• Home
  • »
  • News
  • »
  • explained
  • »
  • EXPLAINER WHAT IS NATIONAL PENSION SCHEME AND HOW MUCH PENSION IT GUARANTEES AFTER EMPLOYEE S RETIREMENT DD TC

Explained: অবসরের পরেও আয় নিশ্চিত করতে বিনিয়োগ করুন National Pension Scheme-এ, জানুন বিশদে!

what is national pension scheme and how much pension it guarantees after employee's retirement-Photo- PTI

পেনশন স্কিমের জন্য সব থেকে ভালো সুবিধা রয়েছে ন্যাশনাল পেনশন স্কিমে (National Pension Scheme)। এটি কেন্দ্রীয় সরকারের একটি প্রকল্প।

  • Share this:

#কলকাতা: চাকরিজীবী প্রতিটি মানুষের মধ্য়ে অধিকাংশের চিন্তা থাকে অবসর নেওয়ার পর কী ভাবে আয়ের পথ খোলা রাখা সম্ভব! এত দিন পর্যন্ত বেসরকারি সংস্থায় কর্মরতদের মধ্য়ে এই চিন্তা বেশি থাকলেও বর্তমানে সরকারি বেশ কয়েকটি ক্ষেত্রে কর্মরতদেরও একই চিন্তা। কারণ সরকারি বেশ কয়েকটি ক্ষেত্রে বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে পেনশন সুবিধা। আর ৬০ বছরের পরেও চাকরি করা সম্ভব নয়। অন্য দিকে, বেসরকারি ক্ষেত্রে যত দিন ইচ্ছা চাকরি করা সম্ভব হলেও শারীরিক কারণে অনেকেই ৬০ বছরের পর আর কর্মজীবন বাড়াতে চান না। অন্য় দিকে, পেনশনের সুবিধাও নেই। এই পরিস্থিতিতে কর্মজীবন পরবর্তীতে আয় চালু রাখতে অনেকেই পেনশন স্কিমের দিকে ঝুঁকছেন। চাকরি করার সময় অল্প অল্প করে টাকা জামিয়ে অবসরের পর যেন সুখে কাটাতে পারেন বাকি জীবন। আর পেনশন স্কিমের জন্য় সব থেকে ভালো সুবিধা রয়েছে ন্যাশনাল পেনশন স্কিমে (National Pension Scheme)। এটি কেন্দ্রীয় সরকারের একটি প্রকল্প।

NPS কবে থেকে শুরু হয়েছিল?

NSDL-ওয়েবসাইট(https://www.npscra.nsdl.co.in/central-government.php) থেকে প্রাপ্ত তথ্য় অনুযায়ী ১ জানুয়ারি ২০০৪ সাল থেকে NPS শুরু হয়। সেই সময় থেকেই কেন্দ্রীয় রেকর্ড সংরক্ষক এজেন্সি হিসেবে NSDL-কে নিযুক্ত করে পেনশন ফান্ড রেগুলেটরি অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট অথরিটি।

এই প্রকল্পের সুবিধা কী ?

এই স্কিমে কেউ নিজেকে নথিভুক্ত করলে ৬০ বছরের পর সেই উপভোক্তা নূন্যতম ৩০০০ টাকা করে পেনশন পাবেন। এছাড়াও কেউ বেশি মূল্য়ের অর্থ সঞ্চয় করলে সেই উপভোক্তা আরও বেশি অর্থমূল্যের পেনশন পাবেন। পাশাপাশি ৬০ বছর পর উপভোক্তা একটি নির্দিষ্ট অঙ্কের টাকা এককালীন পাবেন এবং যে পরিমাণ পেনশন পাওয়া যাবে তার উপর কোনও কর দিতে হবে না।

আরও পড়ুন - Virat নয় Rohit অধিনায়ক, 'Rubbish' বলে জল্পনা গুঁড়িয়ে দিল খোদ বিসিসিআই

NPS-এর সুবিধা পেতে গেলে প্রতি মাসে কত করে সঞ্চয় করতে হবে?

যাঁরা NPS-এ নিজেদের নথিভুক্ত করবেন তাঁদের প্রতি অর্থবর্ষে নূন্যতম ৫০০ টাকা করে সঞ্চয় করতে হবে। তবে এক্ষেত্রে জানিয়ে রাখা দরকার, NPS-এ দু'টি ভাগ থাকে। প্রথমটি টায়ার ১ এবং দ্বিতীয়টি টায়ার ২। প্রথমে টায়ার ১ অ্য়াকাউন্ট খুলতে হবে এবং পরে প্রয়োজন মতো টায়ার ২ অ্য়াকাউন্ট খোলা যেতে পারে। সেক্ষেত্রে রেজিস্ট্রেশনের সময় টায়ার ২ অ্য়াকাউন্টের ক্ষেত্রে ১০০০ টাকা দিতে হবে। পরবর্তীতে টায়ার ২ অ্যাকাউন্টের ক্ষেত্রে প্রতি অর্থবর্ষে নূন্য়তম ২৫০ টাকা দিতে হবে।

কারা কারা NPS অ্য়াকাউন্ট খুলতে পারেন?

১৮ থেকে ২৮ বছরের মধ্য়ে যে কেউ NPS অ্য়াকাউন্ট খুলতে পারেন। NPS অ্য়াকাউন্টের জন্য় সরকারি বা বেসরকারি ক্ষেত্রে চাকরি করার প্রয়োজন হয় না। কোনও ব্য়বসায়ী অথবা সেল্ফ এমপ্লয়েড রয়েছেন এমন কেউ NPS অ্য়াকাউন্ট খুলতে পারেন।

বর্তমানে অনেক বেসরকারি সংস্থাও নিজেদের সংস্থার কর্মীদের জন্য NPS অ্য়াকাউন্ট খুলে দেয় এবং সেক্ষেত্রে কর্মীদের সঞ্চয়ের একটি অংশ সংস্থার তরফ থেকে দিয়ে দেওয়া হয়।

যদি কেউ নতুন সংস্থায় যোগ দেয় তাহলে ওই সঞ্চয়ের কী হবে?

যদি কোনও ব্যক্তি পুরনো সংস্থা ছেড়ে নতুন সংস্থায় যোগ দেয় এবং নতুন সংস্থায় যদি NPS এর সুবিধা থাকে তাহলে নতুন সংস্থায় শুধুমাত্র PRAN (Permanent Retirement Account Number) নম্বর দিতে হবে। তাহলেই কোনও ব্য়ক্তির নির্দিষ্ট PRAN নম্বরে টাকা জমা পড়বে। জেনে রাখা দরকার, একজন ব্যক্তির নামে এবং তাঁর যাবতীয় তথ্য়ের ভিত্তিতে একটি মাত্র NPS অ্য়াকাউন্ট খোলা সম্ভব। অর্থাৎ কোনও ব্যক্তির নামে একটি PRAN নম্বর জেনারেট হবে।

কী ভাবে NPS অ্য়াকাউন্ট খোলা সম্ভব? বা PRAN নম্বর তৈরি করা সম্ভব?

কোথাও না গিয়ে বাড়িতে থেকে অনলাইনের মাধ্য়মে NPS অ্য়াকাউন্ট খোলা সম্ভব। NSDL ওয়েবসাইটে গিয়ে ধাপে ধাপে একাধিক ফর্ম পূরণ করতে হবে। দিতে হবে ব্যক্তিগত বেশ কিছু তথ্য়। সেই সব তথ্য় সঠিকভাবে দিলেই তৈরি হবে PRAN নম্বর। অর্থাৎ খুলে যাবে NPS অ্য়াকাউন্ট। এর পর নিজের সঙ্গতি অনুযায়ী সঞ্চয় করতে হবে।

ধাপ ১- প্রথমে NPS ট্রাস্ট ওয়েবসাইটে যেতে হবে। ওয়েব অ্য়াড্রেসটি হল- http://www.npstrust.org.in/

ধাপ ২- এর পর পার্সোনাল অপশনে ক্লিক করতে হবে।

ধাপ ৩- এর পর আধার ও PAN কার্ডের তথ্য দিতে হবে। সেই নম্বরের ভিত্তিতে একটি OTP জেনারেট হবে এবং সেটি ওই আধারের সঙ্গে সংযুক্ত মোবাইল নম্বরে আসবে।

ধাপ-৪- এর পর কী ধরনের অ্য়াকাউন্ট করতে চাইছেন তা পছন্দ করতে হবে।

ধাপ ৫- যদি এক্ষেত্রে আধার সিলেক্ট করা হয়, তাহলে আধার অথরাইজেশনের জন্য় ফোনে ফের একটি OTP আসবে এবং সেই নম্বরটি নির্দিষ্ট বক্সে দিয়ে সাবমিট করতে হবে।

ধাপ ৬- যদি কেউ PAN সিলেক্ট করেন তাঁর ক্ষেত্রে ১২৫ টাকা কেটে নেওয়া হবে। কারণ PAN-এর জন্য ব্যাঙ্ক ডিলেটস ভেরিফাই করতে হবে।

ধাপ ৭- এর পর নিজের যাবতীয় তথ্য় যেমন ঠিকানা, মেল আইডি, বয়স সহ একাধিক তথ্য় ওই ওয়েবসাইটে দিতে হবে।

ধাপ ৮- সব ফিল আপ করা হলে মোট আটটি সংস্থার ফান্ড দেখাবে। পছন্দমতো সেই ফান্ডগুলি থেকে একটি ফান্ড বেছে নিতে হবে।

ধাপ ৯-কী ভাবে ইনভেস্ট করবেন ব্যক্তি এবং ওই অ্য়াকাউন্টের নমিনি কাকে রাখবেন সেই বিষয়ে বিস্তারিত তথ্য় দিতে হবে।

ধাপ ১০- এর পর নিজের সই এবং ছবি আপলোড করতে হবে।

ধাপ ১১- সব কিছু সঠিক ভাবে করে সাবমিট করতে হবে এবং PRAn নম্বর নিজে থেকে তৈরি হয়ে যাবে।

NPS-এ কোন কোন ফান্ড রয়েছে?

যে সাতটি ফান্ডে বিনিয়োগকারীরা বিনিয়োগ করতে পারবেন সেগুলি হল-

১) HDFC পেনশন ম্য়ানেজমেন্ট কোম্পানি লিমিটেড( HDFC Pension Management Co. Ltd)

২) আইসিআইসিআই প্রুডেনসিয়াল পেনশন ফান্ড ম্য়ানেজমেন্ট কম্পানি লিমিটেড ( ICICI Prudential Pension Fund Management Co. Ltd.)

৩) কোটাক মহিন্দ্রা পেনশন ফান্ড লিমিটেড (Kotak Mahindra Pension Fund Ltd)

৪) এলআইসি পেনশন ফান্ড লিমিটেড (LIC Pension Fund Ltd)

৫) স্টেট ব্যাঙ্ক অফ ইন্ডিয়া পেনশন ফান্ড প্রাইভেট লিমিটেড (SBI Pension Funds Pvt. Ltd.)

৬) ইউটিআই রিটায়ারমেন্ট সলিউশন লিমিটেড (UTI Retirement Solutions Ltd.)

৭) আদিত্য় বিড়লা সানলাইফ পেনশন ম্য়ানেজমেন্ট লিমিটেড (Aditya Birla Sunlife Pension Management Ltd.)

টাকা কী ভাবে পাওয়া যাবে?

প্রতি অর্থবর্ষে জমানো টাকা সুদ সহ এককালীন বেশ কিছুটা অংশ ফেরত পাওয়া যাবে ৬০ বছর পর এবং বাকি টাকা প্রতি মাসে পেনশন হিসেবে পাবেন উপভোক্তা।

Published by:Debalina Datta
First published: