Home /News /explained /

প্রভিডেন্ট ফান্ডে সুদের উপর কর দেওয়ার নতুন নিয়ম কী? বিশদে জানুন!

প্রভিডেন্ট ফান্ডে সুদের উপর কর দেওয়ার নতুন নিয়ম কী? বিশদে জানুন!

ইপিএফ-এর সুদ নিয়ে চাকুরিজীবীদের কপালে চিন্তার ভাঁজ দেখা গিয়েছে।

  • Share this:

#কলকাতা: চলতি বছরের ফেব্রুয়ারি মাসে বাজেট ঘোষণার সময় কেন্দ্রীয় অর্থ মন্ত্রক এমপ্লয়ি প্রভিডেন্ট ফান্ড (Employees’ Provident Fund) বা ইপিএফ (EPF) ট্যাক্সিং ইন্টারেস্ট ইনকাম-এর নিয়ম বলবৎ করেছে। বেসরকারি সংস্থার কর্মচারীদের বাৎসরিক ইপিএফ ২.৫ লক্ষ ও সরকারি কর্মচারীদের বাৎসরিক ইপিএফ ৫ লক্ষ পর্যন্ত জমা পড়লে ট্যাক্সিং ইন্টারেস্ট ইনকাম-এর নিয়ম করা হয়েছে। চলতি অর্থ বর্ষে বলা হয়েছে ট্যাক্স পেয়াররা যদি নির্ধারিত ইপিএফ জমা করার সীমা অতিক্রম করে তাহলে তাদের অতিরিক্ত ইন্টারেস্ট দিতে হবে। এর জন্য একটি আলাদা অ্যাকাউন্ট থাকতে হবে। আর এর নিচের ইপিএফ সঞ্চয়ে কোনও ইন্টারেস্ট দিতে হবে না।

ইপিএফ কনট্রিবিউশনের ট্যাক্স কী?

ফেব্রুয়ারিতে বাজেটে প্রস্তাবের পরে বলা হয়েছিল, পিএফ জমা করার জন্য বেসরকারি সংস্থার কর্মচারীদের বাৎসরিক ইপিএফ কনট্রিবিউশন যদি ২.৫ লক্ষ টাকার বেশি হয় তহলে সেই আয়ের ওপরে বাড়তি ইন্টারেস্ট চাপানো হবে। এর পর থেকেই ইপিএফ-এর সুদ নিয়ে চাকুরিজীবীদের কপালে চিন্তার ভাঁজ দেখা গিয়েছে। নিয়ম অনুযায়ী যেই চাকুরিজীবীরা বার্ষিক ২.৫ লক্ষ টাকা ইপিএফ-এ সঞ্চয় করেন তাঁদেরকে বাড়তি কর গুনতে হবে। এর মানে প্রতি মাসে প্রভিডেন্ট ফান্ডে যাঁরা ২০,০০০ টাকার বেশি জমা করেন। আর এর নিচের ইপিএফ কনট্রিবিউটারদের জন্য এই নিয়ম লাগু করা হবে না। চলতি বছরের মার্চ মাসে কেন্দ্রীয় সরকার ফাইন্যান্স বিলে একটি সংশোধনী এনেছে। তাতে ইপিএফ-এ সঞ্চয়ের পরিমাণ ২.৫ লক্ষ থেকে বাড়িয়ে ৫ লক্ষ টাকা করার প্রস্তাব রাখা হয়েছে।

কী ভাবে ট্যাক্স নেওয়া হবে?

কেন্দ্রীয় অর্থ মন্ত্রক ৩১ অগাস্ট এই নিয়ম নিয়ে আলোচনা করেছে। ১৯৬২-র ইনকাম-ট্যাক্স রুল অ্যামিডমেন্টে সেন্ট্রাল বোর্ড অফ ডিরেক্ট ট্যাক্সেসে (Central Board of Direct Taxes) রুল ৯D যোগ করেছে। এতে বলা হয়েছে বেসরকারি সংস্থার কর্মীদের ২.৫ লক্ষ টাকার পিএফ সঞ্চয় ও সরকারি কর্মীদের ৫ লক্ষ টাকার পিএফ সঞ্চয়ে কর ছাড় দেওয়া হবে না। ২০২১-২০২২ এর বাৎসরিক সঞ্চয়ের ওপর এই নিয়ম লাগু করা হবে। অন্য দিকে, ইপিএফ কর্তৃপক্ষ এখনও কর-যোগ্য এবং কর-বহির্ভূত অ্যাকাউন্টগুলিকে আলাদা করে উঠতে পারেনি। ইপিএফ বোর্ডের তরফে জানানো হয়েছে এই ধরনের অবদানকারীদের অ্যাকাউন্ট বাছাই করতে সময় লাগবে। প্রথমে এই ডেটাগুলিকে আলাদা করতে হবে। তার পর এই অ্যাকাউন্টগুলিকে আলাদা অ্যাকাউন্টিং পরিষেবায় নিয়ে আসতে হবে। ফলে এখনও কোনও চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়নি। সেন্ট্রাল বোর্ড অফ ডিরেক্ট ট্যাক্সেস-এর তরফে জানানো হয়েছে, চলতি বছরের ৩১ মার্চ পর্যন্ত অ্যাকাউন্টে কত ব্যালেন্স ছিল, চলতি অর্থবর্ষ ও পূর্ববর্তী অর্থবর্ষে কত টাকা প্রদান করা হয়েছে, তা করবিহীন পিএফ প্রদানের অ্যাকাউন্টে ধরা হবে।

কেন এই পরিবর্তন করা হচ্ছে?

বাজেট প্রস্তাবে উল্লেখ করা হয়েছিল যে সরকার এমন কিছু অ্যাকাউন্ট খুঁজে পেয়েছে যেখানে উচ্চবিত্ত বেতনভোগীরা কর ছাড়ের সুবাদে বিপুল টাকা পিএফ-এ জমা করছেন। সেই কারণেই এই পদক্ষেপ। ট্যাক্স ফ্রি ইন্টারেস্ট ইনকামের (Tax-free Interest Income) সুবিধা থেকে উচ্চবিত্ত বেতনভোগীদের বাদ দেওয়ার জন্য সরকার এই পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে। ২০২১-এর ১ এপ্রিল থেকে এই নিয়ম লাগু হয়েছে বলে জানা গিয়েছে। চলতি বছরের ফেব্রুয়ারিতে বাজেট পেশ করার সময় কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী (Finance Minister) নির্মলা সীতারমন (Nirmala Sitharaman) বলেছিলেন, "এই তহবিলটি আসলে শ্রমিকদের সুবিধার জন্য। কারণ শ্রমিকরা এই করের আওতায় পড়েন না। যাঁরা অনেক টাকা বেতন পান তাঁরাই এই করের আওতায় পড়বেন। ভারতে বেশিরভাগ কর্মীর পিএফ জমার পরিমাণ ২.৫ লক্ষ টাকার নিচে তাই অতিরিক্ত চিন্তিত হওয়ার কোনও কারণ নেই”।

কী ভাবে ট্যাক্স বসানো হবে?

যদি একজন ব্যক্তি পিএফ অ্যাকাউন্টে বছরে ৩ লক্ষ টাকা জমা করে তবে তার জমা টাকার থেকে ২.৫ লক্ষ টাকা বাদে বাকি অর্থাৎ ৫০,০০০ টাকার ওপরে মার্জিনাল ট্যাক্স চাপানো হবে। ওই টাকার ওপরে ৮.৫% ট্যাক্স অর্থাৎ ৪,২৫০ টাকা ধার্য করা হবে। আর ইনডিভিজুয়ালের ক্ষেত্রে ৩০% ট্যাক্স অর্থাৎ ১,৩২৫ টাকা দিতে হবে। যদি কোনও ব্যক্তি বছরে ১২ লক্ষ টাকা পিএফ অ্যাকাউন্টে জমা করে, সে ক্ষেত্রে ইন্টারেস্ট ইনকাম ৯.৫ লক্ষ টাকার ওপর ট্যাক্স বসানো হবে। যা প্রায় ২৫,২০০ টাকা ট্যাক্স হিসেবে নেওয়া হবে।

এই নতুন নিয়ম কি স্থায়ী হবে?

সরকারি বিজ্ঞপ্তি অনুযায়ী, বেসরকারি সংস্থার কর্মীদের জন্য ২.৫ লক্ষের বেশি এবং সরকারি কর্মচারীদের জন্য ৫ লক্ষ টাকারও বেশি পিএফ সঞ্চয়ের ক্ষেত্রে এই নিয়ম লাগু হবে। অর্থাৎ, কোনও আর্থিক বছরে পিএফ সঞ্চয় যদি ১০ লক্ষ টাক হয় তখন ৭.৫ লক্ষ টাকার ওপরে ইন্টারেস্ট ইনকাম ধার্য করা হবে। যদি পরের আর্থিক বছরে পিএফ সঞ্চয় একই হয় তখন ১৫ লক্ষ টাকার ওপরে ইন্টারেস্ট ইনকাম ধার্য করা হবে।

Published by:Dolon Chattopadhyay
First published:

Tags: EPF, Provident Fund

পরবর্তী খবর