বিয়ের আগে হোক বা পরে, সঙ্গমের আগে পুরুষের কী করা উচিৎ, বলছেন বলিউডের অভিনেতারা!

সম্প্রতি বলিউড থেকে যে প্রতিবাদ উঠল, তা শুধুই বৈবাহিক ধর্ষণে সীমাবদ্ধ নেই।

সম্প্রতি বলিউড থেকে যে প্রতিবাদ উঠল, তা শুধুই বৈবাহিক ধর্ষণে সীমাবদ্ধ নেই।

  • Share this:

#মুম্বই: অস্বীকার করা যায় না যে বিশ্বের সব প্রান্তেই একটা বড় সংখ্যক নারীদের বৈবাহিক ধর্ষণের সম্মুখীন হতে হয়। যে শারীরিক মিলনের আগে স্ত্রীর সম্মতি নেওয়া হচ্ছে না, তা বৈবাহিক ধর্ষণের আওতায় পড়ে। আবার, স্ত্রীর অনিচ্ছা থাকলেও তা অগ্রাহ্য করে বলপূর্বক সঙ্গম ধর্ষণ তো বটেই! এই সমস্যা নিয়ে বহু শতাব্দী হয়ে গেল বিশ্ব জেরবার হয়ে আছে। তবে সম্প্রতি বলিউড থেকে যে প্রতিবাদ উঠল, তা শুধুই বৈবাহিক ধর্ষণে সীমাবদ্ধ নেই। সাফ বলছেন বলিউডের অভিনেতারা- বিয়ের আগে হোক বা পরে, সঙ্গমের সময়ে যে কোনও পুরুষের সব সময়েই নারীর অনুমতি নেওয়া উচিৎ।

খবর বলছে যে Disney+ Hotstar তাদের অফিসিয়াল সোশ্যাল মিডিয়া পেজে বৈবাহিক ধর্ষণের প্রতিবাদে একটি সাদা-কালো ভিডিও শেয়ার করেছে। তার শুরুতেই ইশকবাজ (Ishqbaaaz)-এর নকুল মেহতা (Nakuul Mehta), স্ক্যাম ১৯৯২ (Scam 1992)-এর প্রতীক গান্ধী (Pratik Gandhi), মির্জাপুর ২ (Mirzapur 2)-এর বিজয় বর্মা (Vijay Varma) এবং থাপ্পড় (Thappad)-এর পাভেল গুলাটিকে (Pavail Gulati) মুখ খুলতে দেখা যাচ্ছে। সঙ্গে রয়েছেন স্পেশ্যাল ওপিএস (Special OPS)-এর অভিনেতা করণ ট্যাকারও (Karan Tacker)। প্রাথমিক ভাবে বৈবাহিক ধর্ষণের প্রসঙ্গ উঠলেই অধিকাংশ পুরুষ যা বলে থাকেন, সেই সব কথা শোনা যাচ্ছে তাঁদের গলায়।

https://www.instagram.com/p/CJ5QpQRKNoC/?utm_source=ig_web_copy_link

স্ত্রীকে আবার জিজ্ঞাসা করার কী আছে, মুখে না বললেও মনে ঠিক সায় দেয়, স্ত্রীকে যখন খুশি ব্যবহার করা না গেলে আর বিয়ের সুবিধা কী- এমন অজস্র পুরুষতান্ত্রিক নিষ্ঠুর উক্তির সামনে দর্শককে দাঁড় করিয়ে দিচ্ছেন এই অভিনেতারা। এর পরেই তাঁরা গর্জে উঠছেন প্রতিবাদে। সব শেষে সাফ জানিয়ে দিচ্ছেন পঙ্কজ ত্রিপাঠি (Pankaj Tripathi)- কেন সঙ্গমে নারীর অনুমতি নেওয়াটা প্রয়োজন। ভিডিওটির নামও দেওয়া হয়েছে- পুছনা জরুরি হ্যায়!

অনেকেই বলছেন যে Disney+ Hotstar তাদের ওয়েব সিরিজ ক্রিমিনাল জাস্টিস: বিহাইন্ড দ্য ক্লোজড ডোরস (Criminal Justice: Behind Closed Doors)-এর প্রচারের উদ্দেশে এই ভিডিওটি পোস্ট করেছে। কেন না, এই ওয়েব সিরিজ বৈবাহিক ধর্ষণের স্বীকার এক নারী এবং তার স্বামীর হত্যার গল্প বলে। যে দুই চরিত্রে যথাক্রমে অভিনয় করেছেন কীর্তি কুলহারি (Kirti Kulhari) এবং যিশু সেনগুপ্ত (Jisshu Sengupta)। কিন্তু এই সমালোচনা দূরে রেখেও জনসচেতনতা প্রচারের দিক থেকে বলিউডের এই উদ্যোগকে সাধুবাদ জানাতেই হয়!

Published by:Dolon Chattopadhyay
First published: