Home /News /education-career /
BYJU’S Young Genius সিজন ২ শুরু হচ্ছে ধামাকাদার প্রথম এপিসোডের সঙ্গে

BYJU’S Young Genius সিজন ২ শুরু হচ্ছে ধামাকাদার প্রথম এপিসোডের সঙ্গে

#BYJUSYoungGenius2 ফিরে আসছে ধামাকাদার প্রথম এপিসোডের সঙ্গে। কেন এটি অবশ্যই দেখবেন তা জেনে নিন!

  • Share this:

    ছোট বাচ্চা এবং অসাধারণ মেধাসম্পন্ন শিশুরা যখন স্টেজে এসে তাদের প্রতিভার পরিচয় দেয়, সেটা দেখে আমরা যে কতটা আনন্দ পাই, তা ভাষায় প্রকাশ করা মুশকিল। এই জিনিয়াস কচিকাচারা যখন স্টেজে উঠে আসে এবং দুর্ধর্ষ পারফর্ম করে সকলকে তাক লাগিয়ে দেয়, সেই অসাধারণ অভিজ্ঞতা প্রত্যক্ষ করার মজাই আলাদা। তবে পারফর্ম করে খুদেরা বেশি উৎসাহিত হয়, নাকি ভারতের এই খুদে জিনিয়াসদের পারফর্মেন্স দেখে দর্শকরা বেশি সন্তুষ্ট হন, তা বলা মুশকিল।

    ওয়ার্ল্ড কিকবক্সিং চ্যাম্পিয়ান - দুই বার

    ঠিক এটাই হয়েছে, যখন News18 –এর উদ্যোগ BYJU'S Young Genius তার দ্বিতীয় সিজন শুরু করছে তাজামুল ইলসামের সাথে, কাশ্মীরের তর্কপোরার বাসিন্দা এই 14-বছরের কিশোরী সমাজের রক্তচক্ষু এবং বাবার বিরোধিতার সাথে লড়াই করে ওয়ার্ল্ড কিকবক্সিং চ্যাম্পিয়ানের শিরোপা জিতেছিল।

    ইসলাম, 2016 সালে ইতালির আন্দ্রিয়াতে ওয়ার্ল্ড কিকবক্সিং চ্যাম্পিয়নশিপ জিতে নিয়েছিল। তখন তার বয়স ছিল মাত্র নয় বছর। এরপরে সে আরও বহু প্রশংসা কুড়িয়েছে এবং মেডেল জিতেছে, এমনকী 2015 সালে দিল্লিতে আয়োজিত ন্যাশনাল কিকবক্সিং চ্যাম্পিয়ানশিপে সে U-13 ক্যাটাগরিতে সোনা-ও জিতেছিল।

    মাত্র পাঁচ বছর বয়স থেকে সে কিকবক্সিং শেখা শুরু করে। প্রাথমিক ভাবে মেয়ের কিকবক্সিং শেখার বিরোধিতা করেছিলেন ইসলামের বাবা, কিন্তু পরে তিনিই হয়ে উঠেছেন মেয়ের সবচেয়ে বড় ভক্ত ও সমর্থক। 2016 সালে জয়ের পরে, যখন ইসলামের বয়স মাত্র 12 বছর, তখনই কিছু অর্থনৈতিক সমস্যার কারণে সে কিকবক্সিং প্রশিক্ষণ দিতে শুরু করে। 800 জনেরও বেশি জনকে সে প্রশিক্ষণ দিয়েছে এবং সে আশাবাদী যে, তার কাছ থেকে প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত অনেকেই কিকবক্সিং-এ পুরস্কার জিতবে।

    সম্প্রতি 2021 সালের অক্টোবরে এই কিশোরী মিশরে আয়োজিত ওয়ার্ল্ড কিকবক্সিং চ্যাম্পিয়ানশিপে সোনার মেডেল জিতে নিয়েছে এবং মিশরের স্টেডিয়ামে ভারতীয় পতাকা উড়েছে সবচেয়ে উঁচুতে। যদি 2028 সালের মধ্যে কিকবক্সিং আনুষ্ঠানিক স্বীকৃতি পায়, তাহলে ইসলাম দেশের জন্য সে অলিম্পিকের মেডেল জেতার স্বপ্ন দেখে। এখনও পর্যন্ত তার সাফল্যের ইতিহাস দেখে আমরাও আশা করতে পারি যে, সুযোগ পেলে এই কিশোরীর স্বপ্ন অবশ্যই সত্যি হবে। শুধু আমরা নই, এই শো-তে ইসলামের সাথে দেখা করার পরে অলিম্পিকে ব্রোঞ্জ মেডেল-জয়ী লাভলিনা বর্গোহেন-ও একই আশা করছেন।

    একজন অলিম্পিয়াড এবং পুরস্কার-জয়ী অ্যাপ ডেভেলপার

    এই এপিসোডে পরবর্তী যে খুদে জিনিয়াসের সাথে পরিচয় হবে, তার নাম হারমানজোত সিং, ইতিমধ্যে সে একজন পুরস্কার-বিজয়ী অ্যাপ ডেভেলপার এবং অলিম্পিয়াড চ্যাম্পিয়ান। 14-বছরের এই কিশোর থাকে মাত্র কয়েকশো কিলোমিটার দূরে এবং 2021 সালে সে ইনোভেশান বা উদ্ভাবন ক্যাটেগরি-তে প্রধানমন্ত্রী রাষ্ট্রীয় বাল পুরস্কার গ্রহণ করেছে। রক্ষা উইমেন্স সেফটি অ্যাপ তৈরি করে ইতিমধ্যেই সুপরিচিত হয়ে উঠেছে সিং, নিজের মা এবং অন্য মহিলাদের সুরক্ষার কথা ভেবে সে এই অ্যাপ তৈরি করেছিল।

    মহিলারা যদি কোনও অপ্রত্যাশিত সমস্যার মুখে পড়েন, তাহলে এই অ্যাপের মাধ্যমে ইউজার খুব সহজে পুলিশের সাথে বা পরিবারের কোনও সদস্যের সাথে যোগাযোগ করতে পারবেন এবং ইমার্জেন্সি নম্বরের তালিকা থেকে যে কোনও নম্বরে ফোন করতে পারবেন। রক্ষা উইমেন্স সেফটি অ্যাপ তৈরি করার জন্য সিং ইতিমধ্যে আমেরিকার সান ফ্রান্সিসকো ক্যালিফোর্নিয়ায় অবস্থিত হোয়াইট হ্যাট অর্গ্যানাইজেশান দ্বারা আয়োজিত সিলিকন ভ্যালি কোড অফ অনার গ্রহণ করেছে। এই অ্যাপ গুগল প্লে স্টোরে সম্পূর্ণ বিনামূল্যে উপলভ্য রয়েছে এবং এটি 5000-এর বেশি বার ডাউনলোড করা হয়েছে।

    সিংয়ের পুরো পরিবারের মেডিক্যাল ব্যাকগ্রাউন্ড রয়েছে, তবে সে ছোটবেলা থেকেই ফিজিক্স এবং কম্পিউটার নিয়ে পড়তে পছন্দ করত। তাই সে তৃতীয় শ্রেণীতে পড়ার সময়েই অলিম্পিয়াড টেস্টে অংশগ্রহণ করে। সেই সময়ে সে বিজ্ঞানে জীবনের প্রথম মেডেল জিতেছিল এবং সপ্তম শ্রেণীতে পড়ার সময় থেকে সে কোডিং শুরু করে।

    রক্ষা উইমেন্স সেফটি অ্যাপ তৈরি করার পরে বিখ্যাত হলেও, সিং তার কাজ থামিয়ে দেয়নি বরং সে গত বছরে আরও দুইটি অ্যাপ তৈরি করেছে – সাইবার বাডি, এটি হল একটি অ্যান্টি সাইবার বুলিং অ্যাপ এবং কামিফাই – এটি একটি মানসিক স্বাস্থ্য পরিচর্যার অ্যাপ, যার মাধ্যমে ভাবাবেগের সুস্থতার ক্ষেত্রে স্বাস্থ্যকর অ্যাপ্রোচ গ্রহণ করা সম্ভব।

    বর্তমানে, জ্যুরি সদস্য তথা আমূলের এমডি আর. এস. সোধি-র পরামর্শ মেনে সে এমন একটি অ্যাপ তৈরি করার চেষ্টা করছে যার মাধ্যমে কৃষক এবং গ্রামবাসীরা উপকৃত এবং লাভবান হবেন। আমরা সকলেই এটির জন্য অপেক্ষা করে রয়েছি!

    এখানেই শেষ নয়। আগামী সপ্তাহে BYJU’S Young Genius –এর দ্বিতীয় এপিসোড সম্প্রচার করা হবে এবং সেটি দেখতে ভুলবেন না যেন! কারণ সেখানে থাকবে ভারতের আরও কয়েক জন প্রতিভাবান খুদের অনুপ্রেরণামূলক গল্প। তাই প্রতিটি এপিসোড দেখুন এবং আরও আপডেট পেতে আমাদের ফলো করুন।

    Published by:Ananya Chakraborty
    First published:

    Tags: BYJU'S Young Genius, Byjus, BYJUSYoungGenius2

    পরবর্তী খবর