US- China relations: কনফুসিয়াস প্রতিষ্ঠান নিয়ে সন্দেহ বাড়ছে আমেরিকার

US- China relations: কনফুসিয়াস প্রতিষ্ঠান নিয়ে সন্দেহ বাড়ছে আমেরিকার

কনফুসিয়াস প্রতিষ্ঠান নিয়ে সন্দেহ প্রকাশ আমেরিকার

সম্প্রতি এই প্রতিষ্ঠান নিয়ে সন্দেহ রয়েছে মার্কিন প্রশাসনের অন্দরমহলে। আমেরিকার মাটিতে এই প্রতিষ্ঠান মার্কিন বিরোধী মনোভাব গড়ে তুলছে এমন খবর রয়েছে গোয়েন্দা সংস্থা সিআইএ এর

  • Share this:
    #বেজিং: আজ থেকে আড়াই হাজার বছর আগে চিনের বিখ্যাত দার্শনিক কনফুসিয়াস এমন কিছু পদ্ধতি শিখিয়ে গিয়েছেন যা আজকের যুগেও সমানভাবে গুরুত্বপূর্ণ মানুষের জীবনে। শুধু চিন নয়, ওই দার্শনিকের প্রভাব দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার মানুষের জীবনে দীর্ঘস্থায়ী জায়গা পেয়েছে। রাজনীতি থেকে সংস্কৃতি, অর্থনীতি থেকে কূটনীতি,কনফুসিয়াস বিভিন্ন ক্ষেত্রে নিজের মতবাদ ব্যক্ত করে গিয়েছেন। চন্দ্রগুপ্ত মৌর্যের শাসনকালে তিনি ভারতেও এসেছিলেন। অনেকে মনে করেন কনফুসিয়ান তত্ত্ব এবং চিনের ধার্মিক চিন্তাধারা ভিন্ন নয়।
    চিন যে নিজের দেশে থাকা বৌদ্ধ, ইসলাম এবং খ্রিস্টান ধর্মালম্বীদের ওপর কনফুসিয়ান তত্ত্ব চাপিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করে সেটা অজানা নয়। পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে কনফুসিয়ান ইনস্টিটিউট রয়েছে। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র এর বাইরে নয়। কিন্তু সম্প্রতি এই প্রতিষ্ঠান নিয়ে সন্দেহ রয়েছে মার্কিন প্রশাসনের অন্দরমহলে। আমেরিকার মাটিতে এই প্রতিষ্ঠান মার্কিন বিরোধী মনোভাব গড়ে তুলছে এমন খবর রয়েছে গোয়েন্দা সংস্থা সিআইএ এর কাছে।
    ট্রাম্প জমানায় এমন ইঙ্গিত পাওয়া গিয়েছিল। বাইডেন প্রশাসন মোটেই হালকাভাবে নিতে চায় না এই বিপদকে। ইতিমধ্যেই এই প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন করার উপদেশ দিয়েছেন বাইডেন নিযুক্ত সিআইএ প্রার্থী উয়িলিয়াম বার্নস। সম্প্রতি এই প্রতিষ্ঠান সন্দেহভাজন কর্মকাণ্ডে জড়িয়ে পড়েছে। বার্নস মনে করেন কমিউনিস্ট দেশটির শীর্ষ নেতৃত্ব এমনিতেই মার্কিন বিরোধী মনোভাব পোষণ করেন,তাই এই প্রতিষ্ঠান আমেরিকার মাটিতে চলা মানে নিজেদের বিপদ নিজেরা ডেকে আনা।
    তিনি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসহ মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সব ধরণের প্রতিষ্ঠানের জন্য সতর্ক থাকার উপদেশ দেন। প্রাক্তন বিদেশ সচিব মাইক পম্পেও অতীতে একই ধরণের সতর্কবার্তা দিয়েছিলেন বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানকে। মার্কিন প্রশাসন নিশ্চিত চিন সাংস্কৃতিক এবং শিক্ষামূলক অনুষ্ঠানের মাধ্যমে আমেরিকার মাটিতে বসেই মার্কিন বিরোধী মনোভাব তৈরি করার কাজে লিপ্ত। তাই অবিলম্বে কনফুসিয়াস ইনস্টিটিউট নিয়ে সাবধান হওয়ার প্রয়োজন আছে।
    Published by:Rohan Chowdhury
    First published: