Home /News /coronavirus-latest-news /
কোয়ারেন্টাইনে কেমন কেটেছে? করোনা থেকে বেঁচে জানালেন ব্যক্তি

কোয়ারেন্টাইনে কেমন কেটেছে? করোনা থেকে বেঁচে জানালেন ব্যক্তি

দাপট বাড়াচ্ছে করোনা। প্রতীকী চিত্র

দাপট বাড়াচ্ছে করোনা। প্রতীকী চিত্র

করোনা ভাইরাসের কবল থেকে ফিরে অভিজ্ঞতা জানালেন সেই ব্যক্তি৷ জানালেন কেমন কাটে কোয়ারেন্টাইনে? একই সঙ্গে তাঁর পরামর্শ, এই মারণ রোগের কোনও রকম উপসর্গ হলেই ডাক্তার দেখান৷

  • Share this:

    #নয়াদিল্লি: দিল্লিতে তাঁর শরীরেই প্রথম করোনা ভাইরাস মিলেছিল৷ পেশায় ব্যবসায়ী৷ ভআরতে তিনিই প্রথম ব্যক্তি, যাঁর শরীরে করোনা ভাইরাস পাওয়া যায়৷ সঙ্গে সঙ্গে তাঁকে কোয়ারেন্টাইনে পাঠানো হয়৷ ১৪ দিন কোয়ারেন্টাইনে থাকার পরে তিনি এখন সুস্থ৷

    করোনা ভাইরাসের কবল থেকে ফিরে অভিজ্ঞতা জানালেন সেই ব্যক্তি৷ জানালেন কেমন কাটে কোয়ারেন্টাইনে? একই সঙ্গে তাঁর পরামর্শ, এই মারণ রোগের কোনও রকম উপসর্গ হলেই ডাক্তার দেখান৷

    ৪৫ বছরের ওই ব্যক্তি পিটিআই-কে জানিয়েছেন, তাঁর বাড়ি দিল্লির ময়ূরবিহারে৷ তাঁর কথায়, 'কোয়ারেন্টাইনে থাকার পর আমি ধার্মিক হয়ে গিয়েছি৷ গত শনিবার আমায় ছাড়া হয়েছে৷ আমি একটি আলাদা ঘরে থাকতাম৷ একটি এসি ছিল এবং বেশ ভালো পরিষেবা৷ সকালে জানলা খুললেই সূর্যের আলো ঘরে৷ কাল কুঠুরি নয়৷'

    তিনি বলছেন, 'ডাক্তাররা সর্বদা আমায় নজরে রাখতেন৷ আমাকে ওঁরা কোনও অসুবিধা হচ্ছে কি না, জিগ্গেস করতেন৷' এই ব্যক্তি ভারতের প্রথম করোনা ভাইরাস আক্রান্ত ছিলেন, যিনি গত ২৫ ফেব্রুয়ারি ইতালি থেকে ফেরেন৷ ওই রাতেই তাঁর করোনা উপসর্গ দেখা দেয়৷ তিনি বলছেন, '২৬ ফেব্রুয়ারি সকালে, স্থানীয় ডাক্তার দেখাই৷ কিছু ওষুধ খাই৷ ২৮ ফেব্রুয়ারি আমার ছেলের জন্মদিনের পার্টি ছিল৷ দক্ষিণ দিল্লির একটি হোটেলে পার্টি হয়৷ পার্টিতে আমার স্ত্রী, কন্যা, মা ও কিছু বন্ধু ছিল৷ সবারই করোনা নেগেটিভ এসেছে৷ আমার ছেলের স্কুলের কয়েকজন বন্ধুও ছিল পার্টিতে৷ ওই রাতেই প্রবল জ্বর আসে৷ হাসপাতালে যাই৷ করোনা পাওয়া যায় শরীরে৷ তারপরেই সফদরজং হাসপাতালে আইসোলেশনে পাঠানো হয়৷'

    পরের দিন আবার রাতে জ্বর আসে৷ কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয় আমায়৷ আমাকে ফোন ব্যবহারের সুযোগ দেওয়া হয়েছিল৷ ভিডিও কলিংয়ে পরিবারের সঙ্গে যোগাযোগ রাখতাম৷ একবারের জন্যও মনে হয়নি পরিবার ছেড়ে আলাদা রয়েছি৷ প্রণয়ম করতাম৷ ভজন শুনতাম৷ অনেক বেশি ধার্মিক হয়ে গিয়েছি৷ ডাক্তাররা বারবার বলতেন, কোনও ভয় নেই৷ আমায় হাসপাতাল থেকে বলা হল, চুটিয়ে নেটফ্লিক্স দেখুন৷ বই পড়ুন ভালো ভালো৷ দারুণ কেটছ দিনগুলো৷ ডাক্তারদের অসংখ্য ধন্যবাদ৷

    Published by:Arindam Gupta
    First published:

    Tags: Corona Infected, Coronavirus, Coronavirus in India

    পরবর্তী খবর