Commission on Covid : করোনা বিধি না মানলে শো কোজ প্রার্থীকে, হাইকোর্টের হস্তক্ষেপের পর কড়া কমিশন!

করোনাভাইরাস - কড়া কমিশন

মুখ্য নির্বাচন কমিশনার (CEC) এদিনের বৈঠকে বলেন, "যিনি করোনা বিধি মানবেন না প্রয়োজনে সেই প্রার্থীর বিরুদ্ধে এফআইআর (FIR) করুন।"

  • Share this:

    #কলকাতা : রাজ্যে লাফিয়ে বাড়ছে করোনা সংক্রমণ (Covid 19 Second Wave)। তারই মধ্যে চলছে আট দফার বিধানসভা ভোট (West Bengal Assembly Election 2021)। এই পরিস্থিতিতে করোনা বিধি মানা নিয়ে একাধিক জনস্বার্থ মামলা জমা পড়েছে আদালতে। তার শুনানিতে বৃহস্পতিবার নির্বাচন কমিশনকে কার্যত তুলোধোনা করে কলকাতা হাইকোর্ট। এরপরেই নড়ে চড়ে বসেছে কমিশন। শুক্রবার কমিশনের বৈঠকে করোনা বিধি না মানলে কোনও প্রার্থীকেই রেয়াত করা হবে না বলে সাফ জানিয়ে দেন মুখ্য নির্বাচন কমিশনার (Chief Election Commissioner) সুশীল চন্দ্র।

    মুখ্য নির্বাচন কমিশনার (CEC) এদিনের বৈঠকে বলেন, "যিনি করোনা বিধি মানবেন না প্রয়োজনে সেই প্রার্থীর বিরুদ্ধে এফআইআর (FIR) করুন।" অতিমারীতে নির্বাচন নিয়ে হাইকোর্টের মন্তব্য প্রসঙ্গে সুশীল চন্দ্র কমিশনের আধিকারিকদের বলেন, " হাইকোর্টকে কেন হস্তক্ষেপ করতে হচ্ছে করোনা বিধি মানার জন্য? আপনারা নিজে থেকে কেন কোনও পদক্ষেপ নিচ্ছেন না? যাঁরা এই বিধি মানবে না তাঁদের বিরুদ্ধে এফআইআর করুন এবং তার কমপ্লায়েন্স রিপোর্ট আমাদের পাঠান।"

    সূত্রের খবর, নির্বাচনী প্রচারে কোভিড বিধি লঙ্ঘনের জন্য ইতিমধ্যেই মালদহতে শোকজ করা হয়েছে ৮ জন প্রার্থীকে। জেলা প্রশাসন বেশ কয়েকজনের বিরুদ্ধে করোনা বিধি না মানার জন্য ব্যবস্থা নিতে চলেছে। শুধু মালদহ নয়, সূত্রের খবর, বীরভূমেও ৬ জন প্রার্থীর বিরুদ্ধে করোনা বিধি ভঙ্গের অভিযোগে এফআইআর করেছে সংশ্লিষ্ট জেলা প্রশাসন। শুক্রবারের বৈঠকে রাজ্যে নির্বাচন চলাকালীন প্রচার পর্বে করোনা বিধি না মানা নিয়ে তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করেন মুখ্য নির্বাচন কমিশনার। এ বিষয়ে নির্বাচন কমিশনের আধিকারিক ও জেলা শাসকদের দায়িত্ব নেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন সুশীল চন্দ্র। প্রসঙ্গত, মুখ্য নির্বাচন কমিশনার নিজেই কোভিড আক্রান্ত হয়েছেন কিছুদিন আগেই। তিনি ছাড়াও রাজীব কুমার সহ নির্বাচন কমিশনের আরেক উচ্চ পদস্থ আধিকারিকও কোভিড পজিটিভ বলে কমিশন সূত্রে জানা গিয়েছে।

    সোমরাজ বন্দ্যোপাধ্যায়

    Published by:Sanjukta Sarkar
    First published: