• Home
  • »
  • News
  • »
  • crime
  • »
  • KALIACHAK MURDERER CASE CONNECTED WITH KAGRAGARH BLAST POLICE INVESTIGATION GOING ON SDG

Kaliachak Murder Case|| কালিয়াচককাণ্ডে খাগড়াগড়-যোগ! খুনি আসিফের জঙ্গি যোগ? তদন্তে চাঞ্চল্যকর মোড়...

ধৃত খুনি আসিফ।

কালিয়াচকে (Kaliachak Murder) পরিবারের চারজনের খুন-কাণ্ডে চাঞ্চল্যকর মোড়। এ বারে সেই কাণ্ডে খাগড়াগড়-যোগ (Kahgragarh)!

  • Share this:

    #কালিয়াচক: মালদহের কালিয়াচকে (Kaliachak Murder) পরিবারের চারজনের খুন-কাণ্ডে চাঞ্চল্যকর মোড়। এ বারে সেই কাণ্ডে খাগড়াগড়-যোগ (Kahgragarh)! পরোক্ষে নাম ঘটনায় নাম জড়াল জেএমবি জঙ্গি (JMB Terrorist) রেজাউলের ভাই আবদুল্লার। জেরায় আসিফ আনিয়েছে খুনি আসিফের পাড়াতেই রেজাউলের বাড়ি। ঘটনার তদন্তে নেমে আধিকারিকরা জানতে পেরেছেন আসিফ গোডাউনে তৈরি করা গর্তের দেওয়াল তৈরির জন্য যে প্লাই ব্যবহার করেছিল, সেই প্লাই  রেজাউলের ভাইয়ের দোকান থেকে কেনা হয়। আসিফের বাড়ি থেকে প্রায় ৮ কিলোমিটার দূরে আব্দুল্লার দোকান। ইতিমধ্যেই পুলিশ আবদুল্লাকে জিজ্ঞাসাবাদ করেছে।

    এ দিকে,  কালিয়াচককাণ্ডে আজই গোপনজবানবন্দি দেয় আসিফের দাদা আরিফ ও মামা। বুধবার আসিফের দাদা আরিফ ও মামার বয়ান রেকর্ড হয় মালদহ আদালতে। আরিফ জানিয়েছে, তাঁর সামনেই খুনের ঘটনা ঘটায় আসিফ। মামাকে চাকরি নামে আড়াই লক্ষের ‘প্রতারণা’ও করে সে।  এরপর টাকা চাইতে গেলে  তাঁকে প্রাণে মেরে ফেলার ‘হুমকি’ দিত সে।

    কালিয়াচক কাণ্ডে আজ মামা- ভাগ্নের জবানবন্দি রেকর্ড। মূল অভিযুক্তের দাদা আরিফ মোহম্মদ এবং মামা শিস মহম্মদের বয়ান রেকর্ড হয় আজ। দুইজনকে মালদহ আদালতে নিয়ে জায় পুলিশ। দাদার সামনে খুনের ঘটনা ঘটায় ভাই আসিফ মহম্মদ। মামা শিস মহম্মদ- কে চাকরি পাইয়ে দেওয়ার নাম করে আড়াই লক্ষ টাকা হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগ আসিফের বিরুদ্ধে। এমনকী সেই টাকা চাইতে গেলে মামাকে খুনের হুমকি দেওয়ারও অভিযোগ।

    প্রসঙ্গত, Acid Bath Murder-র মতো খুন করে দেহ লোপাটের ছক কষেছিল আসিফ! পরিবারের চার সদস্যের দেহের পরিণতিতে এমনটাই মনে করছেন অটোপসি সার্জেন্ট ও তদন্তকারীরা। তার উপর ল্যাপটপ ও মোবাইলের Search History-তে মিলেছে নানাভাবে খুনের প্রক্রিয়া ও খুনের পর দেহ লোপাটের পদ্ধতি সম্পর্কে জানার চেষ্টা।এই সব ব্যাপারে বিস্তারিত স্টাডি করেছিল কালিয়াচকের আসিফ। এদিকে ময়না তদন্তের রিপোর্ট পুলিশের কাছে যা এসেছে তা Inconclusive. সেই কারণে পূর্ণাঙ্গ রিপোর্টের অপেক্ষায় রয়েছে পুলিশ। ভিসেরা পরীক্ষাও করা হবে।

    তথ্য সহায়তা: সুকান্ত মুখোপাধ্যায়

    Published by:Shubhagata Dey
    First published: