Coronavirus Second Wave : রবিবার থেকে যাবতীয় ভারত-দুবাই উড়ান বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিল এমিরেটস

Coronavirus Second Wave : রবিবার থেকে যাবতীয় ভারত-দুবাই উড়ান বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিল এমিরেটস

ভারত-দুবাই উড়ান বন্ধের সিদ্ধান্ত Photo :Collected

রবিবার থেকে ১০ দিনের জন্য বন্ধ থাকবে পরিষেবা৷ জানিয়েছে বিমান পরিবহন সংস্থা।

  • Share this:

    #নয়াদিল্লি: ভারতে করোনা সংক্রমণ মারাত্মক আকার ধারণ করেছে ৷ লাফিয়ে বাড়ছে আক্রান্তের সংখ্যা। ইতিমধ্যেই ৩ লাখের গণ্ডি ছাড়িয়েছে ভারত৷ তাই করোনার কথা মাথায় রেখেই দুবাই ও ভারতের মধ্যে বিমান পরিষেবা আপাতত স্থগিত রাখার সিদ্ধান্ত নিল এমিরেটস ৷ রবিবার থেকে ১০ দিনের জন্য বন্ধ থাকবে পরিষেবা৷ জানিয়েছে বিমান পরিবহন সংস্থা।

    ব্রিটেনের প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন ভারত সফর বাতিল করেছেন ৷ ভারতের সঙ্গে সমস্ত ফ্লাইট আগেই বাতিল করেছে ব্রিটেন ৷ এরপর একই সিদ্ধান্ত নিল এমিরেটস ৷ ফ্রান্সও ভারত থেকে আগত যাত্রীদের ১০ দিনের বাধ্যতামূলক কোয়ারান্টিনের নির্দেশ দিয়েছে ৷বুধবার আরব আমিরশাহি ঘোষণা করে, তারা ১০ মিলিয়ন ভ্যাকসিন ডোজ ইতিমধ্যে দিয়েছে ৷ যা আরবের জনসংখ্যার সমান ৷ তারপরই আরব প্রশাসনের তরফে ওয়ার্নিং দেওয়া হয়, এরপরও যাঁরা ভ্যাকসিন নেবেন না তাঁদের কড়া বিধি নিষেধের মধ্যে থাকতে হবে ৷সংবাদ সংস্থা এএফপির রিপোর্ট অনুযায়ী, দুবাইয়ে বর্তমানে পরিস্থিতি যথেষ্ট  ৷ সেখানে মাস্ক ও দূরত্ব বিধি মানার জন্য শক্ত আইন আছে ঠিকই ৷ কিন্তু পাশাপাশি বার, রেঁস্তোরা, ও দোকানপত্র আগের মতো খুলে গিয়েছে ৷

    পাশাপাশি বর্তমানে ততটাই খারপ পরিস্থিতি ভারতের ৷ দেশের অন্যতম বড় বড় বেসরকারি হাসপাতালগুলিতেও অক্সিজেনের অভাব দেখা দিয়েছে৷ বেডের অভাবে চিকিৎসা বিভ্রাট শুরু হয়ে গিয়েছে হাসপাতালগুলিতে। ইতিমধ্যেই কেন্দ্র ও রাজ্যগুলির মধ্যে নানা উচ্চপর্যায়ের বৈঠক শুরু হয়েছে দেশের করোনা পরিস্থিতি সামাল দিতে।

    প্রসঙ্গত, এর আগেই ব্রিটেনের হিথরো বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষ জানিয়ে দেয় ভারত থেকে কোনও অতিরিক্ত বিমানকে সেখানে ঢোকার অনুমতি দেবে না তারা৷ একটি বিবৃতি প্রকাশ করে হিথরো কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে ইতিমধ্যেই যে সব এলাকায় করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ অতিরিক্ত মাত্রায় বাড়ছে সেই সব এলাকা নিয়ে একটি লাল তালিকা ( Red List) তৈরি করেছে ব্রিটেন ৷ সেই তালিকায় রয়েছে ভারতের নাম ৷ আর সেকারণেই অতিরিক্ত বিমান ঢোকার অনুমতি দেওয়া হবে না বলে সাফ জানিয়ে দেওয়া হয়েছে৷

    Published by:Sanjukta Sarkar
    First published:

    লেটেস্ট খবর