বিদেশ

corona virus btn
corona virus btn
Loading

৯টা নয়, সৌরজগতে গ্রহ আছে আদতে ১০টা? এ কী বলছেন বিজ্ঞানীরা?

৯টা নয়, সৌরজগতে গ্রহ আছে আদতে ১০টা? এ কী বলছেন বিজ্ঞানীরা?

সূর্য এবং তার চার পাশে থাকা গ্রহদের এই বিন্যাস নিয়ে পরীক্ষা করতে গিয়েই এখন বিজ্ঞানীরা বলছেন যে সৌরজগতে না কি ১০টি গ্রহ থাকার কথা!

  • Share this:

#নয়াদিল্লি: সৌরজগৎ, ইংরেজিতে যাকে বলা হয়ে থাকে সোলার সিস্টেম, সে তো রহস্যে পরিপূর্ণ বটেই! এক নক্ষত্রকে কেন্দ্র করে পাক খেয়ে চলেছে গ্রহেরা কোন নিয়ন্ত্রক শক্তিতে, তা এখনও পুরোপুরি বুঝে ওঠা সম্ভব হয়নি আমাদের পক্ষে। স্রেফ অভিকর্ষজ শক্তি বলেই ব্যাপারটাকে ছাড় দিয়ে রাখতে হয়েছে। তার উপরে আবার আছে এই বিন্যাস কী ভাবে তৈরি হল, সেই বিষয়টাও! সে নিয়েও নিরন্তর একের পর এক গবেষণা চলছে তো চলছেই!

সূর্য এবং তার চার পাশে থাকা গ্রহদের এই বিন্যাস নিয়ে পরীক্ষা করতে গিয়েই এখন বিজ্ঞানীরা বলছেন যে সৌরজগতে না কি ১০টি গ্রহ থাকার কথা! এত দিন পর্যন্ত আমরা জানতাম যে সূর্যকে নিজের নিজের অক্ষপথে প্রদক্ষিণ করে চলেছে মোট ৯টি গ্রহ। তার পর যখন প্লুটোকে গ্রহের তালিকা থেকে বাদ দেওয়া হল, তখন সংখ্যাটা নেমে এল ৮-এ!

তা-ই যদি হয়, তা হলে সৌরজগতে থাকা গ্রহের সংখ্যা ১০ হয় কী করে? মানে অতিরিক্ত দুই গ্রহের অস্তিত্ব কী ভাবে খুঁজে পাচ্ছেন বিজ্ঞানীরা?

এই জায়গায় এসে জানিয়ে রাখা ভালো যে বিজ্ঞানীরা এখনও এই অতিরিক্ত গ্রহগুলো খুঁজে পাননি। তাঁরা সৌরজগতের বর্তমান গ্রহগুলোর অক্ষপথ নিয়ে গবেষণা করতে গিয়ে এই অনুমানে উপনীত হয়েছেন মাত্র। তাঁদের ধারণা বলছে যে এই দুই অতিরিক্ত গ্রহ সৌরজগতের এই বিন্যাস তৈরি হওয়ার সময়ে ছিটকে বেরিয়ে গিয়েছিল। ফলে বর্তমানে তাদের শীতল এবং মৃত অবস্থাতেই থাকার কথা!

ম্যাট ক্লেমেন্ট, যিনি এই গবেষণাপত্রটি লিখেছেন, তিনি একটু ব্যাখ্যা করে বলেছেন নিজের অনুমানের কথা। তাঁর মতে, এই গ্রহগুলোর অক্ষপথের আকার এত দিন পর্যন্ত আমরা ঈষৎ ডিম্বাকার ভাবতাম, কিন্তু আমাদের সেই ধারণা ঠিক নয়। তাদের আকার প্রকৃত পক্ষে কী রকম, তা নিয়েই গবেষণা করছেন তিনি। আর সেই গবেষণা করতে গিয়েই তাঁর মনে হয়েছে যে ইউরেনাস আর নেপচুনের মাঝে একটা কোনও গ্রহ ছিল, যার অভিকর্ষজ শক্তির ফলে এই দুই গ্রহের অক্ষপথ গড়ে ওঠে!

ঠিক এক ভাবে ম্যাট ক্লেমেন্ট স্যাটার্ন এবং ইউরেনাসের মধ্যবর্তী পথেও এক গ্রহ থাকার সম্ভাবনার কথা উল্লেখ করেছেন! তবে তা যে কেবল অনুমানই, সিদ্ধান্তে আসতে যে এখনও অনেক সময় লাগবে, সোও তিনি বিচক্ষণের মতো উল্লেখ করতে ভোলেননি!

Published by: Dolon Chattopadhyay
First published: November 6, 2020, 11:13 AM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर