Coronavirus: ১০ বছরের নিচের বাচ্চাদের শরীরে করোনা মোকাবিলার শক্তিশালী অ্যান্টিবডি রয়েছে: সমীক্ষা

Coronavirus: ১০ বছরের নিচের বাচ্চাদের শরীরে করোনা মোকাবিলার শক্তিশালী অ্যান্টিবডি রয়েছে: সমীক্ষা

১০ বছরের নিচের বাচ্চাদের শরীরে করোনা মোকাবিলার শক্তিশালী অ্যান্টিবডি রয়েছে, বলছে নয়া সমীক্ষা!

কীসে এই ভাইরাস কেমন কাজ করে বা এই ভাইরাস দমিয়ে রাখতে কী দরকার, তা এখন প্রায় সকলেরই জানা।

  • Share this:

#নিউ ইয়র্ক: করোনা সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়ার শুরু থেকে এখনও পর্যন্ত এই ভাইরাস নিয়ে একাধিক গবেষণা হয়েছে। সমীক্ষার পরিমাণও কম নয়। নতুন ভাইরাসকে চিনতে, তার চরিত্র বুঝতে সময় লাগলেও গবেষক থেকে বিশেষজ্ঞ, চিকিৎসক থেকে স্বাস্থ্যকর্মী, এমনকি সাধারণ মানুষের কাছেও এই ভাইরাস এখন অনেকটাই পরিচিত। কীসে এই ভাইরাস কেমন কাজ করে বা এই ভাইরাস দমিয়ে রাখতে কী দরকার, তা এখন প্রায় সকলেরই জানা। তবুও এর চিকিৎসা ক্ষেত্র-সহ একাধিক বিষয় নিয়েও আজও দ্বন্দ্ব রয়েছে। ফলে সমীক্ষা চলছে।

সম্প্রতি JAMA Network Open-এ প্রকাশিত একটি সমীক্ষা বলছে, ১০ বছরের নিচের বাচ্চাদের শরীরে অ্যান্টিবডি বাকিদের থেকে অনেকটা বেশি মাত্রায় তৈরি হচ্ছে, যার ফলে ১০ বছরের নিচের বাচ্চাদের করোনা সংক্রমণ কম হচ্ছে। সংক্রমণ হলেও তা সে ভাবে প্রভাব ফেলতে পারছে না।

Weill Cornell Medicine-এর গবেষকরা নিউ ইয়র্কে ৩২ হাজার অ্যান্টিবডি পরীক্ষা করেছেন গত বছরের এপ্রিল থেকে অগস্ট পর্যন্ত। যাতে তাঁরা ১২০০ বাচ্চা ও ৩০ হাজার প্রাপ্তবয়স্কদের মধ্যে ইনফেকশন দেখেছেন ১৭ শতাংশ ও ১৯ শতাংশ হারে।

এর পর যে ৮৫ জন বাচ্চা ও ৩,৬৪৮ জন প্রাপ্তবয়স্ক করোনা আক্রান্ত হয়েছিলেন, তাঁদের উপরে পরীক্ষা করা হয়। তাঁদের শরীরে ইমিউনোগ্লোবিন জি (IgG) অ্যান্টিবডির পরিমাণ দেখা হয়। এই অ্যান্টিবডিই শরীরে করোনার প্রভাব কমায়।

সমীক্ষায় দেখা যায়, ১০ বছরের কম বয়সী ৩২ জনের মধ্যে এই IgG পরিমাণ প্রাপ্তবয়স্কদের থেকে পাঁচগুণ বেশি রয়েছে। বিশেষ করে ১৯ থেকে ২৪ বছরের মধ্যে যাঁদের নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছিল, তাঁদের থেকে তো বেশি আছেই।

তবে, এটাও ঠিক ২৪ বছরের মধ্যে যে ১২৬ জনের করোনা পজিটিভ নমুনা পাওয়া গিয়েছিল, তাঁদের শরীরেও সে ভাবে করোনা প্রভাব ফেলতে পারেনি।

তাই গবেষকরা সিদ্ধান্তে পৌঁছেছেন, বয়ঃসন্ধিতে থাকা বাচ্চাদের থেকে ১০ বছরের নিচে থাকা বাচ্চাদের শরীরে অ্যান্টিবডি অনেক বেশি তৈরি হচ্ছে। ফলে এই বয়সের বাচ্চাদের করোনা আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা কমছে।

এই বিষয়ে সমীক্ষার লেখক বলেন, চিকিৎসা পদ্ধতি থেকে শুরু করে ডোজ, করোনা চিকিৎসার ক্ষেত্রে বাচ্চাদের সঙ্গে প্রাপ্তবয়স্কদের পার্থক্য করছে এই ইমিউন রেসপন্স।

Published by:Raima Chakraborty
First published: