সাইকেল চালাতে চালাতে পাঁচ বছরের বাচ্চাকে হাঁটু দিয়ে ধাক্কা, জেলে কাটাতে হতে পারে ১ বছর!

সাইকেল চালাতে চালাতে পাঁচ বছরের বাচ্চাকে হাঁটু দিয়ে ধাক্কা, জেলে কাটাতে হতে পারে ১ বছর!

বেশ কিছু রিপোর্ট বলছে, ওই সাইকেল আরোহী নিয়ার বাবা পাসাকে ফোন করেছিল, তবে, ক্ষমা চাইতে নয়। ওই ব্যক্তি পাসাকে পুলিশের কাছ থেকে অভিযোগ তুলে নেওয়ার জন্য চাপ দেয়।

বেশ কিছু রিপোর্ট বলছে, ওই সাইকেল আরোহী নিয়ার বাবা পাসাকে ফোন করেছিল, তবে, ক্ষমা চাইতে নয়। ওই ব্যক্তি পাসাকে পুলিশের কাছ থেকে অভিযোগ তুলে নেওয়ার জন্য চাপ দেয়।

  • Share this:

#ব্রুসেলস: রাস্তা দিয়ে বাবা-মায়ের সঙ্গে আপন মনে হাঁটছিল পাঁচ বছরের শিশু। ঘুরতে বেরিয়ে জঙ্গলের মাঝ পথ দিয়ে হেঁটে বেড়ানো উপভোগ করছিল সে। কিন্তু হঠাৎই সেই রাস্তায় একজন সাইকেল আরোহী চলে আসায় ঘটে বিপত্তি। হাঁটু দিয়ে ওই শিশুকে মেরে বেরিয়ে যায় সে। যার ফলে আদালতের দোড়গোড়ায়ও যেতে হয় সাইকেল আরোহীকে।

ঘটনার সূত্রপাত ২৫ ডিসেম্বর। ছুটির দিন স্ত্রী ও সন্তানদের নিয়ে বেলজিয়ামের বারাকিউ মিশেল নামের একটি পার্কে গিয়েছিলেন প্যাট্রিক পাসা। সেখানেই জঙ্গলের মধ্যে দিয়ে স্ত্রী ও সন্তানের হেঁটে যাওয়ার ভিডিও তুলছিলেন তিনি। তাঁর এক স্ত্রী ও আরেক সন্তান রাস্তার পাশেই ছিলেন। কিন্তু পাঁচ বছরের নিয়া রাস্তার মাঝখান থেকে হাঁটছিল।

ভিডিওটি রেকর্ড করার সময় পাসা একটু দূরেই ছিলেন। কিন্তু ভিডিও করতে করতেই তিনি বুঝতে পারেন, রাস্তায় একজন পিছন থেকে এসে নিয়াকে মেরে বেরিয়ে যাচ্ছে এবং নিয়া নিচে পড়ে যায়। নিয়া পড়ে যাওয়ার পরও সেই সাইকেল আরোহী কোনও ভ্রুক্ষেপ না করেই এগিয়ে যায়।

যেহেতু ভিডিও রেকর্ডিং হয়েছিল তাই পুরো ঘটনাই দেখা যায় স্পষ্ট ভাবে এবং ওই সাইকেল আরোহী কী ভাবে নিয়াকে মেরেছে সেটাও উঠে আসে। দেখা যায়, সাইকেল চালাতে চালাতে হঠাৎই নিয়ার পিছনে এসে হাঁটু এগিয়ে দেয় সে। তার পর নিয়া স্বভাবতই ছিটকে পড়ে যায় মাটিতে।

এই ভিডিওটি পাসা শেয়ার করেন সোশ্যাল মিডিয়ায়। এবং সকলে জিজ্ঞাসা করেন সাইকেল আরোহীর শাস্তির প্রয়োজন কি না। সবাই ঘটনাটির ধিক্কার জানায় এবং ভিডিওটি এত জনপ্রিয় হয় যে খুব শীঘ্রই ওই সাইকেল আরোহীর খোঁজ পাওয়া যায়।

Brussels Times-এর রিপোর্ট অনুযায়ী, সাইকেল আরোহী এর পর নিজেই পুলিশের কাছে গিয়ে বিষয়টির কথা স্বীকার করে। তবে, সে জানায়, বাচ্চা মেয়েটিকে যে সে আঘাত করেছে, সে বিষয়ে তার জানা ছিল না। সে কিছু দিন আগেই জেল থেকে ফিরেছে।

এদিকে, এই ঘটনায় তাকে আদালতে তোলা হয়। সেখানেও সে জানায় একই কথা।

বেশ কিছু রিপোর্ট বলছে, ওই সাইকেল আরোহী নিয়ার বাবা পাসাকে ফোন করেছিল, তবে, ক্ষমা চাইতে নয়। ওই ব্যক্তি পাসাকে পুলিশের কাছ থেকে অভিযোগ তুলে নেওয়ার জন্য চাপ দেয়।

পাসা জানান, সে এমন ভাব করছিল ফোন করে, যেন বিষয়টা খুব স্বাভাবিক। কিছু তেমন ঘটেনি। তবে, এই ঘটনার জন্য আবারও ১ বছরের জেল হতে পারে ওই সাইকেল আরোহীর!

Published by:Piya Banerjee
First published: