corona virus btn
corona virus btn
Loading

লিভ ইন রিলেশনে স্ত্রী, সহ্য করতে না পেরে স্ত্রী-র প্রেমিককে দা-এর কোপ স্বামীর !

লিভ ইন রিলেশনে স্ত্রী, সহ্য করতে না পেরে স্ত্রী-র প্রেমিককে দা-এর কোপ স্বামীর !
Representational Image

স্বামীর হাতে রক্তাক্ত প্রেমিককে দেখে চিৎকার জুড়ে দেয় রিঙ্কু। তখন স্ত্রী-কে থামাতে তাঁকে লক্ষ্য করেও দা চালায় তপন দাস।

  • Share this:
#বনগাঁ: উত্তর ২৪ পরগনার বাগদা থেকে প্রায় দিন বনগাঁয় এসে নজর রাখতেন নিজের স্ত্রী-র উপর। বেশ কয়েক দিনের রেকিও করেন রিঙ্কুর স্বামী তপন দাস। বৃহস্পতিবার রাতে রিঙ্কু দাস তাঁর প্রেমিক চন্দন দত্তকে সঙ্গে নিয়ে বনগাঁ বাজার করতে বেড়িয়েছিলেন। রাত প্রায় ন’টার দিকে রিঙ্কুর স্বামী ওৎ পেতে বসেছিলেন বনগাঁ হাসপাতালের পিছনে একটি শুনশান জায়গায়। একটু অন্ধকার পেয়ে শিকারের উপর ঝাপিয়ে পড়ে সে। স্ত্রী-র প্রেমিকের ঘাড় লক্ষ্য করে দা চালায় সে। কিন্তুু অপটু হাতে দাঁয়ের কোপ গিয়ে পড়ে গলার কাছে।
স্বামীর হাতে রক্তাক্ত প্রেমিককে দেখে চিৎকার জুড়ে দেয় রিঙ্কু। তখন স্ত্রী-কে থামাতে তাঁকে লক্ষ্য করেও দা চালায় তপন দাস। রিঙ্কুর মাথায় লাগে ৷ সেসময় রিঙ্কুর চিৎকারে ছুটে আসে আশপাশের লোকজন। তপন দাস-কে উপস্থিত জনতা মারধর করে পুলিশের হাতে তুলে দেয়। প্রেমিক- প্রেমিকাকে উদ্ধার করে বনগাঁ হাসপাতালে ভর্তিও করায় তারা।
বাগদার কোনিয়ার গ্রামের তপন দাসের সঙ্গে ২০১৩ সালে বিয়ে হয়েছিল মালদহ জেলার মেয়ে রিঙ্কু মন্ডলের l তাঁদের একটি সাড়ে তিন বছরের পুত্র সন্তানও রয়েছে  l রিঙ্কুর অভিযোগ, বিয়ের পর থেকেই তার উপরে অত্যাচার চালাতেন স্বামী তপন দাস l স্বামীর নির্যাতন সহ্য না করতে পেরে একাধিক বার বাপের বাড়িতে গিয়ে থাকেছেন তিনিl  ২০১৯-এর ডিসেম্বর মাসে বাগদা থানায় স্বামীর বিরুদ্ধে লিখিত বধূ নির্যাতনের অভিযোগও দায়ের করেন l
সম্প্রতি বনগাঁর বাসিন্দা চন্দন দত্তের সঙ্গে থাকা শুরু করে রিঙ্কু l বৃহস্পতিবার রাতে তপন দাস স্ত্রী রিঙ্কু ও তার প্রেমিক চন্দন দত্তকে আগে থেকেই নজর রাখছিল তপন দাস।  তপনের দাঁয়ের কোপে আহত চন্দন দত্ত বর্তমানে বনগাঁ হাসপাতালে ভর্তি।  প্রেমিককে বাঁচাতে গিয়ে আহত হয় রিঙ্কু মন্ডলের মুখে দায়ের কোপ  লাগে। তাঁকে  হাসপাতালে ভর্তি করা হলেও, প্রাথমিক চিকিৎসার পরে ছেড়ে দেওয়া হয় l চন্দন গুরুতর আহত অবস্থায় বনগাঁ মহকুমা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন l
রাজর্ষী রায়
Published by: Siddhartha Sarkar
First published: February 8, 2020, 8:19 AM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर