Malala Yousafzai : ‘Vogue’ এর প্রচ্ছদে নোবেলজয়ী মালালা, কথা বলেছেন ম্যাকডোনাল্ডস থেকে পোকার নিয়ে! দেখুন সাক্ষাৎকার...

ভোগের 'কভার গার্ল' মালালা! Photo : Collected

২৩ বছরের সমাজকর্মী, বিশ্বের সর্বকনিষ্ঠ নোবেল শান্তি পুরস্কার প্রাপক মালালার ((Malala Yousafzai) একটি সাক্ষাৎকার প্রকাশিত হয়েছে ঐতিহ্যশালী এই পত্রিকায়। ভোগ ম্যাগাজিনের এই বিশেষ সংখ্যায় দেওয়া সাক্ষাৎকারে সংখ্যায় উঠে এসেছে অক্সফোর্ডের জীবনের নানা গল্প।

  • Share this:

    #অক্সফোর্ড : ব্রিটিশ ভোগ (Vogue Magazine) ম্যাগাজিনের জুলাই সংখ্যার প্রচ্ছদে এবার দেখা গেল বড়সড় চমক। নোবেল পুরস্কারজয়ী পাকিস্তানি মালালা ইউসুফজাই (Malala Yousafzai) এর ছবি দেখা গেল পত্রিকার কভার পেজে। সঙ্গে ২৩ বছরের সমাজকর্মী, বিশ্বের সর্বকনিষ্ঠ নোবেল শান্তি পুরস্কার প্রাপক মালালার ((Malala Yousafzai) একটি সাক্ষাৎকার প্রকাশিত হয়েছে ঐতিহ্যশালী এই পত্রিকায়। ফ্যাশন এবং জীবনধারা সংক্রান্ত পত্রিকা ভোগ। খ্যাতনামীরা ছাড়াও সম্প্রতি সেখানে জায়গা করে নিয়েছেন বিভিন্ন ক্ষেত্রে উল্লেখযোগ্য ব্যক্তিত্বরা। মালালার আগে ভোগের প্রচ্ছদে জায়গা করে নিয়েছিলেন কেরলের প্রাক্তন স্বাস্থ্যমন্ত্রী কেকে শৈলজা এবং মধ্যপ্রদেশের আদিবাসী মহিলা সীতা বসুনিয়া।

    নিজের ট্যুইট বার্তায় মালালা নিজেই ভোগের প্রচ্ছদটি শেয়ার করেছেন বলে বুধবার পাকিস্তানের সংবাদমাধ্যম ডন একটি প্রতিবেদনে জানিয়েছে। ক্যাপশনে মালালা লিখেছেন, ‘যখন সুনির্দিষ্ট লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য থাকে, তখন একজন তরুণীর হৃদয়ের শক্তি আমি উপলব্ধি করতে পারি এবং আমি আশা করব, প্রচ্ছদটি দেখা প্রতিটি তরুণী নিজের মধ্যে উপলব্ধি করবেন তাঁদের মধ্যে বিশ্বকে পাল্টে দেওয়ার শক্তি রয়েছে।’

    লাল-সাদা-নীল তিনরঙের পোশাকে সেজে ভোগ-এর প্রচ্ছদ কন্যা হলেন মালালা। আলোকচিত্রী নিক নাইট মালালার ছবিটি তুলেছেন। একদম নিখাদ পাকিস্তানি কন্যার সাজেই পাওয়া গেল মালালা কে,পরনে সালোয়ার কামিজ, মাথা ওড়না দিয়ে ঢাকা- কোনওকিছুতেই নিজের শিকড়ের টান ভোলেন না অক্সফোর্ডের এই কৃতি ছাত্রী। তাঁকে নিয়ে লিখেছেন সাংবাদিক শিরিন ক্যালে। ভোগ ম্যাগাজিনের সম্পাদক এডওয়ার্ড মালালার এই শ্যুটের ঝলক প্রকাশ্যে এনে জানান, ‘আমি যাঁদের মন থেকে অনুসরণ করে চলি, সেই তালিকায় একদম উপরে রয়েছেন মালালা ইউসুফজাই’।

    ভোগ ম্যাগাজিনের এই বিশেষ এডিশনে দেওয়া সাক্ষাৎকারে মালালাও অনেক কথা বলেছেন। বলেছেন, অক্সফোর্ড ইউনিভার্সিটিতে পড়ার সময় প্রতিটি মুহূর্তকে তিনি চুটিয়ে উপভোগ করেছেন। কখনও তিনি ম্যাকডোনাল্ডে ঢুঁ মেরেছেন কিংবা খেলেছেন পোকার। কলেজজীবনে বেশকিছুটা সময় নিজের মতো কাটিয়েছেন জানান মালালা। একথাও বলেন, বার্কিংহাম স্কুলে পড়াশোনার সময় খ্যাতি তাঁর বড় বিড়ম্বনা ছিল। তিনি বলেছেন, লোকজন আমাকে দেখলেই জানতে চাইতেন এমা ওয়াটসন, অ্যাঞ্জেলিনা জোলি অথবা বারাক ওবামার সঙ্গে সাক্ষাতের মুহূর্তগুলো কেমন ছিল। মালালা যোগ করেন, ‘আমি ভেবে পাই না কী বলব, বিশ্রী এক ব্যাপার, কারণ স্কুলের বাইরে আমাকে অনেকে ছাত্রী বা বন্ধু হিসেবে দেখে থাকে। আমি সবাইকে একটা কথাই বলতে চাই প্রত্যেকের সংস্কৃতির মধ্যে থেকেও নিজস্ব কণ্ঠস্বর প্রকাশ করতে পারলে তবেই বৈষম্যহীন পরিবেশ তৈরি করা সম্ভব’।

    Published by:Sanjukta Sarkar
    First published: