Home /News /crime /
কালিয়াচক হত্যাকাণ্ডে ময়নাতদন্তের রিপোর্ট ট্যুইস্ট, বাবার গলায় ক্ষত চিহ্ন, মায়ের গলায় দাগ

কালিয়াচক হত্যাকাণ্ডে ময়নাতদন্তের রিপোর্ট ট্যুইস্ট, বাবার গলায় ক্ষত চিহ্ন, মায়ের গলায় দাগ

ময়নাতদন্তের রিপোর্ট ভাবাচ্ছে পুলিশকে, কারণ আসিফের বয়ানের থেকে বড় অসঙ্গতি এল ময়নাতদন্তের রিপোর্টে৷

  • Share this:

#মালদহ: কালিয়াচক হত্যাকাণ্ডে ময়নাতদন্তের রিপোর্টে নতুন তথ্য মিলল । আসিফের বাবার গলায় ক্ষত চিহ্ন । মায়ের গলায় মিলেছে  দাগ। খুনের ঘটনায় কোনও তথ্য লুকোচ্ছে আসিফ ? সন্দেহ তদন্তকারীদের । আসিফকে নতুন করে জেরা করার সিদ্ধান্ত । আদালতে গিয়ে আসিফকে ফের জিজ্ঞাসাবাদ করবে পুলিশ । আসিফকে জেলা সংশোধনাগারে জিজ্ঞাসাবাদের আবেদন মঞ্জুর মালদহ আদালতে জানালেন জেলা পুলিশ সুপার অলোক রাজরিয়া। ময়নাতদন্তের যুক্ত চিকিৎসকদের সঙ্গেও  কথা বলেছে পুলিশ ।আসিফের বাবার গলায় ক্ষত চিহ্ন কিভাবে তৈরি হয়েছে ? মায়ের গলায় দাগ কিসের ? খুনের আগে মাকে গলা টিপে শ্বাসরোধ করার মতো কোনো ঘটনা হয়েছে কিনা ? বাবাকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কোনরকম আঘাত করা হয়েছিল কী ?  নিশ্চিত হতে চাইছে পুলিশ ।

এতদিন পুলিশের জেরায় ঠান্ডা পানীয়ের সঙ্গে ঘুমের ওষুধ খাওয়ানো এবং তারপর জলভর্তি ট্যাঙ্কে হাত- পা বেঁধে, মুখে সেলটেপ আটকে খুনের কথা জানিয়েছিল আসিফ। হত্যাকাণ্ডে এর বাইরেও কোনও তথ্য রয়েছে ।  ময়নাতদন্তের রিপোর্ট হাতে পাওয়ার পর আশঙ্কা পুলিশের ।

মালদহের কালিয়াচকে পুরাতন ১৬ মাইলে গুরুটোলা এলাকায় বাবা , মা , ঠাকুমা এবং বোনকে খুনের অভিযোগ বাড়ির ছোট ছেলে ১৯ বছরের আসিফ মহম্মদের বিরুদ্ধে । দাদাকেও খুনের চেষ্টা হয়েছিল বলে পুলিশে অভিযোগ জানান, মহম্মদ আরিফ । খুনের পর চার জনের দেহ মাটি খুঁড়ে পুতে দেওয়া হয় । প্রায় চার মাস পর দেহ উদ্ধার করে পুলিশ । জেরায় আসিফ খুনের কথা স্বীকার করলেও গলা টেপা বা ধারালো অস্ত্র দিয়ে আঘাত এমন কোনো ঘটনা জানায়নি । এমন কি ঘটনার পুর্ন নির্মানের সময়ও এমন কোনো বিষয় উঠে আসেনি । কিন্তু ময়নাতদন্তের রিপোর্টে বাবা ও মায়ের শরীরে যে ভাবে দাগ  ও ক্ষত চিহ্ন মিলেছে তা ভাবাচ্ছে তদন্তকারীদের।

Sebak DebSarma

Published by:Debalina Datta
First published:

Tags: Kaliachak, Maldah

পরবর্তী খবর