তিনি মুসলিম কিন্তু মাকে সাফ জানিয়েছিলেন তাঁর 'হিন্দু বউ' ধর্ম পরিবর্তন করবেন না: নাসিরউদ্দিন

তিনি মুসলিম কিন্তু মাকে সাফ জানিয়েছিলেন তাঁর 'হিন্দু বউ' ধর্ম পরিবর্তন করবেন না: নাসিরউদ্দিন
নাসির বলছেন, 'উত্তরপ্রদেশে প্রেমের জিহাদ শুরু হয়েছে তার ফলে সাধারণ মানুষে মধ্যে একটিও জিহাদ শব্দের ভুল ব্যাখ্যা হচ্ছে। যারা এটা করছেন, তারা নিজেরাও জানেন না জিহাদ মানে কী।'

নাসির বলছেন, 'উত্তরপ্রদেশে প্রেমের জিহাদ শুরু হয়েছে তার ফলে সাধারণ মানুষে মধ্যে একটিও জিহাদ শব্দের ভুল ব্যাখ্যা হচ্ছে। যারা এটা করছেন, তারা নিজেরাও জানেন না জিহাদ মানে কী।'

  • Share this:

    #মুম্বই: 'লাভ জিহাদ' নিয়ে নামে দেশে হিন্দু-মুসলিমদের মধ্যে যে দ্বন্দ্ব তৈরি হয়েছে, তা নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন প্রবীণ অভিনেতা নাসিরউদ্দিন শাহ। কারওয়ান-ই-মহব্বত ইন্ডিয়ার (Karwan-e-Mohabbat India) সঙ্গে এক আলাপচারিতায় ৭০বছর বয়সি অভিনেতা নাসিরউদ্দিন বলেন, 'উত্তরপ্রদেশে 'লাভ জিহাদ' নামে দুই ধর্মের মানুষের মধ্যে বিভেদ করার চেষ্টা চলছে। এতে আমি খুব ক্ষুব্ধ। '

    নাসির বলছেন, 'উত্তরপ্রদেশে প্রেমের জিহাদ শুরু হয়েছে তার ফলে সাধারণ মানুষে মধ্যে একটিও জিহাদ শব্দের ভুল ব্যাখ্যা হচ্ছে। যারা এটা করছেন, তারা নিজেরাও জানেন না জিহাদ মানে কী। এবং দ্বিতীয় বিষয়টি নাসির সাব বলছেন যে, তিনি বিশ্বাস করি না যে কেউ এতো বোকা হবে যে সত্যই তারা এই দেশে হিন্দুদের থেকে মুসলমানদের সংখ্যা বাড়বে, এটা ভাববেন। এই ধরণের কাজ সম্পূর্ণ প্রতারণামূলক। কেউ এতে বিশ্বাস করে না। মত নাসিরের।

    তিনি আরও বলেছিলেন, 'এই প্রেমের জিহাদের প্রদর্শন শুধুমাত্র হিন্দু ও মুসলমানদের সামাজিক যোগাযোগ বন্ধ করার জন্যই করা হয়েছে যাতে কেউ ভিন ধর্মের বিবাহ সম্পর্কেও ভাবেন না। বিবাহ তো দূরের ব্যাপার, এর মাধ্যমে একে অপরের সঙ্গে কথা বলাও যেন বন্ধ করে দেওয়ার প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। এই কথা বলতে গিয়ে নাসিরউদ্দিন বলেন যে, আমার স্ত্রী হিন্দু পরিবারের মেয়ে, আর আমি মুসলিম। আমাদের সন্তানরা সব ধর্মের প্রতি সমানভাবে শ্রদ্ধাশীল। তাদের কখনও কোনও ধর্মের প্রতি বেশ আগ্রহ দেখানে হয়নি। তাই আমার মতে ধর্ম নিয়ে যে দূরত্ব তৈরি করে সমাজ, আমাদের এই সম্পর্কের মধ্যে দিয়ে তা অদৃশ্য হবে। আমি রত্নাকে বিয়ে করার আগে আমার মা আমায় জিজ্ঞাসা করেছিলেন যে আমি আমার হবু স্ত্রীর ধর্মান্তার করতে চাই কি না। আমার উত্তর ছিল না। কী ভাবে কেউ কারও ধর্ম পরিবর্তন করেন। এটা কখনও সম্ভব নয়।


    নাসির আরও বলেছেন, 'আমার মা, যিনি শিক্ষিত ছিলেন না, খুব রক্ষণশীল পরিবারে বিয়ে করেছিলেন। তিনি পাঁচবার নামাজ পড়তেন, রামজানে উপবাস রাখতেন, হজযাত্রাও করেছিলেন। তবে তিনিও কখনও ধর্মান্তরের কথা বিশ্বাস করতেন না। নিজের ধর্মের প্রতি শ্রদ্ধা রাখা এবং একই সঙ্গে অন্যের ধর্মকে শ্রদ্ধা করাই উচিৎ, মত নাসিরের।

    Published by:Pooja Basu
    First published: