বিদেশ

corona virus btn
corona virus btn
Loading

১৯৭১ সালের পর ভারতে একজনও অনুপ্রবেশ করেনি, দাবি বাংলাদেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর

১৯৭১ সালের পর ভারতে একজনও অনুপ্রবেশ করেনি, দাবি বাংলাদেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর
প্রতীকী ছবি৷ Photo-Reuters

সম্প্রতি পশ্চিমবঙ্গ সফরে এসে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ ফের দাবি করেন, বেআইনি বাংলাদেশি অনুপ্রবেশকারীদের ফেরত পাঠানো হবে৷

  • Share this:

#কলকাতা: ১৯৭১ সালের পর থেকে একজন বাংলাদেশিও ভারতে অনুপ্রবেশ করেনি৷ এমনই দাবি করলেন বাংলাদেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান৷ বৃহস্পতিবার নিউজ ১৮-কে দেওয়া সাক্ষাৎকারে এমনই দাবি করেছেন তিনি৷

সম্প্রতি পশ্চিমবঙ্গ সফরে এসে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ ফের দাবি করেন, বেআইনি বাংলাদেশি অনুপ্রবেশকারীদের ফেরত পাঠানো হবে৷ ভারতের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর এই মন্তব্যেরই জবাব দিয়েছেন আসাদুজ্জামান৷ তিনি বলেন, 'আমি জোরের সঙ্গে দাবি করছি, ১৯৭১ সালের পর থেকে বাংলাদেশ থেকে একজনও বেআইনি ভাবে ভারতে প্রবেশ করেনি৷ ভারত আমাদের খুব ভাল বন্ধু এবং আমি মনে করি এই বিষয়গুলির প্রভাব দুই দেশের সম্পর্কে পড়বে না৷' এনআরসি এবং সিএএ ভারতের অভ্যন্তরীণ বিষয় বলেও মন্তব্য করেছেন তিনি৷

ভারতে বিশেষত পশ্চিমবঙ্গ, অসমের মতো সীমান্তবর্তী রাজ্যগুলিতে এনআরসি এবং সিএএ-এর প্রভাব সবথেকে বেশি পড়ার সম্ভাবনা রয়েছে৷ এ বিষয়ে বাংলাদেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, 'এনআরসি এবং সিএএ নিয়ে আমরা বিন্দুমাত্র ভাবিত নই৷ বাংলাদেশ স্বাধীন হওয়ার পর থেকে বেআইনি ভাবে কেউ ভারতে যাননি৷ দেশভাগের সময় কিছু মানুষ ভারতে চলে গিয়েছিলেন ঠিকই, কিন্তু তার পরে নয়৷'

সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন বা সিএএ খুব শিগগিরই কার্যকর হবে পশ্চিমবঙ্গে এসে দাবি করেছিলেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ৷ আর তা হলে পশ্চিমবঙ্গ, অসমের মতো রাজ্যগুলিতে বাংলাদেশি অনুপ্রবেশকারীদের একটা বড় অংশ সমস্যায় পড়তে পারেন৷ কিন্তু অনুপ্রবেশের অভিযোগই মানতে চাননি আসাদুজ্জামান৷ বাংলাদেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর পাল্টা প্রশ্ন, 'বাংলাদেশের মানুষ কেন ভারতে অনুপ্রবেশ করতে যাবেন? বাংলাদেশ তো একটা গরিব রাষ্ট্র নয় যে সেখান থেকে মানুষ অনুপ্রবেশ করে ভারতে গিয়ে আশ্রয় নেবেন৷ বর্তমানে আমাদের জিডিপি-র বৃদ্ধি এবং মাথা পিছু আয় যথেষ্ট ভাল৷ জীবনধারণের মানও বাংলাদেশে যথেষ্ট উন্নত৷'

বাংলাদেশের সঙ্গে ভারতের ৪০৯৬ কিলোমিটার দীর্ঘ সীমান্ত রয়েছে৷ এর মধ্যে ভারতের দিকে পশ্চিমবঙ্গে (২২১৬.৭ কিমি), অসমে (২৬৩ কিমি), মেঘালয়ে (৪৪৩ কিমি), ত্রিপুরা (৮৫৬ কিমি) এবং মিজোরামে ৯৩১৮ কিমি) সীমান্ত রয়েছে৷ তবে সীমান্তে অপরাধমূলক কার্যকলাপ রুখতে দুই দেশের বাহিনীরই প্রাণঘাতী উপায় অবলম্বন না করে অন্যভাবে সমস্যার সমাধান করা উচিত বলে মনে করেন বাংলাদেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী৷

Sujit Nath

Published by: Debamoy Ghosh
First published: November 20, 2020, 11:01 AM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर