মেয়েকে নিয়ে তিরুপতিতে অভিনেত্রী কণীনিকা বন্দ্যোপাধ্যায়, কাটা হল মেয়ের চুল, দেখুন ভিডিও

মেয়েকে নিয়ে তিরুপতিতে অভিনেত্রী কণীনিকা বন্দ্যোপাধ্যায়, কাটা হল মেয়ের চুল, দেখুন ভিডিও
তিরুপতিতে মেয়েকে কোলেন নিয়ে কণীনিকা বন্দ্যোাপাধ্যায়

২০১৭ সালে ব্যবসায়ী সুরজিৎ হারিকে বিয়ে করেন কণীনিকা। ২০১৯র মাঝামাঝি জন্ম নেয় তাঁদের সন্তান অন্তঃকরণা।

  • Share this:

    #কলকাতা: কণীনিকা বন্দ্যোপাধ্যায় গিয়েছেন তিরুপতি তিরুমালা মন্দিরে। পরিবারের সকলে রয়েছেন তাঁর সঙ্গে। স্বামী সুরজিত ও মেয়ে অন্তঃকরণাকে নিয়ে এই 'তীর্থ যাত্রা' অভিনেত্রীর। সেখানে গিয়ে ছোট্ট আদরের কিয়াকে নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় ছবি পোস্ট করেলেন অভিনেত্রী। মন্দিরে ঈশ্বর দর্শন ও বন্দনার জন্য এই বিশেষ সফর। তাই সেই মতো সাদা শাড়িতে দেখা গেল কণীনিকাকে।

    দক্ষিণের এই তিরুপতি তিরুমালা মন্দির খুবই জাগ্রত হিসেবে গণ্য করা হয়। অনেকেই নিজের মনোবাসনা পূরণে বা কোনও বিশেষ মনস্কামনার জন্য এই মন্দির দর্শন করেন। অভিনেত্রীও নিঃসন্দেহে তেমনই কোনও কারণে পৌঁছে গিয়েছেন সেখানে। হাতে শাখা-পলা, সাদা সরু জরির পাড়ের শাড়ি পরেছেন কণীনিকা। স্বামী সুরজিত পরেছেন সাদা পাঞ্জাবি-পাজামা। তবে কোনির কোলে নজর কেড়েছে ছোট্ট কিয়া। সাদা কুর্তা-ধুতিতে খুবই মিষ্টি দেখাচ্ছে তাকে। তার সঙ্গে ঠান্ডা থেকে বাঁচতে তাকে পরানো হয়েছে সোয়েটার এবং টুপি। এই সব ছবি অভিনেত্রী নিজেই পোস্ট করেছেন।

    তবে তাঁর ইনস্টাগ্রামে পোস্ট করা যে ভিডিওটি সকলের চোখে পড়েছে, সেটা হল, বাবার কোলে অন্তঃকরণা। কারণ ছোট্ট মেয়ের মাথার চুল নেই। অর্থাৎ তাকে ন্যাড়া করা হয়েছে। তিরুপতিতে গিয়ে হিন্দু মেয়েদের চুল কামানো বা মস্তকমুন্ডনের প্রচলন রয়েছে। অনেকেই ঈশ্বর বন্দনায় এমন করে থাকেন। যে কোনও বয়সের মহিলাদের দেখা যায় ঈশ্বরের উদ্দেশ্যে এমন কাজ করতে। ছোট্ট কিয়ার মস্তক মুন্ডন করা হয়েছে। আর চুলহীন কিয়ার ছবি নির্দ্বিধায় নিজের সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করেছেন অভিনেত্রী মা।

    আরও পড়ুন ২০বার আত্মহত্যার চেষ্টা, শেষ পর্যন্ত বিগ বস খ্যাত অভিনেত্রীর মৃত্যু

    ২০১৭ সালে ব্যবসায়ী সুরজিৎ হারিকে বিয়ে করেন কণীনিকা। ২০১৯র মাঝামাঝি জন্ম নেয় তাঁদের সন্তান অন্তঃকরণা। এর আগে মেয়ের একাধিক ছবি নিজের ইনস্টাগ্রামে পোস্ট করেছেন তিনি। বলাই বাহুল্য কিয়া খুবই মিষ্টি এবং অভিনেত্রীর কন্যা হিসেবে তাকে নিয়ে বাড়তি আগ্রহ রয়েছে সকলেরই।

    Published by:Pooja Basu
    First published: