পছন্দ করত সহপাঠিনীকে, স্কুল থেকে বহিষ্কার করা হল ৮ বছরের ছাত্রীকে!

পছন্দ করত সহপাঠিনীকে, স্কুল থেকে বহিষ্কার করা হল ৮ বছরের ছাত্রীকে!

ছাত্রীর মায়ের কথায়, তার মেয়ের সঙ্গে রীতিমতো জেরা শুরু হয়। একসময়ে স্কুলের ভাইস প্রিন্সিপাল বলে ওঠেন, এটা না কি অন্যায়।

ছাত্রীর মায়ের কথায়, তার মেয়ের সঙ্গে রীতিমতো জেরা শুরু হয়। একসময়ে স্কুলের ভাইস প্রিন্সিপাল বলে ওঠেন, এটা না কি অন্যায়।

  • Share this:

#ওকলাহোমা: আমেরিকার ওকলাহোমা (Oklahoma)। ২০১৪ সালের ৬ অক্টোবর থেকে এখানে সম-লিঙ্গের বিয়েতে আইনি সিলমোহর দেওয়া হয়েছে। কিন্তু এখানকারই শহর ওবাসোতে (Owasso) এক নিন্দনীয় ঘটনা ঘটল। ক্লাসের এক মেয়ে বন্ধুকে পছন্দ করার জন্য স্কুল থেকে বহিষ্কৃত হতে হল আট ৮ বছরের এক ছাত্রীকে। মেয়েটি নিজের মুখে জানায়, তার সহপাঠীকে বিশেষভাবে পছন্দ করে সে। তার পরই স্কুল কর্তৃপক্ষের তরফে এই পদক্ষেপ করা হল।

ওবাসোর রিজয়েস ক্রিশ্চিয়ান স্কুল ( Rejoice Christian School) শুধুমাত্র ওই ছাত্রীকে নয়, তার ভাইকেও বের করে দিয়েছে। ঘটনার পর পরই ক্লো নামের ওই ছাত্রীর মা ডেলেনি সেলটনকেও (Delanie Shelton) ডেকে পাঠানো হয়। CNN-কে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে ডেলেনি জানান, খেলার মাঠে এক মহিলা বন্ধুকে নিজের পছন্দের কথা জানায় তাঁর মেয়ে ক্লো। তড়িঘড়ি তাকে খেলার মাঠ থেকে বের করে দেওয়া হয়। এর পর তাঁর মেয়েকে স্কুলের প্রিন্সিপাল অফিসে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে না কি এক মজার কাণ্ড ঘটে। ছাত্রীর মায়ের কথায়, তার মেয়ের সঙ্গে রীতিমতো জেরা শুরু হয়। একসময়ে স্কুলের ভাইস প্রিন্সিপাল বলে ওঠেন, এটা না কি অন্যায়। বাইবেল মতে মেয়েদের সঙ্গে একমাত্র পুরুষেরই সম্পর্ক হতে পারে। পুরুষের থেকেই মেয়েদের সন্তান হতে পারে। এর বাইরে অন্য কিছু নিয়ম বিরুদ্ধ!

ডেলেনি সেলটনকেও একই কথা জিজ্ঞাসা করা হয়। স্কুলের ভাইস প্রিন্সিপাল তাঁকে জিজ্ঞাসা করেন, মেয়ে হয়ে অন্য এক মেয়েকে পছন্দ করার বিষয়টিকে তিনি কী ভাবে দেখেন? বেশ কিছুক্ষণ এ নিয়ে তর্ক-বিতর্ক চলতে থাকে। শেষমেশ সেলটন পরিবারের সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন করে রিজয়েস ক্রিশ্চিয়ান স্কুল। ওই ছাত্রী ও তার ভাইকে স্কুল থেকে বহিষ্কার করা হয়। তবে সমাধানের জন্য আপ্রাণ চেষ্টা করেন ডেলেনি। স্কুল সুপারিনটেনডেন্ট জোয়েল পেপিনের (Joel Pepin) কাছেও আবেদন জানান তিনি। অভিযোগ, স্কুল কর্তৃপক্ষের তরফে কোনও সাড়া মেলেনি।

প্রতিবেদন সূত্রে খবর, এ নিয়ে প্রকাশ্যে কোনও মন্তব্য করতে চায়নি স্কুল কর্তৃপক্ষ। তবে ঘটনার তীব্র নিন্দা করে সরব হয়েছেন সমাজের নানা স্তরের মানুষ। স্কুলের অনেক প্রাক্তন ছাত্র-ছাত্রীরাও তাদের নানা তিক্ত অভিজ্ঞতার কথা জানিয়েছেন। ক্লোর সমর্থনে ইতিমধ্যেই ফেসবুকে নানা ক্যাম্পেইন ও পোস্টের ছড়াছড়ি। তবে টনক নড়েনি সংশ্লিষ্ট প্রশাসনের। এই সব কিছুর মাঝে খুদে ক্লোর একটা প্রশ্ন সমাজের এই মানসিকতাকে যেন আরও নগ্ন করে দেয়। বহিষ্কৃত হওয়ার পর ছোট্ট ক্লোর প্রশ্ন ছিল- মা, এই ঘটনার পর ঈশ্বর কি আমাকে আর ভালোবাসবেন?

Published by:Dolon Chattopadhyay
First published: