corona virus btn
corona virus btn
Loading

খোদ মন্ত্রীর বাড়ির বাইরেই সাঁটা হল কোয়ারেন্টাইন পোস্টার

খোদ মন্ত্রীর বাড়ির বাইরেই সাঁটা হল কোয়ারেন্টাইন পোস্টার

মন্ত্রীর নাম লেখা ওই পোস্টারে ৩১ মার্চ থেকে ১৩ এপ্রিল পর্যন্ত হোম কোয়ারান্টাইনের উল্লেখ রয়েছে

  • Share this:

#রায়গঞ্জ: রায়গঞ্জের সাংসদ তথা কেন্দ্রীয় নারী ও শিশু কল্যান প্রতিমন্ত্রী দেবশ্রী চৌধুরীর  আবাসনের রাস্তার ধারের দেওয়ালেই হোম কোয়ারান্টাইন নোটিশ সাটা হল।কে বা কারা এই নোটিশ সাটল এনিয়ে পঞ্চায়েত থেকে জেলা স্বাস্থ্যদপ্তর কেউ মুখ খুলতে রাজী হন নি। সোমবার রাতে মন্ত্রীর আবাসনের  বাইরের দিকে একটি দেওয়ালে রাস্তার ধারা তিনটি  হোম কোয়ারান্টাইন নোটিশ পোষ্টার দেখতে পাওয়া যায়।

মন্ত্রীর নাম লেখা ওই পোস্টারে ৩১ মার্চ থেকে ১৩ এপ্রিল পর্যন্ত হোম কোয়ারান্টাইনের উল্লেখ রয়েছে। কারা এই পোষ্টার সাঁটল এবিষয়ে স্থানীয় পঞ্চায়েত, স্বাস্থ্যদপ্তর কেউ ক্যামেরার সামনে মুখ খুলতে রাজী নন।এমনকি মন্ত্রী দেবশ্রী চৌধুরী এনিয়ে কোন প্রতিক্রতিয়া দিতে রাজী নন।ফলে কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর সঙ্গে উত্তর দিনাজপুর জেলা প্রশাসনের বিরোধ চরমে পৌছাল।বিগত কয়েকদিন থেকেই মন্ত্রীর বাড়িতে কোয়ারান্টাইন নোটিশ সাঁটানো নিয়ে বিতর্ক সৃষ্টি হয়েছিল। পঞ্চায়েত স্তরের দুই স্বাস্থ্য কর্মী, পরে ব্লক স্বাস্থ্য আধিকারিক ও রায়গঞ্জ থানার আইসি নোটিশ সাঁটাতে গিয়ে মন্ত্রীর বাধা পেয়ে ফিরে আসেন। তবে সোমবার রাতে শুনশান শহরে কে বা কারা এই পোষ্টার সেটে চলে যায়। পুরো বিষয়টি নিয়ে কোনও মন্তব্য করতে চান নি সাংসদ দেবশ্রী চৌধুরী৷ বক্তব্য মেলেনি পঞ্চায়েত ও জেলা প্রশাসন স্তরেও।গত ৩১ মার্চ কলকাতা, এরপর রায়গঞ্জে আসেন সাংসদ তথা কেন্দ্রীয় প্রতিমন্ত্রী দেবশ্রী চৌধুরী৷ এরপর ২ এপ্রিল শহরের রাস্তায় বেরিয়ে সাধারণ মানুষের মধ্যে মাস্ক বিলি করেন তিনি। সেই থেকেই শুরু হয় বিতর্ক। রায়গঞ্জের বিধায়ক মোহিত সেনগুপ্ত ও রায়গঞ্জ পুরসভার পুরপতি সন্দীপ বিশ্বাস লিখিত ভাবে অভিযোগ জানান জেলা পুলিশ ও প্রশাসনকে। তাঁরা প্রশ্ন তোলেন, লকডাউনের আইন ভেঙে ১৪ দিন হোম কোয়ারান্টাইনে না থেকে কেমন করেই  রাস্তায় বেরিয়ে পড়লেন মন্ত্রী দেবশ্রী দেবী ? স্থানীয় কমলাবাড়ি গ্রাম পঞ্চায়েতের স্বাস্থ্যকর্মিদের তার আবেসনে পাঠিয়ে মন্ত্রীর শারিরিক অবস্থার খোঁজ খবর নেওয়া হয়।স্বাস্থ্যকর্মিরা তার আবাসনে হোম কোয়ারান্টাইনের পোষ্টার লাগাতে চাইলে মন্ত্রী তাতে আপত্তি জানান। পোষ্টার দেখে আবাসনের অন্যান্য বাসিন্দারা অস্বস্তিতে  পড়বেন এই অজুহাত দেখিয়ে স্বাস্থ্যকর্মিদের তিনি ফিরিয়ে দেন। ওইদিনই রাতে ব্লক স্বাস্থ্য অফিসার( বি এম ও এইচ)  রায়গঞ্জ থানার আইসিকে সঙ্গে নিয়ে মন্ত্রীর আবাসনে পোষ্টার লাগাতে গিয়েছিলেন।সরকারি কোন নির্দেশবলে তাঁরা ওই পোস্টার সাঁটতে এসেছেন, সেই নির্দেশিকাপত্র দেখতে চান মন্ত্রী। কার প্ররোচনায় এইসব হচ্ছে তা কর্তব্যরত পুলিশ অফিসার ও বিএমওএইচের কাছে জানতে চান তিনি। মন্ত্রী তাদের জিজ্ঞেস করেন, সেদিন যে সমস্ত সাংসদ ও মন্ত্রীরা দিল্লি থেকে বাড়ি ফিরেছেন। তাঁদের  সকলের বাড়িতে কি এই পোষ্টার লাগানো হয়েছে ? দুই পক্ষের মধ্যে বেশ কিছুক্ষণ বাদানুবাদ চলার পর হোম কোয়ারান্টাইন পোষ্টার না লাগিয়েই ফিরে আসতে হয় সরকারি আধিকারিকদের। এদিন স্বাস্থ্য দপ্তরের পক্ষ থেকে কোয়ারান্টাইন নোটিশ সাঁটানোর পর দেবশ্রী দেবীর কোনও মন্তব্য পাওয়া যায়নি৷

Uttam Paul

First published: April 8, 2020, 5:25 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर