ফের দিল চাহতা হ্যায়? আশা পারেখের সঙ্গে হেলেন আর ওয়াহিদা রহমান? মুখ খুললেন বর্ষীয়ান নায়িকা...

বয়স যে কাউকে বৃদ্ধ করতে পারে না, তারই যেন প্রমাণ দিলেন একটা সময় বলিউডে চুটিয়ে রাজ করা এই তিন নায়িকা।

বয়স যে কাউকে বৃদ্ধ করতে পারে না, তারই যেন প্রমাণ দিলেন একটা সময় বলিউডে চুটিয়ে রাজ করা এই তিন নায়িকা।

  • Share this:

#মুম্বই: ষাটের দশকের এক উজ্জ্বল অভিনেত্রী আশা পারেখ (Asha Parekh)। করোনায় যখন আতঙ্গিত গোটা দেশ, তখনও জীবনকে নতুন ভাবে উপভোগ করতে দুই বান্ধবীকে নিয়ে আন্দামানে পাড়ি দিয়েছিলেন অভিনেত্রী। সাবধানতা অবলম্বন করেই সমুদ্রতটে পৌঁছে গিয়েছিলেন ওয়াহিদা রহমান (Waheeda Rehman), আশা পারেখ এবং হেলেন (Helen)। সত্যি, বয়স যে কাউকে বৃদ্ধ করতে পারে না, তারই যেন প্রমাণ দিলেন একটা সময় বলিউডে চুটিয়ে রাজ করা এই তিন নায়িকা!

তবে নিজের ব্যক্তিগত জীবনকে একান্তই নিজের মধ্যে রাখতে পছন্দ করেন অভিনেত্রী আশা পারেখ। নিজের ব্যক্তিগত জীবনকে সে ভাবে জনসমক্ষে আনতে পছন্দ করেন না অভিনেত্রী। আর তাই এবার ব্যক্তিগত স্থান লঙ্ঘণের কারণে গভীর ভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হলেন তিনি।

তাঁদের আন্দামান ট্রিপের কিছু ছবি প্রকাশ্যে আসায় প্রসঙ্গে কিছুটা রাগান্বিতভাবেই অভিনেত্রী বলেন, “এই ছবিগুলি লকডাউনের ঠিক আগে মার্চের শেষের দিক যখন আমরা আন্দামানে ছুটি কাটাতে যাই, তার থেকে নেওয়া। আমরা ভেবেছিলাম এটি খুব ব্যক্তিগত ছুটি ছিল। আমরা শুধু বেরিয়ে যেতে চেয়েছিলাম আরাম করার জন্য। কারা ছবিটি নিয়েছে সে সম্পর্কে আমাদের ধারণা নেই। তবে সম্ভবত তাঁরা পর্যটক ছিলেন। বহু মানুষ এখানে ছুটি কাটাতে এসেছিলেন। আজ কাল কোই ভি ফটো লে সকতা হ্যায় বিনা ইজাযত কে (আজকাল যে কেউ আপনার সম্মতি ছাড়াই আপনার ছবিতে তুলতে পারেন)।”

ছুটি কাটিয়ে যখন মুম্বইয়ে ফেরেন এই সুন্দরী অভিনেত্রী, ঠিক তখনই আন্দামানে তাঁদের ছুটি কাটানোর ছবিগুলি ভাইরাল হতে দেখে অবাক হয়ে যায় তিনি। “আমার চেয়েও বেশি ওয়াহিদা রহমান ও হেলেন মন খারাপ করেছিলেন। তাঁরা আমার চেয়েও বেশি ব্যক্তিগত জীবন ব্যক্তিগত ভাবে রাখতে চান। সকলে এই ছবিগুলি শেয়ার করছিল এবং বলছিল আমাদের তিনজনেরই ‘দিল চাহতা হ্যায়’ (Dil Chahta Hai)-এর রিমেকে অভিনয় করা উচিত। দিল চাহতা হ্যায় কেন? এটি আসলে জিন্দগি না মিলেগি দোবারা (Zindagi Na Milegi Dobara)-এর মতো ছিল।”

আশা পারেখ মনে করেন, সোশ্যাল মিডিয়া বিখ্যাত ব্যক্তিত্বদের গোপনীয়তার অধিকারকে ছিনিয়ে নিয়েছে। “যে কেউ আপনার সঙ্গে একটি সেলফি তুলতে পারে। প্রথমে অটোগ্রাফ চাইতো, এখন সেলফি। আপনি যখন আপনার পরিবার বা ঘনিষ্ঠ বন্ধুদের সঙ্গে রয়েছেন, তখন এমন ধরণের অনুপ্রবেশ, সীমা লঙ্ঘণের মতো মনে হয়।"

তবে স্ক্রিন ডিভা এটাও স্বীকার করেছেন যে, আন্দামান দ্বীপপুঞ্জে দুই বন্ধুর সঙ্গে বেশ মজা করেছিলেন তিনি।

Published by:Shubhagata Dey
First published: