সেলফি তুলতে চাওয়ায়, মহিলাকে দিয়ে একি করালেন Milind Soman ! ভাইরাল ভিডিও

viral video

সম্প্রতি সোশ্যাল মিডিয়ায় মিলিন্দ একটি ভিডিও শেয়ার করেছেন, যা নিয়ে জোর চর্চা শুরু হয়েছে নেট দুনিয়ায়।

  • Share this:

    #মুম্বই: মিলিন্দ সোমান। বলিউডের জনপ্রিয় অভিনেতা ও মডেল। কয়েক দিন আগেই করোনা আক্রান্ত হয়েছিলেন তিনি। তবে এখন একেবারেই সুস্থ তিনি। এবং রোজকার জীবনে ফিরে এসেছেন তিনি। মিলিন্দের জীবনের সব থেকে প্রয়োজনীয় বিষয় হল শরীর চর্চা। ৫৫ বছর বয়সেও তাঁকে দেখলে মনে হয় ৪০ পেরোননি। এমনটাই ঝকঝকে রেখেছেন নিজেকে। তিনি ও তাঁর গোটা পরিবার সব সময় শরীরচর্চা করে থাকেন। এমনকি ৮০ পার করা মাকে দিয়েও নিয়মিত ব্যায়াম, যোগা করান মিলিন্দ। আর তাই জন্যই সুস্থ আছেন তাঁরা। মিলিন্দ করোনাকালে বার বার সকলকে বলেছেন সঠিক শরীরচর্চা করার জন্য। নানা ভিডিও পোস্ট করে মানুষকে উৎসাহিত করেছেন। কোভিড যুদ্ধে জয় করার কৌশল বলেদিয়েছেন তিনি। তবুও এই ভাইরাসে তিনি আক্রান্ত হন। কিন্তু সহজেই সেরেও উঠেছেন। তবে এবার মিলিন্দ এ কি করলেন?

    সম্প্রতি সোশ্যাল মিডিয়ায় মিলিন্দ একটি ভিডিও শেয়ার করেছেন, যা নিয়ে জোর চর্চা শুরু হয়েছে নেট দুনিয়ায়। সকলেই প্রশ্ন করেছেন, একি করছেন তিনি! বিষয়টা হল স্ত্রী অঙ্কিতাকে নিয়ে পার্কে বেড়াতে গিয়েছিলেন মিলিন্দ। তাঁকে দেখতে পেয়েই এক মহিলা ছুটে আসেন। বলেন আমি একটা সেলফি তুলতে চাই আপনার সঙ্গে। মিলিন্দ বলেন, ঠিক আছে। নিশ্চয় তুলবেন। কিন্তু তার জন্য আপনাকে দশটা পুশ-আপ করে দেখাতে হবে। পার্কে ভর্তি লোক। এমনকি রাস্তাতেও প্রচুর মানুষ ছিলেন সে সময়। মহিলা শাড়ি পরে ছিলেন। মিলিন্দ ভাবতেও পারেননি মহিলা এই কাজ করবেন।

    মহিলা এই কথা শোনার পর সোজা মাটিতে শুয়ে পড়েন। এবং একের পর এক পুশ-আপ দিতে থাকেন। যা দেখে অবাক হন মিলিন্দ। তিনি ক্যামেরা অন করার আগেই মহিলা প্রায় শেষ করে ফেলেন দশটা পুশ-আপ। মিলিন্দ ওই মহিলার প্রশংসা করে একটি ভিডিও নিজের ইনস্টাতে শেয়ার করেন। সেখানে মিলিন্দ লেখেন, "আমি মজা করেই বলেছিলাম। ভাবতে পারিনি ভদ্রমহিলা সিরিয়াসলি নেবেন। এবং সবার মাঝখানে তিনি এভাবে পুশ-আপ করবেন। তাঁর স্পিরিট আমায় মুগ্ধ করেছে। এমনটাই হওয়া উচিত সকলের। একদম ফিট এই ভদ্রমহিলা। আমার ক্যামেরা অন করার আগেই উনি প্রায় শেষ করে ফেলেছেন পুশ-আপ। এত স্পিরিট আমি আগে কারও মধ্যে দেখিনি। আপনি ভালো থাকবেন।" এই ভিডিও মুহূর্তে ভাইরাল হয়। সকলেই প্রশংসা করেছেন ওই মহিলার।

    Published by:Piya Banerjee
    First published: