করোনার জেরে পিছিয়ে গেল উত্তরবঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষামূলক ভ্রমণ !

করোনার জেরে পিছিয়ে গেল উত্তরবঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষামূলক ভ্রমণ !
photo source collected

উত্তরবঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয়ের একাধিক বিভাগের শিক্ষামূলক ভ্রমণ পিছিয়ে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে কর্তৃপক্ষ।

  • Share this:

#শিলিগুড়ি: করোনা যেভাবে  ছড়াচ্ছে তাতে গোটা দেশ জুড়েই চলছে চরম সতর্কতা। আন্তর্জাতিক সীমান্ত থেকে আন্তঃ রাজ্য সীমানা সর্বত্রই চলছে কড়াকড়ি। হেলথ স্ক্রিনিং কার্যত বাধ্যতামূলক হয়ে দাঁড়িয়েছে। এবার করোনার প্রভাব এসে পড়লো বিশ্ববিদ্যালয়েও। উত্তরবঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয়ের একাধিক বিভাগের শিক্ষামূলক ভ্রমণ পিছিয়ে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে কর্তৃপক্ষ। ইউ জে সি'র গাইড লাইন মেনেই এই সিদ্ধান্ত। কোনও বিভাগের যাওয়ার কথা ছিল ধরমশালা। সেখানে তো বৌদ্ধ মঠেও পর্যটকদের প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে। আবার কোনও বিভাগের পড়ুয়াদের দিল্লি, চেন্নাই, আবার কোনও বিভাগের ছাত্র-ছাত্রীরা যেত কেরালা, কন্যাকুমারিতে। কিন্তু যেভাবে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ছে দেশে। তাই আপাতত শিক্ষামূলক ভ্রমণে "না" কর্তৃপক্ষের। পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে মে অথবা জুনে এই সফর হবে বলে বিশ্ববিদ্যালয় সূত্রে জানা গিয়েছে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের ডিন সঞ্চারী রায় মুখোপাধ্যায় জানান, ইউ জে সি'র নির্দেশেই এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। আপাতত শিক্ষামূলক ভ্রমণ স্থগিত রাখা হয়েছে। সবরকম সাবধানতা অবলম্বন করা হয়েছে।  বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যাম্পাস, ক্লাস রুমে হ্যাণ্ড স্যানিটাইজার, টিস্যু, সাবানের ব্যবহারের দিকে জোর দেওয়া হয়েছে। সূত্রের খবর, বিশ্ববিদ্যালয়ের হিমালয়ান স্টাডিজ, ইতিহাস, রুরাল ডেভলোপমেন্ট, বায়ো টেকনোলজি, বায়ো ইনফরমেটিক্স, মাইক্রো বায়োলজি এবং রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষামূলক ভ্রমণ আপাতত হচ্ছে না। পরিস্থিতির ওপর নজর রাখছে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। স্বাভাবিক হলে পরবর্তী দিনক্ষন চূড়ান্ত করা হবে। করোনার প্রভাব এসে পড়েছে ক্যাম্পাসের কিচেনেও! বিশ্ববিদ্যালয়ের হস্টেল গুলোতে মেনু থেকে উধাও চিকেন! আপাতত চিকেনের কোনো মেনু রান্না হচ্ছে না হস্টেলে। বিশ্ববিদ্যালয়ের পড়ুয়াদের স্বাস্থ্য সুরক্ষার জন্য একাধীক পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে। পাশাপাশি চলবে সচেতনতাও। অযথা আতঙক যাতে না ছড়িয়ে পড়ে সেদিকেও সমান নজর কর্তৃপক্ষের। ইউ জে সি যে গাইড লাইন দিয়েছে তা মেনেই চলছে কর্তৃপক্ষ। সতর্কতামূলক সবরকম ব্যবস্থাই নিয়েছে কর্তৃপক্ষ। কর্তৃপক্ষের সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়েছে পড়ুয়ারাও।

PARTHA PRATIM SARKAR 

First published: March 13, 2020, 11:09 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर