় প্রায় ধসে গিয়েছে অনাহার ও অর্থকষ্টে কাটা দেশটি৷ ক্যারিবিয়ান সমুদ্র উপকূলে এই সোনা-রূপা ভেসে আসার ঘটনাকে ওখানকার মানুষ ঈশ্বরের আশীর্বাদ মনে করছেন৷ গুয়াকার বছর পঁচিশের বাসিন্দা ইয়োলম্যান ল্যারেস মাতা মেরির খোদাই করা একটা ছবি পেয়েছিলেন গত সেপ্টেম্বরে৷ দ্য নিউ ইয়র্ক টাইমসকে তিনি বলেছেন, "আমি বিশ্বাস করতে পারছি না এমনটা হতে পারে৷ আমি আনন্দে কেঁদে ফেলেছি ৷ উত্তেজনায় কেঁপেছি৷ এই প্রথমবার আমার সঙ্গে এরকম কিছু ঘটল ঈশ্বরের কৃপায়৷"

ল্যারেস এই ঘটনা নিজের পরিবারের মানুষের সঙ্গে প্রথম ভাগ করে নিয়েছিলেন৷ তারপর গোটা বিশ্ব এই গ্রামের গল্প জেনে যায়৷ এরপর ২০০০ গ্রামবাসী ওই সমুদ্রের উপকূলে গুপ্তধনের সন্ধানে হাত লাগান৷ অদ্ভুত ব্যাপার হলো যে, প্রায় ১২ জন গ্রামবাসী একটা করে হলেও অত্যন্ত দামী কিছু পেয়েছেন ওই সমুদ্র থেকে ৷ কেউ কেউ আবার সোনার আংটিও পেয়েছেন৷ এখনও পর্যন্ত প্রায় উদ্ধার হয় সোনাদানা বিক্রি করে প্রায় ১৫০০ মার্কিন ডলার উপার্জন করেছে গ্রামবাসী৷ এটাকে নিছকই মিরাক্যাল বলছেন অনেকে৷ শেষ কয়েক মাসে গ্রামবাসীদের ভাগ্যের চাকাটাই ঘুরে গিয়েছেন৷ এক মৎস্যজীবী বলছেন, "যা হচ্ছে সবটাই ভগবানের ইচ্ছায় "৷

Subhapam Saha

Published by: Siddhartha Sarkar
First published: December 15, 2020, 3:19 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर