• Home
  • »
  • News
  • »
  • international
  • »
  • AFTER TENANT VACATES HOUSE LANDLORD FINDS 19 TARANTULAS 1 BALL PYTHON INSIDE APARTMENT PBD

OMG! বাড়ি ছাড়লেন ভাড়াটে তবে ছেড়ে গেলেন ১৯টি ট্যারেন্টুলা, ১টি সাপও

এই সব দেখে প্রাণভয়ে কাঁপতে লাগলেন বাড়িওয়ালা (Landlord) ৷

এই সব দেখে প্রাণভয়ে কাঁপতে লাগলেন বাড়িওয়ালা (Landlord) ৷

  • Share this:

    #মেইন: বাড়িওয়ালা-ভাড়াটে (Landlord-Tenant fight) লড়াইয়ের কথা সর্বত্র শোনা যায়৷ তবে এবার যা ঘটল তাতে চোখ কপালে উঠল অনেক বাড়িওয়ালার৷ ভাড়াটে বাড়ি ছেড়ে দেওয়ার পর সেখানে উপস্থিত হয়ে বাড়িওয়ালার প্রাণ যায় যায় অবস্থা৷ কারণ ভাড়াটে (Tenant vacate house) তো বাড়ি খালি করে চলে গিয়েছেন কিন্তু ছেড়ে গিয়েছেন এক ডজনেরও বেশি বিষাক্ত ট্যারেন্টুলা এবং আস্ত একটি সাপ (tenant left tarantula and snake)! এই সব দেখে প্রাণভয়ে কাঁপতে লাগলেন বাড়িওয়ালা৷ স্থানীয় বন্যপ্রাণী উদ্ধার কেন্দ্রে ফোন করেন তিনি৷ চান সাহায্য৷ যাতে তারা এসে এই সব জন্তু তার বাড়ি থেকে উদ্ধার করেন, সেই অনুরোধা জানান তিনি৷

    আরও পড়ুন Viral Video: স্যুইম স্যুটে জলে ঝাঁপ মহিলার, পরচুলা খুলে উড়ে এল ডাঙায়! ভিডিও সুপার ভাইরাল

    ঘটনা মার্কিন মুলুকের মেইনের আউবার্নের৷ সেখানে ঘটেছে মারাত্মক এই ঘটনা৷ ভাড়াটে ঘর খালি করার পর সেখানে গিয়ে বাড়িওয়াল দেখেন এই অবস্থা৷ ১৯টি ট্যারেন্টুলা (tarantulas) এবং ১টি সাপ (Snake) দেখে খুব স্বাভাবিকভাবে ভয় পান তিনি৷ তার ফোন পেয়ে বন্যপ্রাণ বিভাগ থেকে আসেন এক ব্যক্তি৷ ড্রুই দেসজারদিন আসেন পশু উদ্ধারের কাজে৷ সেখানে তিনি দেখেন যে ১৯টির মধ্যে ৪টি ট্যারেন্টুলার মরে গিয়েছে৷ সাপটির শরীরেও জল নেই৷ ফলে সেও নেতিয়ে রয়েছে৷ এদের উদ্ধার করে নিজের বাড়িতে নিয়ে আসেন দেসজারদিন৷ আপাতত উদ্ধার হওয়া পশুরা সুস্থ রয়েছে বলে জানা গিয়েছে৷

    একটি আন্তার্জাতিক সংবাদ সংস্থার পক্ষে থেকে জানানো হয়েছে যে মেইন এলাকায় এই সব পশু নিষিদ্ধ৷ অর্থাৎ খোলা ভাবে তাদের ছেড়ে রাখা অপরাধ৷ তাহলে কীভাবে ভাড়াটে এদের জোগাড় করল এবং ঘরের মধ্যে লুকিয়ে রাখল, তার তদন্ত চলছে৷

    যিনি পশুগুলোকে উদ্ধার করেছেন, তিনিই সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করেছেন সব ছবি৷ যা থেকে ঘটনাটি জানাজানি হয়েছে৷ এবং তাতেই আতঙ্কিত হয়ে পড়েছেন এলাকার মানুষ৷ এমনকী ছবিগুলো সোশ্যাল মিডিয়ায় সাড়া ফেলে দিয়েছে৷

    Published by:Pooja Basu
    First published: