Jaya Ahsan : ‘সিগারেট খাও, নাকি কিঞ্চিৎ কালো ঠোঁট’? ফের আজব ট্রোলের শিকার জয়া আহসান...

ট্রোলের শিকার জয়া

Jaya Ahsan : সোমবারের সকাল সকাল মর্নিং গ্লো দেখিয়ে সাদা থ্রি কোয়ার্টার শার্ট আর নীল প্রিন্টেড ডঙ্গরি পরে ছবি দিয়েছিলেন জয়া। সঙ্গে পায়ে ছিল সাদা স্নিকার্স। চুল মাথার ওপরে টপ নট করে বাঁধা।

  • Share this:

    #কলকাতা : দুই বাংলায় সমান জনপ্রিয় ও চর্চিত অভিনেত্রী তিনি। রূপে ও গুনে তাঁকে টেক্কা দেয় টলিপাড়ায় এমন মুখ হাতে গোনা। বয়স যাই হোক, দেখে এখনও তাঁকে কলেজ স্টুডেন্টই মনে করেন জয়া আহসানের অনুরাগীরা। এহেন ডাকসাইটে অভিনেত্রীকেও কিন্তু ছাড়ে না সোশ্যাল মিডিয়ার ট্রোলাররা। নেট-মাধ্যমে ছবি দিলেই নানান প্রশ্ন ও কদর্য মন্তব্যের মুখোমুখি হতে হয় জয়া-কে।

    View this post on Instagram

    A post shared by Jaya Ahsan (@jaya.ahsan)

    এদিন সোমবারের সকাল সকাল মর্নিং গ্লো দেখিয়ে সাদা থ্রি কোয়ার্টার শার্ট আর নীল প্রিন্টেড ডঙ্গরি পরে ছবি দিয়েছিলেন জয়া। সঙ্গে পায়ে ছিল সাদা স্নিকার্স। চুল মাথার ওপরে টপ নট করে বাঁধা। মিনিমাল মেকআপের সঙ্গে ডার্ক ব্রাউন রঙের লিপস্টিক পরেছিলেন অভিনেত্রী। আর তাতেই এই কটাক্ষ। এক নেট-নাগরিক লিখেছেন, ‘সিগারেট খাও নাকি! কিঞ্চিৎ কালো ঠোঁট’। প্রসঙ্গত, জয়া এই ছবি শেয়ার করে ক্যাপশনে লিখেছিলেন, ‘চারপাশের নিস্তব্ধতার মাঝে এখনও কেউ কেউ জীবনের শান্তি খুঁজে পায়।’

    পদ্মা-পাড়ের অভিনেত্রী জয়া আহসানের অভিনয় দক্ষতা বাংলার দর্শকদের ইতিমধ্যেই মন জয় করেছে। ভারতীয় একধিক জনপ্রিয় ছবিতে কাজ করেছেন তিনি। ‘ঈগলের চোখ’, ‘রাজকাহিনী’, ‘বিসর্জন’, ‘দেবী’, ‘বিজয়া’, ‘কণ্ঠ’-দিয়ে মন জয় করেছেন বাংলার মানুষের। কেরিয়ার শুরু করেছিলেন বাংলাদেশের ঢাকায় মডেলিং দিয়ে। ২০০৪ সালে পরিচালক মোস্তফা সরয়ার ফারুকীর 'ব্যাচেলর' ছবি দিয়ে অভিনয়ের দুনিয়ায় পা রাখেন জয়া। পরবর্তীকালে নাসির উদ্দিন ইউসুফ পরিচালিত 'গেরিলা' ছবিতে বিলকিস বানু চরিত্রে অভিনয় করে ২০১২ সালে ঢাকা আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবে সেরা অভিনেত্রীর পুরস্কার পান জয়া। তারপর আর ফিরে তাকাতে হয়নি। এরপর তো ভারতেও ঘাঁটি গেড়েছেন।সামাজিক মাধ্যমে প্রায়শই নিজের ছবি পোস্ট করে থাকেন অভিনেত্রী। রোজনামচার টুকটাক তুলে ধরেন সকলের জন্য। ট্রোলারদের পাত্তা দেন না একেবারেই।

    Published by:Sanjukta Sarkar
    First published: