Vikrant Massey : বড়দের ছবি দেখতে গিয়ে হাতেনাতে ধরা পড়েন শৈশবে, বান্ধবীদের কাছে ছিলেন গুরুত্বহীন

বিক্রান্ত ম্যাসি, ফাইল ছবি

বিক্রান্ত (Vikrant Massey) বলেন, “স্কুল জীবনে আমি তেমন একটা অ্যাট্রাক্টিভ ছিলাম না, ফলে স্কুলের মেয়ে বন্ধুদের থেকে প্রেম প্রস্তাব পাওয়া তো দূরে থাক, কেউ ঠিক করে পাত্তাই দিত না আমাকে।

  • Share this:

#মুম্বই: বিক্রান্ত ম্যাসি (Vikrant Massey) অভিনীত দুটি ছবি পরপর মুক্তি পেয়েছে। হাসিন দিলরুবা (Haseen Dilruba) ছবিটি মুক্তি পেয়েছে Netflix এ। ১৪ ফেরে (14 Phere) নামে ছবিটি মুক্তি পেয়েছে ZEE5 এ। এখন অভিনেতার মহিলা ফ্যান ফলোয়ার্সও দিনে দিনে বাড়ছে। তবে একটি সাক্ষাৎকারে বিক্রান্ত বলেন এক সময়ে তাঁকে নাকি কোনও মহিলাই বিশেষ একটা পাত্তা দিতেন না। ফলে মহিলাদের সঙ্গে ডেটিং-এর নানা গল্প ফাঁদতে হত অভিনেতাকে।

একটি সাক্ষাৎকারে বিক্রান্ত বলেন, “স্কুল জীবনে আমি তেমন একটা অ্যাট্রাক্টিভ ছিলাম না, ফলে স্কুলের মেয়ে বন্ধুদের থেকে প্রেম প্রস্তাব পাওয়া তো দূরে থাক, কেউ ঠিক করে পাত্তাই দিত না আমাকে। কিন্তু আমি ছেলে বন্ধুদের কাছে মিথ্যে গল্প ফাঁদতাম। অমি ওদের বলতাম স্কুলের সবচেয়ে সুন্দর দেখতে মেয়েটা আমার সঙ্গে ডেট করেছে। কলেজে গিয়েও আমি এমন অনেক মিথ্যে কথা বলে নিজে নিজে গর্ব করতাম, এই সব আমি নিজে মন থেকে বানিয়ে বানিয়ে বলতাম, তবে একবার ধরাও পড়ে গিয়েছিলাম। কলেজের একটি মেয়ে জানতে পেরে গিয়েছিল আমি এই সব গুজোব রটাচ্ছি। তারপর সে আমার সামনা সামনিও হয়েছিল।’’

সম্প্রতি আরও এর সাক্ষাৎকারে বিক্রান্ত বলেছিলেন তাঁর ছোটবেলার কিছু অস্বস্তিকর ঘটনার কথা। তিনি নাকি অ্যাডাল্ট ফিল্ম দেখার সময় মাসির কাছে ধরা পড়ে গিয়েছিলেন! তিনি বলেন, “একবার দিদার বাড়িতে আমার ভাইবোনেরা মিলে রাত তিনটের সময় অ্যাডাল্ট সিনেমা দেখছিলাম। সেই সময় আমাদের মাসি হঠাৎ ওই ঘরে চলে আসেন। সে কী অবস্থা, মাসি সব কিছু দেখে ফেলেন। আমরা ভাবতেও পারিনি যে ওই সময়ে মাসি আমাদের ঘরে চলে আসবে। পুরো ঘটনায় আমার লজ্জিত হয়ে পড়ি। আমি সেই সময় কিছু দিন দিদার বাড়িতেই ছিলাম। আমি এক গ্লাস জল পর্যন্ত নিয়ে খেতে পারতাম না। মাসির চোখের দিকে পর্যন্ত তাকাতে পারতাম না। প্রত্যেকটা দিন আমার লজ্জায় কাটত। সেই দিনগুলো খুব বাজে ভাবে কাটাতে হয়েছিল আমাকে।”

Published by:Arpita Roy Chowdhury
First published: