corona virus btn
corona virus btn
Loading

করোনা আতঙ্কের জেরে আজ থেকে বাংলাদেশে বন্ধ স্কুল–কলেজ–বিশ্ববিদ্যালয়

করোনা আতঙ্কের জেরে আজ থেকে বাংলাদেশে বন্ধ স্কুল–কলেজ–বিশ্ববিদ্যালয়
ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় (ফাইল ছবি)

১৮ মার্চ থেকে ২৮ মার্চ পর্যন্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্লাস–পরীক্ষা সাময়িক স্থগিত করা হয়েছে।

  • Share this:

#ঢাকা: ভারতের পর এবার বাংলাদেশেও বন্ধ স্কুল-কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়। করোনা সংক্রমণের আতঙ্কে সোমবার এই বিজ্ঞপ্তি ঘোযণা করেছে বাংলাদেশ সরকার। সোমবার বাংলাদেশের শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী এই তথ্য জানান। পাশাপাশি, শিক্ষার্থীদের গ্রীষ্মকালীন ছুটি এগিয়ে নিয়ে শিক্ষা কার্যক্রম সাময়িক স্থগিত করার কথা ঘোষণা করেছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। ১৮ মার্চ থেকে ২৮ মার্চ পর্যন্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্লাস–পরীক্ষা সাময়িক স্থগিত করা হয়েছে। ৩৬ জন শিক্ষকের মতামতের পরিপ্রেক্ষিতে এই সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়েছে।

করোনা ভাইরাসের সংক্রমন আতঙ্কে ঢাকার শিক্ষা-প্রতিষ্ঠানগুলিতে ক্রমেই উপস্থিতি কমে আসছিল। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়, বুয়েট, চুয়েট-সহ বিভিন্ন শিক্ষা-প্রতিষ্ঠানে শিক্ষার্থীরা ক্লাস বর্জন শুরু করেছেন। বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষকেরাও বিবৃতি দিয়ে ছুটি ঘোষণার দাবি জানিয়েছেন। শিক্ষক, শিক্ষার্থী ও অভিভাবকেরা মত দিয়েছেন, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান দ্রুত বন্ধ করে দেওয়া উচিত। ইতিমধ্যে করোনা–আতঙ্কে স্কুল–কলেজ–বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীদের বড় অংশ ক্লাসে যাওয়া থেকে বিরত থাকছেন।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ৯৬টি বিভাগ ও ইনস্টিটিউটের মধ্যে অন্তত চল্লিশেরও বেশি শিক্ষার্থীরা ক্লাস-পরীক্ষা বর্জন করেছেন। বুয়েটের শিক্ষার্থীরা আগের দিনের মতো গতকালও কোনও ক্লাস করেননি। রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরাও ক্যাম্পাস বন্ধের দাবি জানিয়েছেন। বিশ্ববিদ্যালয়টির গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের সব বর্ষের শিক্ষার্থীরা আজ থেকে অনির্দিষ্টকালের জন্য ক্লাস-পরীক্ষা বর্জনের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।

রাজশাহী প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়েও পড়ুয়াদের উপস্থিতি কম। জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র-ছাত্রীরা আজ থেকে ক্লাস পরীক্ষা বর্জন করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের সব অনুষদের শিক্ষার্থীরাও ক্লাস বর্জনের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।

Published by: Shubhagata Dey
First published: March 16, 2020, 1:25 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर