স্বাস্থ্যমন্ত্রীর উপস্থিতিতে হাতে গবেষণা পত্র নিয়ে ফের করোনার ওষুধ আনলেন বাবা রামদেব

স্বাস্থ্যমন্ত্রীর উপস্থিতিতে হাতে গবেষণা পত্র নিয়ে ফের করোনার ওষুধ আনলেন বাবা রামদেব
Ramdev Releases Research Paper on Patanjali Coronil medicine for Covid 19 in Presence of Union Minister Harsh Vardhan

যোগগুরু বাবা রামদেব (Ramdev) ঠিকই করে নিয়েছেন যে, করোনা যুদ্ধে দেশবাসীর পাশে তিনি দাঁড়াবেনই৷ ফের একবার তাঁর সংস্থা পতঞ্জলি বাজারে নিয়ে আসল করোনার ওষুধ 'করোনিল'

  • Share this:

    #নয়াদিল্লি: যোগগুরু বাবা রামদেব (Ramdev) ঠিকই করে নিয়েছেন যে, করোনা যুদ্ধে দেশবাসীর পাশে তিনি দাঁড়াবেনই৷ ফের একবার তাঁর সংস্থা পতঞ্জলি বাজারে নিয়ে আসল করোনার ওষুধ 'করোনিল' (Coronil)৷ শনিবার একটি অনুষ্ঠানে হাতে গবেষণা পত্র নিয়েই রামদেব করোনিলের আনুষ্ঠানিক প্রকাশ করেন৷ তাঁর দাবি এটিই "প্রথম প্রমাণ ভিত্তিক করোনার ওষুধ"৷

    এদিনের অনুষ্ঠানে রামদেবের সঙ্গে ছিলেন কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী হর্ষ বর্ধন (Harsh Vardhan) ও কেন্দ্রীয় সড়ক-পরিবহণ মন্ত্রী নীতিন গড়করি (Nitin Gadkari)৷ রামদেবের দাবি করোনিল বিশ্ব স্বাস্থ্য সংগঠন 'হু'-এর সংশাপত্রও পেয়েছে৷ যা ১৫৮টি দেশে রফতানি করার ক্ষেত্রেও কোনও সমস্যা নেই৷

    এই নিয়ে দ্বিতীয়বার রামদেব করোনার ওষুধ বাজারে আনলেন৷ গত বছরের মাঝামাঝি সময় যখন সারা বিশ্ব করোনা টিকার জন্য মুখিয়ে ছিল, তখন রামদেবের করোনিল হইচই ফেলে দিয়েছিল৷ তিনি জানান যে, পতঞ্জলির করোনিল ট্যাবলেট নাকি ৭ দিনেই করোনা সারিয়ে দেবে! এমনকী করোনিল বাজারেও বার করেন তিনি৷ কিন্তু এরপরেই টনক নড়ে কেন্দ্রের৷ উত্তরাখণ্ডের আয়ুর্বেদ বিভাগ সাফ জানিয়ে দেয় যে, রামদেবের পতঞ্জলি করোনা চিকিৎসায় ওষুধ ব্যবহারের কোনও লাইসেন্সই নেয়নি! আয়ুর্বেদ বিভাগ আরও জানায় যে, রামদেবের সংস্থা শুধুই জ্বর ও রোগপ্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ানোর ওষুধ বানাবে বলেই অনুমোদন চেয়েছিল৷

    কেন্দ্রীয় সরকারের আয়ুশ মন্ত্রক বাধ্য হয়ে পতঞ্জলিকে করোনার বিজ্ঞাপন বন্ধের নির্দেশ দেয়। এফআইআরও হয়েছিল রামদেবের বিরুদ্ধে। বিতর্ক চাপা দিতে পতঞ্জলি জানায় যে, তারা করোনার ওষুধই বার করেনি৷ ফের একবার নয়া উদ্যমে মাঠে নামেন রামদেব৷ আয়ুশ মন্ত্রকের ছাড়পত্র ও হু-র শংসাপত্র জুটিয়েই রামদেব করোনিল নিয়ে করোনার সঙ্গে যুদ্ধ শুরু করলেন৷

    Published by:Subhapam Saha
    First published:

    লেটেস্ট খবর