সিঁদুরে মাখামাখি কপাল, রিসেপশনে সাদা লেহেঙ্গা...নেহা কক্করের থেকে নজর ফিরবে না

রাত পোশাকে মেহেন্দি, হলুদ পোশাকে হলদি, লাল টুকটুকে লেহেঙ্গায় বিয়ে, আর রিসেপশনে সাদা....নেহার বিয়ের প্রতিটা সাজই ছিল নজরকাড়া ।

রাত পোশাকে মেহেন্দি, হলুদ পোশাকে হলদি, লাল টুকটুকে লেহেঙ্গায় বিয়ে, আর রিসেপশনে সাদা....নেহার বিয়ের প্রতিটা সাজই ছিল নজরকাড়া ।

  • Share this:

    #মুম্বই: নেহা কক্করের বিয়ে। কয়েক দিন আগেই সোশ্যাল মিডিয়ায় নিজের ভালবাসার মানুষ রোহনপ্রীতের কথা জানিয়েছিলেন নেহা কক্কর। শোনা গিয়েছিল ২৪ তারিখ তাঁর বিয়ে। কিন্তু তা নিয়ে কিছু না জানিয়েই একটি মিউজিক অ্যালবাম লঞ্চ করেছেন নেহা। 'নেহু দ্য বিহা' সেখানে রোহনপ্রীত গান করেছেন তাঁর সঙ্গে। এর পরেই সকলে বলতে শুরু করেন, তার মানে এ বারেও বিয়েটা করছেন না নেহা। মিউজিক অ্যালবামের জন্যই বোধহয় প্রচার পেতে এমন কাণ্ড ঘটিয়েছেন । কিন্তু না, সকলকে ভুল প্রমান করলেন নেহা। এ বার সত্যিই বিয়ে করে নিলেন তিনি ।

    পূর্ব নির্ধারিত তারিখ, ২৪ অক্টোবরই সাত পাকে বাঁধা পড়েছেন নেহা-রোহন । দিল্লির এক পাঁচতারা হোটেলে বসেছিল তাঁদের বিয়ের আসর। হলদি থেকে মেহন্দি, সঙ্গীত থেকে জয়মালা, সাত ফেরে...সবকিছুর একাধিক নজরকাড়া ছবি আর ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় দেওয়াল ভরিয়ে তুলেছে। আর নেহা এবং রোহন নিজেরাই যেখানে সঙ্গীতশিল্পী, সেখানে জমাটি সঙ্গীতের আসর বসবে না তা আবার হয় নাকি ।

    কখনও বিয়ের অনুষ্ঠানে, কখনও রিং সেরিমনিতে, কখনও রিসেপশনে, কখনও জলসায়....দু’জনেই গান করেছেন চুটিয়ে । নেচেছেন ফাটিয়ে । সেই ভিডিওগুলো এখন তুমুল ভাইরাল সোশ্যাল মিডিয়ায় ।

    নেহা আর রোহন, দু’জনেই পঞ্জাবী । তাই শিখ রীতি মেনে গুরুদ্বারে সম্পন্ন হয়েছে তাঁদের মূল বিয়ে । এ ছাড়াও হোটেলের বিবাহ মণ্ডপেও সম্পন্ন হয় একাধিক শুভ অনুষ্ঠান । রাত পোশাকে মেহেন্দি, হলুদ পোশাকে হলদি, লাল টুকটুকে লেহেঙ্গায় বিয়ে, আর রিসেপশনে সাদা....নেহার বিয়ের প্রতিটা সাজই ছিল নজরকাড়া । সিঁথি ভর্তি সিঁদুর, হাত ভর্তি চূড়ায় বিয়ের পর আরও সুন্দর লাগছিল তাঁকে দেখতে ।

    তবে সকলে এই কথাটা একবাক্যে স্বীকার করে নিচ্ছেন, নেহার মতো ছটফটে, চনমনে, এনার্জিতে ভরপুর, নববধূ খুব কমই দেখা যায় । মন খুলে তিনি নাচছেন, গাইছেন, ফটোসেশন করছেন । অবশ্য রোহনও কম যান না । যা দেখে ভক্তরা বলছেন, নেহুর জন্য রহুই একেবারে পারফেক্ট পাত্র ।

    Published by:Simli Raha
    First published: