• Home
  • »
  • News
  • »
  • coronavirus-latest-news
  • »
  • Aarogya Setu| আরোগ্য সেতু অ্যাপ-এ ৪৫ দিনের মধ্যে সব ডেটা ডিলিট হয়: কেন্দ্রীয় মন্ত্রী

Aarogya Setu| আরোগ্য সেতু অ্যাপ-এ ৪৫ দিনের মধ্যে সব ডেটা ডিলিট হয়: কেন্দ্রীয় মন্ত্রী

এখনও পর্যন্ত বিশ্বের সবথেকে ডাউনলোডেড অ্যাপগুলির মধ্যে প্রথমেই জায়গা পাকা করে নিল এই দেশি অ্যাপ আরোগ্য সেতু (Aarogya Setu)। সেন্সর টাওয়ার যে রিপোর্ট প্রকাশ করেছে তাতে জানা গিয়েছে যে এখনও পর্যন্ত ১২৭.৬ মিলিয়ন মানে প্রায় ১২ কোটি ৭৬ লক্ষেরও বেশি ডাউনলোড হয়েছে আরোগ্যা সেতুর।

এখনও পর্যন্ত বিশ্বের সবথেকে ডাউনলোডেড অ্যাপগুলির মধ্যে প্রথমেই জায়গা পাকা করে নিল এই দেশি অ্যাপ আরোগ্য সেতু (Aarogya Setu)। সেন্সর টাওয়ার যে রিপোর্ট প্রকাশ করেছে তাতে জানা গিয়েছে যে এখনও পর্যন্ত ১২৭.৬ মিলিয়ন মানে প্রায় ১২ কোটি ৭৬ লক্ষেরও বেশি ডাউনলোড হয়েছে আরোগ্যা সেতুর।

শনিবার কেন্দ্রীয় তথ্য-প্রযুক্তি মন্ত্রী রবিশঙ্কর প্রসাদ জানালেন, আরোগ্য সেতু অ্যাপ কোনও নাগরিকের ব্যক্তিগত স্বাধীনতা লঙ্ঘন করছে না৷ এই অ্যাপ-এর যাবতীয় ডেটা ৪৫ দিনের মধ্যে ডিলিট হয়ে যায়৷

  • Share this:

    #নয়াদিল্লি: করোনা ভাইরাস আক্রান্তকে নজরে রাখতে আরোগ্য সেতু নামে অ্যাপ এনেছে কেন্দ্রীয় সরকার৷ কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধি-সহ বিরোধীদলের নেতাদের অনেকেই অভিযোগ করছেন, কেন্দ্রের এই অ্যাপ আসলে মানুষের ভয়ের ফায়দা তোলা৷ নাগরিকের গতিবিধির উপর নজর রাখাই উদ্দেশ্য৷ এই প্রসঙ্গে শনিবার কেন্দ্রীয় তথ্য-প্রযুক্তি মন্ত্রী রবিশঙ্কর প্রসাদ জানালেন, আরোগ্য সেতু অ্যাপ কোনও নাগরিকের ব্যক্তিগত স্বাধীনতা লঙ্ঘন করছে না৷ এই অ্যাপ-এর যাবতীয় ডেটা ৪৫ দিনের মধ্যে ডিলিট হয়ে যায়৷

    সংবাদমাধ্যম ইন্ডিয়া টুডে-কে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী জানিয়েছেন, কয়েক কোটি মানুষ এই অ্যাপ ডাউনলোড করেছেন৷ তাতেই প্রমাণিত হয়, মানুষের আস্থা রয়েছে এই অ্যাপ-এ৷ কয়েকদিন আগে রাহুল গান্ধি অভিযোগ করেন, আরোগ্য সেতু অ্যাপ উচ্চমানের নজরদারি অ্যাপ৷ মানুষের ভয়ের সুযোগ নিয়ে ব্যক্তিগত পরিসরে নজরদারি চালাচ্ছে কেন্দ্র৷

    এই প্রসঙ্গে রবিশঙ্কর প্রসাদ বলেন, 'দেশের এই রকম কঠিন পরিস্থিতিতে রাহুল গান্ধি কী বললেন, তা নিয়ে আলোচনা করার সময় নয়৷ উনি যদি অর্থনীতি ও প্রযুক্তি বুঝতেন, তা হলে না হয় বিতর্কের অবকাশ থাকত৷ আমি ওঁকে আবেদন করব, এই সঙ্কটের সময়ে রাজনীতি করবেন না৷'

    মন্ত্রীর বক্তব্য, ভারতের জনসংখ্যা ১৩০ কোটি৷ প্রায় ১২০ কোটি মানুষের কাছে মোবাইল রয়েছে৷ ১২৬ কোটির কাছে আধার কার্ড আছে৷ ৬০ কোটির বেশি মানুষের হাতে স্মার্টফোন রয়েছে৷ এই আপনার বাড়ি বা এলাকার কাছে কোনও করোনা আক্রান্ত থাকলে, আপনাকে সতর্ক করে দেবে৷

    Published by:Arindam Gupta
    First published: