ভ্যালেন্টাইন'স ডে-তে লক্ষ্য সমাজ সচেতনতা, জল পরিশোধনাগার দেখতে আগ্রহী নিউ ইয়র্ক

ভ্যালেন্টাইন'স ডে-তে লক্ষ্য সমাজ সচেতনতা, জল পরিশোধনাগার দেখতে আগ্রহী নিউ ইয়র্ক
১৪ ফেব্রুয়ারি নিউ ইয়র্কের অধিকাংশ বাসিন্দা জল পরিশোধনাগার ঘুরে দেখতে আগ্রহী

১৪ ফেব্রুয়ারি নিউ ইয়র্কের অধিকাংশ বাসিন্দা জল পরিশোধনাগার ঘুরে দেখতে আগ্রহী

  • Share this:

#নিউ ইয়র্ক: রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর লিখেছিলেন, ভালোবাসা যদি শুধুই দু'জনের মধ্যে সীমাবদ্ধ হয়ে থাকে, তবে তার দমবন্ধ করা ভাব এক সময়ে দুই পক্ষকেই অস্থির করে তোলে! তাই ভালোবাসার ব্যক্তিগত হওয়ার পাশাপাশি একটা বিশ্বজনীন দিকও থাকা ভালো! দেখা গেল, চলতি বছরের ভ্যালেন্টাইন'স ডে-তে সেই লক্ষ্যেই পদক্ষেপ করছে নিউ ইয়র্ক সিটি। রোম্যান্টিকতা আর সমাজ সচেতনতাকে মিশিয়ে নিয়েছে এক খাতে। যে কারণে ১৪ ফেব্রুয়ারি ওখানকার অধিকাংশ বাসিন্দা জল পরিশোধনাগার ঘুরে দেখতে আগ্রহী!

এই প্রসঙ্গে বলে রাখা ভালো, ভ্যালেন্টাইন'স ডে-তে নিউ ইয়র্কের জল পরিশোধনাগারের ভ্রমণ কিন্তু অনেক বছরের জনপ্রিয় এক প্রথা। নিউ ইয়র্কের নিউটাউন ক্রিক ওয়েস্টওয়াটার ট্রিটমেন্ট প্লান্ট প্রতি বছরেই যুগলদের জন্য এই ট্যুরের আয়োজন করে থাকে। তবে এই বছরে সেই আয়োজন হচ্ছে ভার্চুয়ালি। দেখা যাচ্ছে যে তাতেও যুগলদের আগ্রহের খাতে বিন্দুমাত্র ভাটা পড়েনি। ৫ ডলার দিয়ে টিকিট কেটে অনেকেই এই ভার্চুয়াল ট্যুরে অংশ নিতে চাইছেন। নিউ ইয়র্ক সিটি ডিপার্টমেন্ট অফ এনভায়রনমেন্টাল প্রোটেকশন এবং ওপেন হাউজ নিউ ইয়র্কের তরফে এর মধ্যেই টিকিট বিক্রি শুরু হয়ে গিয়েছে।

পরিকল্পনা অনুযায়ী, ১৪ ফেব্রুয়ারি বিকেল সাড়ে চারটে থেকে বিকেল সাড়ে পাঁচটা পর্যন্ত এই একঘণ্টার ভার্চুয়াল ট্যুরে জল পরিশোধন-সংক্রান্ত নানা কিছু জানতে পারবেন যোগদানকারীরা। তাঁদের দেখানো হবে যে কী ভাবে বাড়ি থেকে বেরিয়ে আসা নোংরা জল পরিস্রুত করে তা ফের ব্যবহারের যোগ্য করে তোলা হয়! আরও নানা চমকপ্রদ ব্যাপার সম্পর্কেও তাঁদের অবহিত করে তুলবে এই ভার্চুয়াল ট্যুর। তাঁদের বোঝানো হবে যত্ন নিয়ে- কেন মুষলধারে বৃষ্টি পড়লে তাতে স্নান করা ঠিক কাজ নয়! সব সেমিনারের শেষের দিকে যে রীতি মনে চলা হয়, এখানেও তার ব্যতিক্রম হবে না। থাকবে প্রশ্নোত্তর পর্ব। চাইলে অংশগ্রহণকারীরা আলাপ-আলোচনার মাধ্যমে নিজেদের সব সংশয় দূর করে নিতে পারেন!


এর আগে প্রকাশিত নানা সমীক্ষা জানিয়েছিল যে মার্কিন মুলুকে পানীয় জলের অভাব বেশ তীব্র, তাই নানা প্রকল্পের মাধ্যমে দূষিত জলকে ব্যবহারযোগ্য করে তোলারপ্রয়াস চলছে। ব্যক্তিপ্রেমের পাশাপাশি চলতি বছরের ভ্যালেন্টাইন'স ডে যে সমাজপ্রেমেরও দৃষ্টান্ত হয়ে থাকতে চলেছে ওই দেশে, তা সত্যি তারিফ করার মতো!

Published by:Rukmini Mazumder
First published: