• Home
  • »
  • News
  • »
  • entertainment
  • »
  • পাহাড়ে আন্দোলনের জের, দার্জিলিঙে বাতিল পাঁচটি সিনেমার শ্যুটিং

পাহাড়ে আন্দোলনের জের, দার্জিলিঙে বাতিল পাঁচটি সিনেমার শ্যুটিং

এই দার্জিলিঙেই এক সময় শ্যুটিং হয়েছিল ‘আরাধনা’ ছবির ৷ জনপ্রিয় হয়েছিল টয়ট্রেনে ‘মেরে সপনো কী রানি’ ৷

এই দার্জিলিঙেই এক সময় শ্যুটিং হয়েছিল ‘আরাধনা’ ছবির ৷ জনপ্রিয় হয়েছিল টয়ট্রেনে ‘মেরে সপনো কী রানি’ ৷

এই দার্জিলিঙেই এক সময় শ্যুটিং হয়েছিল ‘আরাধনা’ ছবির ৷ জনপ্রিয় হয়েছিল টয়ট্রেনে ‘মেরে সপনো কী রানি’ ৷

  • Share this:

    #দার্জিলিং: এই দার্জিলিঙেই এক সময় শ্যুটিং হয়েছিল ‘আরাধনা’ ছবির ৷ জনপ্রিয় হয়েছিল টয়ট্রেনে ‘মেরে সপনো কী রানি’ ৷ শ্যুটিং হয়েছিল ‘পরিণীতা’, আর রণবীর কাপুরের ‘বরফি’রও ৷ এমনকী, হালফিলের জগ্গা জাসুস ছবিতেও রয়েছে দার্জিলিং ৷ বলিউডের কাছে বরাবরই খুব প্রিয় এই শৈল শহর ৷ আর টলিউডের কাছে পাহাড় মানেই তো দার্জিলিং ও তার আশপাশ ৷ সেই দার্জিলিং-ই আজ অশান্ত ৷ টানা বনধে বিপর্যস্ত ৷ আর এই বনধের জেরে এবার বাতিল হল প্রায় ৫টি ছবির শ্যুটিং ৷

    পাহাড়ে আন্দোলনের জের। দার্জিলিঙে পাঁচটি সিনেমার শুটিং বাতিল করা হল। এর মধ্যে দু’টি বিদেশি সিনেমারও শুটিং হওয়ার কথা ছিল। কালিম্পঙ ও দার্জিলিঙে শুটিংয়ের কথা ছিল সুইস প্রোডাকশন হাউসের। কর্ণাটকের একটি বিশ্ববিদ্যালয়ের সিল্ক রুটের উপর ডকুমেন্টরি শ্যুটিংয়ের পরিকল্পনা ছিল। এছাড়াও মুম্বইয়ের একটি প্রোডাকশন হাউসের দু’টি সিনেমা ও একটি বাংলা সিনেমারও শ্যুটিং হওয়ার কথা ছিল। ২০১৬ -এর ডিসেম্বর থেকে হোটেল ও গাড়ি সমস্ত বুক করা ছিল। দার্জিলিংয়ের ম্যাল, চৌরাস্তা, কেভেন্টার্স, তাকদা, ঋষিখোলা ও কাম্পিঙের কয়েকটি জায়গায় হোটেল ও গাড়ি বুক করা হয়। এরপর এই বছরের জুলাই ও অগাস্টে শুটিং করার পরিকল্পনা নেওয়া হয়। অভিনয় করার কথা ছিল স্থানীয় শিল্পীদেরও। কিন্তু এই পরিস্থিতিতে শ্যুটিং সম্ভব নয়। জানিয়ে দেওয়া হয়েছে লাইন প্রোডিউসরকে। কবে শুটিং হবে তাও নির্দিষ্ট করে জানানো হয়নি। যদিও পাহাড়ের শিল্পীরা জানিয়েছেন, তাঁরা গোর্খাল্যান্ড নিয়েই ভাবতে চান।

    First published: