নখে কালো নেল পালিশ, চোখে রহস্যের খেলা! অচেনা রূপে কার্তিক আরিয়ান

এক সময়ে কার্তিক নিজেই এক সাক্ষাৎকারে জানিয়েছিলেন যে চকোলেট বয় ইমেজ ভেঙে তিনি এবার বেরিয়ে আসতে চাইছেন।

এক সময়ে কার্তিক নিজেই এক সাক্ষাৎকারে জানিয়েছিলেন যে চকোলেট বয় ইমেজ ভেঙে তিনি এবার বেরিয়ে আসতে চাইছেন।

  • Share this:

#মুম্বই: কার্তিক আরিয়ান (Kartik Aaryan) এত দিন ধরে পর্দায় এবং পর্দার বাইরে ভালো ছেলের ইমেজ তৈরি করেছেন। নিপাট ভালো মানুষ, পাশের বাড়ির ‘গুড বয়’ ইমেজই হল তাঁর ইউএসপি। জনপ্রিয় ফটোগ্রাফার ডাব্বু রত্নানির (Dabboo Ratnani) পাল্লায় পড়ে সেই ইমেজ আর রইল না! ডাব্বুর এই তারকা খচিত ক্যালেন্ডার একটা উৎসবের মতো। ছোট, বড় অনেক তারকাই মুখিয়ে থাকেন ডাব্বুর ক্যামেরায় বন্দী হওয়ার জন্য। এবার সেই ক্যালেন্ডারে আছেন কার্তিকও।

অনেকেই জানেন ডাব্বুর ক্যামেরায় জাদু আছে। তিনি এমনভাবে তারকাদের উপস্থাপন করেন যে তাঁদের একেবারেই অচেনা লাগে। এক্ষেত্রেও তার অন্যথা হয়নি। কার্তিকের গুড বয় ইমেজ ভেঙে তিনি বের করে এনেছেন ব্যাড বয় অবতারকে। এক সময়ে কার্তিক নিজেই এক সাক্ষাৎকারে জানিয়েছিলেন যে চকোলেট বয় ইমেজ ভেঙে তিনি এবার বেরিয়ে আসতে চাইছেন। এবার তিনি খলনায়ক বা অ্যান্টি হিরোর ভূমিকায় কাজ করতে চান। শাহরুখ খানের (Shah Rukh Khan) অন্ধ ভক্ত কার্তিক বলেন যে অনেকটা কিং খানকে দেখেই এই স্বপ্ন মনে জেগেছে তাঁর।

ডাব্বু বোধহয় সেই স্বপ্নকে এবার বাস্তবে রূপ দিলেন। লম্বা কালো কোট, লেয়ার্ড নেকলেস আর একমাথা ঝাঁকড়া এলোমেলো চুলে কার্তিককে প্রায় চিনতেই পারেননি ভক্তরা। কিন্তু সব কিছু ছাপিয়ে যেটা সবার চোখ টেনেছে সেটা হল কার্তিকের হাতের নখে কালো নেলপালিশ। হাতের কব্জির কাছ থেকে উঁকি দিচ্ছে একটি ট্যাটুও। নিজের Instagram হ্যান্ডেলে ছবিটি শেয়ার করেছেন কার্তিক নিজেই। ছবির নিচে ক্যাপশন দিয়েছেন নাম্বার ওয়ান শট বলে!

এই ছবি দেখে ভক্তদের উন্মাদনা কয়েক গুণ বেড়ে যায়। মন্তব্য আসতে থাকে কার্তিকের ইন্ডাস্ট্রির লোকজনের কাছ থেকেও। মজার ছলে ফারহা খান (Farha Khan) বলেন 'কুছ লেতে কিঁউ নেহি'! আবার এই ছবি দেখে মুগ্ধ হয়েছেন পরিচালক সমীর বিদ্বানসও (Sameer Vidwans)।

সত্যনারায়ণ কি কথা (Satyanarayan Ki Katha) বলে একটি ছবিতে কাজ করছিলেন কার্তিক। এই প্রথম প্রযোজক সাজিদ নাদিয়াদওয়ালার (Sajid Nadiadwala) সঙ্গে কাজ করছেন কার্তিক। নমহ পিকচারসের সঙ্গে এই ছবি যৌথভাবে প্রযোকরছেন নাদিয়াদওয়ালা গ্র্যান্ডসন। ছবি পরিচালনা করছেন জাতীয় পুরস্কার বিজয়ী সমীর বিদ্বান। সম্প্রতি হিন্দু ভাবাবেগে আঘাত লাগতে পারে বলে ছবির নাম পাল্টে দেওয়া হয়েছে। সমীর বলেছেন যে ছবির গল্প ও চিত্রনাট্যের মতো ছবির নামও একটি সৃষ্টিশীল প্রক্রিয়ার মাধ্যমে তৈরি হয়। কিন্তু সেটা যদি অনিচ্ছাকৃত ভাবে কারও অনুভুতি বা ভাবাবেগকে আঘাত করে সেটা কাম্য নয়। তাই অনেক ভেবেচিন্তে ছবির নাম পাল্টে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। ছবির নতুন নাম কী হবে সেটা খুব তাড়াতাড়ি জানিয়ে দেওয়া হবে!

Published by:Piya Banerjee
First published: