ফিচার

corona virus btn
corona virus btn
Loading

World Post Day 2020 : স্মৃতির গরিমা নিয়ে চিঠি বেঁচে আছে আজও, শুধু কাজের জিনিস হয়ে

World Post Day 2020 : স্মৃতির গরিমা নিয়ে চিঠি বেঁচে আছে আজও, শুধু কাজের জিনিস হয়ে

ডাক ব্যবস্থাই সারা পৃথিবীর সব চেয়ে পুরনো যোগাযোগের মাধ্যম। একটা সময় ছিল, যখন চিঠি ছিল মানুষে মানুষে যোগাযোগের একমাত্র মাধ্যম।

  • Share this:

৯ অক্টোবরের দিনটি সারা বিশ্ব জুড়েই পালিত হয় বিশ্ব ডাক দিবস (ওয়র্ল্ড পোস্ট ডে) হিসেবে।

১৮৭৪ সালের এই দিনে সুইজারল্যান্ডের বার্নে ২২টি দেশের প্রতিনিধিদের নিয়ে গঠিত হয় ইউনিভার্সাল পোস্টাল ইউনিয়ন (ইউপিইউ)। এই দিনটি স্মরণীয় করে রাখতে সংগঠনের পক্ষ থেকে ১৯৬৯ সালে জাপানের টোকিওতে অনুষ্ঠিত ইউনিভার্সাল ডাক ইউনিয়নের ১৬তম অধিবেশনে ভারতীয় প্রতিনিধি দলের সদস্য আনন্দ মোহন নারুলা ৯ অক্টোবর দিনটিকে 'ডাক ইউনিয়ন দিবস' হিসেবে পালনের প্রস্তাব তোলেন। অধিবেশনে প্রতি বছরের ৯ অক্টোবর বিশ্ব ডাক ইউনিয়ন দিবস হিসেবে পালনের সিদ্ধান্তও নেওয়া হয়।

পরবর্তীতে ১৯৮৪ সালে জার্মানির হামবুর্গে অনুষ্ঠিত ১৯তম অধিবেশনে নাম পরিবর্তন করে ‘বিশ্ব ডাক দিবস’ রাখা হয়। এর পর থেকে প্রতি বছর দিনটি ‘বিশ্ব ডাক দিবস’ হিসেবে পালিত হয়ে আসছে।

ডাক ব্যবস্থাই সারা পৃথিবীর সব চেয়ে পুরনো যোগাযোগের মাধ্যম। একটা সময় ছিল, যখন চিঠি ছিল মানুষে মানুষে যোগাযোগের একমাত্র মাধ্যম। তথ্যপ্রযুক্তির চরম উৎকর্ষের যুগে স্মার্টফোন আর হরেক রকম সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের সামনে সেই কাগজের চিঠি প্রায় হারিয়ে গিয়েছে। ডাক বিভাগও নিরন্তর লড়াই করছে প্রযুক্তির সঙ্গে খাপ খাইয়ে অস্তিত্ব রক্ষার।

ডাক দিবসের ইতিহাস খুঁজতে আরও একটু পিছনে হাঁটা যাক। ১৮৪০-এ ইংলন্ডে স্যার রোল্যান্ড হিল প্রথম চিঠিতে পোস্টাল স্ট্যাম্প লাগানোর ব্যবস্থা চালু করেন। তিনিই প্রথম বলেন, একই ওজনের যে কোনও চিঠির জন্য সমপরিমাণ টাকা লাগা উচিত, দূরত্ব যাই হোক না কেন। পৃথিবীর প্রথম পোস্টাল স্ট্যাম্পটি তিনিই চালু করেছিলেন।

১৮৬৩ সালে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের পোস্ট মাস্টার জেনারেল মন্টেগোমারি ব্লেয়ার প্যারিসে এক সম্মেলনের আয়োজন করলেন। ইওরোপ এবং আমেরিকার ১৫ জন প্রতিনিধি মিলে একসঙ্গে বসে কিছু চুক্তি স্বাক্ষরিত করলেন। কিন্তু এতে আন্তর্জাতিক কোনও নিয়মের কথা উল্লেখ করা ছিল না।

এই দিনের প্রসঙ্গে একটা মজার তথ্য জানিয়ে রাখা যায়। শখের নানা রকমফেরের কথা আমরা প্রায়ই শুনে থাকি। খুব জনপ্রিয় একটি শখ হল ফিলাটেলি– স্ট্যাম্প সংগ্রহ। সারা জীবন ধরে দেশ, বিদেশের স্ট্যাম্প নিজের সংগ্রহে রাখাই বহু মানুষের পছন্দের বিষয়। বেশ রাজকীয় শখ না? স্মার্টফোন, ফেসবুক, ট্যুইটারের জমানায় ফিলাটেলি যেন নিজেই এক প্রতিরোধ, হারিয়ে যাওয়া রুখে দেওয়ার।

Published by: Uddalak Bhattacharya
First published: October 9, 2020, 11:03 AM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर