জনতা কার্ফু: শুনসান গোটা এলাকা, তার মধ্যেই ক্রেতাদের উপছে পড়া ভিড় দেখা গেল এই দোকানে!

জনতা কার্ফু: শুনসান গোটা এলাকা, তার মধ্যেই ক্রেতাদের উপছে পড়া ভিড় দেখা গেল এই দোকানে!

বেমানান লাগলেও আজ জনতা কার্ফুর মতো গুরুত্বপূর্ণ দিনে এই ছবি ধরা পড়েছে ক্যামেরায়।

  • Share this:

#মহিষাদল: জনতা কার্ফুর কারণে রবিবার সকাল থেকেই শুনসান চেহারায় গোটা মহিষাদল শহর। অন্যান্য জায়গার মতো মহিষাদল শহরের রাস্তাঘাট ফাঁকা। বন্ধ সব দোকানপাটই। তারই মধ্যে শহরের একটি দোকানে দেখা গেল খদ্দেরদের ভীড়।

অন্য কোনও দোকান নয়, মদের দোকানেই দেখা গেল যুবকদের ভীড়। যুবক ক্রেতারা এদিন পকেট থেকে টাকা বের করতে কার্পণ্য করেনি।শুনসান রাস্তাঘাট আর বন্ধ অন্যান্য দোকানপাটের মাঝে খোলা দেশি ও বিদেশি মদের দোকান। যেখানে মদ কিনতে রবিবার সকাল থেকেই খদ্দেরদের আনাগোনা চলছে। মহিষাদল শহরের পুরনো বিলেতি মদের দোকানে ক্রেতারা আসছেন। টাকা দিচ্ছেন বিক্রেতাকে আর হাতে নিচ্ছেন মদের বোতল। বেমানান লাগলেও আজ জনতা কার্ফুর মতো গুরুত্বপূর্ণ দিনে এই ছবি ধরা পড়েছে ক্যামেরায়।

খদ্দেরদের বেশিরভাগই বলছেন-করোনা ভাইরাসের হাত থেকে বাঁচতে মদই ভরসা বলে তাঁরা জেনেছেন।  তাই করোনা নিয়ে চর্চা শুরুর পর থেকেই নাকি মদ খাওয়া বাড়িয়েছেন তাঁরা।  জনতা কার্ফুর দিনে কাজকর্ম না থাকায় খাওয়ার পরিমাণ সামান্য হলেও তাঁরা বাড়িয়েছেন বলেও জানিয়েছেন ক্রেতারা।

জানা গিয়েছে, মহিষাদল শহর জুড়ে লাইসেন্স প্রাপ্ত বিলেতি মদের দোকান আছে তিনটি।  তারমধ্যে এদিন দুটি দোকান বন্ধ ছিল। খোলা ছিল একটিই দোকান। শহরের পুরনো বাসস্ট্যান্ড যাওয়ার রাস্তায় পড়ে এই দোকানটি। সেই দোকানেই মদ কেনার ভিড়। এমনিতেই তিনটে দোকান খোলা থাকলেও ক্রেতাদের চাহিদা মেটাতে হিমশিম খেতে হয়। তার ওপর আজ দুটো বন্ধ। সঙ্গে মদ খেলে করোনা ভাইরাসকে দুরে রাখা যায়, এই প্রচারে বিক্রির পরিমাণ আর পাঁচটা দিনের তুলনায় বেশিই বলে খবর।

 SUJIT BHOWMIK

First published: March 23, 2020, 12:16 AM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर