করোনা ভাইরাস

?>
corona virus btn
corona virus btn
Loading

রেড জোনে থাকা কৃষকরা ধান কাটতে যেতে পারবেন না, সংক্রমণ ঠেকাতে তৎপর প্রশাসন

রেড জোনে থাকা কৃষকরা ধান কাটতে যেতে পারবেন না, সংক্রমণ ঠেকাতে তৎপর প্রশাসন

পূর্ব বর্ধমানের ভাতার, মন্তেশ্বর, কাটোয়া, কেতুগ্রাম, রায়না, খন্ডঘোষ, মঙ্গলকোট, মেমারি, গলসি, আউসগ্রামের বিস্তীর্ণ এলাকায় বোরো চাষ হয়েছে। বোরো ধান পেকে গিয়েছে। কিন্তু অনেকেই শ্রমিকের অভাবে সেই ধান কেটে এখনও ঘরে তুলতে পারেননি।

  • Share this:

#বর্ধমান: রেড জোন এলাকা থেকে পূর্ব বর্ধমান জেলায় ধান কাটতে আসতে পারবেন না খেত মজুররা। তাঁদের জেলায় ঢোকার মুখে আটকে দেবে জেলা প্রশাসন। তবে জেলার অন্য প্রান্ত থেকে শ্রমিকরা যেতে পারবেন কাজে। রেড জোন নয় এমন জেলা, অর্থাৎ বাঁকুড়া, পুরুলিয়া থেকে শ্রমিকরা ধান কাটতে পূর্ব বর্ধমান জেলায় আসতে পারবেন বলে জানিয়েছে জেলা প্রশাসন। তবে তাঁদের মুখ ঢেকে, সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে কাজ করতে হবে।

সোমবার পূর্ব বর্ধমানের জেলাশাসক বিজয় ভারতী জানান,  রেড জোন থেকে কোনও খেতমজুর ধান কাটতে আসতে পারবেন না। করোনার সংক্রমণ ঠেকাতেই এই পদক্ষেপ। তবে জেলার অন্য প্রান্ত থেকে শ্রমিকরা ধান কাটতে যেতে পারবেন। রেড জোন নয় এমন পাশের জেলার খেতমজুররা আসতে পারবেন।

পূর্ব বর্ধমান জেলার ভাতার, মন্তেশ্বর, কাটোয়া, কেতুগ্রাম, রায়না, খন্ডঘোষ, মঙ্গলকোট, মেমারি, গলসি, আউসগ্রামের বিস্তীর্ণ এলাকায় বোরো চাষ হয়েছে। বোরো ধান পেকে গিয়েছে। কিন্তু অনেকেই শ্রমিকের অভাবে সেই ধান কেটে এখনও ঘরে তুলতে পারেননি। এদিকে প্রাকৃতিক দুর্যোগে ধানের ক্ষতি হচ্ছে। বাইরের শ্রমিকরা যাতে আসতে পারে সে ব্যাপারে জেলা প্রশাসনের কাছে বার বার দরবার করেছিলেন কৃষকরা।

ধান কাটার কাজ কোন এলাকার শ্রমিক করতে পারবে, জেলার অন্য প্রান্ত থেকে শ্রমিকরা আসতে পারবেন কিনা, অন্য জেলা বা রাজ্য থেকে ধান কাটতে শ্রমিকদের আসতে দেওয়া হবে কিনা এসব ব্যাপারে জেলা প্রশাসন রাজ্য সরকারের পরামর্শ চাওয়া হয়। জেলা প্রশাসন সূত্রে জানা গিয়েছে, জেলার অন্য প্রান্ত থেকে ধান কাটার জন্য শ্রমিকদের বাইরে যেতে কোনও বাধা নেই। এমনকি শ্রমিকরা আসতেও পারে পাশের জেলা থেকে। তবে এখনই বাইরের রাজ্য থেকে শ্রমিকরা ধান কাটতে আসতে পারবেন না। পাশাপাশি, রেড জোন হিসেবে চিহ্নিত এলাকা থেকেও কোনও  শ্রমিক কোনওভাবেই অন্যত্র ধান কাটতে যেতে পারবেন না।

Saradindu Ghosh

Published by: Shubhagata Dey
First published: May 4, 2020, 5:56 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर