Home /News /international /
War in Ukraine: রণভূমি ইউক্রেন ছেড়ে পড়শি দেশে একাই পাড়ি দিয়ে নজর কাড়া সেই বালকের পরিণতি কী হল?

War in Ukraine: রণভূমি ইউক্রেন ছেড়ে পড়শি দেশে একাই পাড়ি দিয়ে নজর কাড়া সেই বালকের পরিণতি কী হল?

তার অসমসাহসি কাজে মুগ্ধ হয়ে গিয়েছিল সারা বিশ্ব

তার অসমসাহসি কাজে মুগ্ধ হয়ে গিয়েছিল সারা বিশ্ব

War in Ukraine: শীর্ষ সংবাদমাধ্যমে জায়গা করে নিয়েছিল ছোট্ট হ্যাসানের নিষ্পাপ অথচ নির্ভীক মুখ

  • Share this:

    ভিন দেশের বাসিন্দা আত্মীয়ের ফোন নম্বর হাতে লিখে দিয়েছিলেন মা৷ সেটা সম্বল করে একাই ৭৫০ মাইল পাড়ি দিয়েছিল ১১ বছর বয়সি ইউক্রেনীয় বালক, হ্যাসান পিসেককা (War in Ukraine)৷ ইউক্রেনে তার নিজের শহর জাপোরিঝঝিয়া থেকে সে পৌঁছছিল স্লোভাকিয়ার রাজধানী ব্রাতিস্লাভায়৷ তার অসমসাহসি কাজে মুগ্ধ হয়ে গিয়েছিল সারা বিশ্ব৷ শীর্ষ সংবাদমাধ্যমে জায়গা করে নিয়েছিল ছোট্ট হ্যাসানের নিষ্পাপ অথচ নির্ভীক মুখ৷

    রুশ আক্রমণ থেকে সন্তানকে বাঁচাতে তাকে একাই রওনা করিয়ে দিয়েছিলেন হ্যাসানের মা ইউলিয়া পিসেটসকায়া৷ ইউলিয়া নিজে যেতে পারেননি৷ কারণ অসুস্থ মায়ের দেখভালের জন্য তাঁকে থেকে যেতে হয়েছিল ইউক্রেনেই৷ তাই হ্যাসান একাই দীর্ঘ পথ পাড়ি দিয়ে পৌঁছেছিল পড়শি দেশ স্লোভাকিয়ায়৷ সম্বল বলতে ছিল প্লাস্টিকের ব্যাগ, পাসপোর্ট এবং হাতে লিখে দেওয়া আত্মীয়ের ফোন নম্বর৷ পরে স্লোভানিয়ায় ওই আত্মীয়ের বাড়িতেও পৌঁছ যায় হ্যাসান৷ অবশেষে বিচ্ছেদের পর আবার মায়ের সঙ্গে দেখা হল হ্যাসানের৷ বড় দাদা দিদি, মা এবং দিদিমার সঙ্গে আবার পুরনো পরিবারে একত্রিত হতে পেরেছে পিতৃহীন হ্যাসান৷ সঙ্গে রয়েছে তাদের আদরের পোষ্যও৷ তবে ইউক্রেনে নয়৷ আপাতত তাদের পরিবার আছে স্লোভাকিয়াতেই৷

    আরও পড়ুন : চৈত্রের তপ্ত দুপুরে খান কাঁচা আম, সুস্থ থাকুন বছরভর

    হ্যাসানের মা ইউলিয়া জানিয়েছেন তাঁদের সর্বস্ব হারিয়ে গিয়েছে যুদ্ধে৷ আবার শুরু করতে হবে শূন্য থেকে৷ তবে তাঁরা যে সুস্থ আছেন, সেটাই বড় পাওয়া বলে মনে করছেন ইউলি্য়া৷ অবশ্য এবারই প্রথম নয়৷ কিছু বছর আগে সন্তানদের নিয়ে সিরিয়া ছেড়ে পালিয়ে এসেছিলেন তিনি৷ স্বামীকে ছেড়ে আসতে হয়েছিল সিরিয়াতেই৷

    আরও পড়ুন : যৌন সম্পর্কে অনীহা? যৌন ক্ষমতা বৃদ্ধি করতে ডায়েটে রাখুন এই খাবারগুলি

    মাকে নিজের কাছে ফিরে পেয়ে আপাতত খুদে হ্যাসনও ভবিষ্যৎ নিয়ে ভাবছে না৷ সে শুধু নিরাপদে পরিবারের বাকিদের সঙ্গে নিশ্চিন্তে দিন কাটাতে চায়৷

    Published by:Arpita Roy Chowdhury
    First published:

    Tags: Russia, Ukraine, War in Ukraine

    পরবর্তী খবর