Joint Entrance Exam: কী কারণে ফের পিছিয়ে দেওয়া হল জয়েন্ট এন্ট্রান্স পরীক্ষা? খোলসা করলেন বোর্ড চেয়ারম্যান...

জয়েন্ট এন্ট্রান্স পরীক্ষা। ফাইল ছবি।

পরীক্ষার দিন বদল হলেও বোর্ডের চেয়ারম্যান জানিয়েছেন, পরীক্ষার ফলাফল ঘোষণা হবে ১৪ অগাস্টের মধ্যেই। ১৫ সেপ্টেম্বরের মধ্যে কাউন্সিলিং শেষ করা হবে।

  • Share this:

#কলকাতা: করোনা পরিস্থিতির (Coronavirus 2nd Wave) জন্য ছ'দিন পিছিয়ে দেওয়া হয়েছে জয়েন্ট এন্ট্রান্স পরীক্ষা (WBJEE 2021)। এ বছর জয়েন্ট এন্ট্রান্স পরীক্ষা হওয়ার কথা ছিল ১১ জুলাই। কিন্তু বোর্ডের ঘোষণা অনুযায়ী নতুন পরীক্ষার দিন ধার্য হয়েছে ১৭ জুলাই। জয়েন্ট এন্ট্রান্স এক্সামিনেশন (Joint Entrance Exam 2021) বোর্ডের চেয়ারম্যান মলয়েন্দু সাহা বলেন, "কোভিড পরিস্থিতির (COVID 19 Pandemic) কথা মাথায় রেখে ছ'দিন পরীক্ষা পিছিয়ে দেওয়া হল। আমাদের মনে হয় ততদিনে কোভিভ পরিস্থিতির আরও উন্নতি হবে।" পরীক্ষার দিন বদল হলেও বোর্ডের চেয়ারম্যান জানিয়েছেন, পরীক্ষার ফলাফল ঘোষণা হবে ১৪ অগাস্টের মধ্যেই। ১৫ সেপ্টেম্বরের মধ্যে কাউন্সিলিং শেষ করা হবে।

প্রতি বছর জয়েন্ট এন্ট্রান্স পরীক্ষা হয় এপ্রিলের শেষের দিকে। কিন্তু এ বারে বিধানসভা ভোট (West bengal Assembly Election 2021) এবং করোনা পরিস্থিতির কথা মাথায় রেখে পরীক্ষা পিছিয়ে ১১ জুন করার কথা ঘোষণা করে বোর্ড। এ বার মোট ৯২,৬৯৫ জন ছাত্র-ছাত্রী পরীক্ষায় বসার জন্য আবেদন করেছে। যার মধ্যে ৬০ শতাংশ ছাত্র-ছাত্রী পশ্চিমবঙ্গের। বাকি ৪০ শতাংশ পরীক্ষার্থী ভিন রাজ্যর। এ বারে মোট ২৭৪টি কেন্দ্রে পরীক্ষা নেওয়ার ব্যবস্থা করা হয়েছে বোর্ডের তরফে। করোনা পরিস্থিতির কথা মাথায় রেখে পরীক্ষা কেন্দ্রগুলোকে এ বছর বেশি সংখ্যক জোনে ভাগ করা হয়েছে। পরীক্ষার্থীদের যাতে পরীক্ষা দিতে পারেন বাড়ির কাছাকাছি জোনে, সেই ব্যবস্থাই করা হচ্ছে। ঠিক হয়েছে কম করে চার থেকে পাঁচ ফুট দূরত্ব বজায় রেখে পরীক্ষার্থীরা পরীক্ষা দিতে বসবে। একটি ঘরে সর্বাধিক ২০জন পরীক্ষার্থী বসবেন।

পাশাপাশি, পরীক্ষা কেন্দ্রে সেন্টার ইন-চার্জদের জন্য একটি বুকলেট তৈরি করেছে বোর্ড। যাতে বিশেষ এই পরিস্থিতিতে কী করতে হবে, তার বিস্তারিত উল্লেখ রয়েছে। বোর্ড চেয়ারম্যান মলয়েন্দু সাহা বলেন, "করোনা পরিস্থিতির মধ্যে রাজ্যে এটাই প্রথম অফ লাইন পরীক্ষা। তাই আমাদের সব রকম ভাবে সতর্ক থাকতে হবে।" পরীক্ষার ছ'দিন পিছিয়ে দেওয়া কারণ হিসেবে তিনি বলেন, "ততদিনে যান চলাচল শুরু হয়ে যাবে বলে আশা করছি। ফলে ছাত্র ছাত্রীদের তেমন অসুবিধায় পড়তে হবে না। একইসঙ্গে পরীক্ষাটি আমরা শনিবার রেখেছি। কারণ, রবিবার এমনিতেই ট্রেন বাস কম চলে। তার ওপর করোনার জন্য আরও কম চলতে পারে।"

 SOUJAN MONDAL

Published by:Shubhagata Dey
First published: